ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২২ জিলহজ ১৪৪১

শিল্প-সাহিত্য

বেলাল চৌধুরী নতুন করে লিখছেন তার স্মৃতিকথা

ফিচার ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৩৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৭, ২০১০
বেলাল চৌধুরী নতুন করে লিখছেন তার স্মৃতিকথা

কবি বেলাল চৌধুরীর স্মৃতিচারণের প্রতি পাঠকের রয়েছে আলাদা এক কৌতূহল। তার অভিজ্ঞতার ঝোলাটি বেশ বড়।

তার স্মৃতিচারণ মানেই বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের লেখকদের সাথে বৈচিত্র্যপূর্ণ বন্ধুত্ব আর ঘটনাবহুল অভিজ্ঞতার বর্ণনা। আছে অনেক বিশ্ববিখ্যাত লেখকের সঙ্গে সম্পর্ক আর দেশ-বিদেশের নানা জলহাওয়ার কথা। সেই সব কথা ও স্মৃতি নিয়ে এ বছর বইমেলায় ইত্যাদি প্রকাশনী থেকে বের হয়েছিল বেলাল চৌধুরীর আত্মজীবনী ‘নিরুদ্দেশ হাওয়ায় হাওয়ায়’। বইটি তরুণ পাঠকদের বৈচিত্র্যময় অভিজ্ঞতার স্বাদ দিলেও বেলাল চৌধুরী কিন্তু বইটি নিয়ে আদৌ সন্তুষ্ট নন।

তিনি আবার ওই বইটিকেই নতুনভাবে লেখায় ব্যস্ত রয়েছেন। তার মতে, বইটিকে আত্মজীবনী বলা যায় না, কেবল স্মৃতিচারণের বই বলা যায়। ওখানে ধারাবাহিকভাবে কোনো কিছু আসেনি, এসেছে বিচ্ছিন্নভাবে। বাদ গিয়েছে অনেক ঘটনাই।

কী প্রসঙ্গ বাদ গেছে জানতে চাইলে বেলাল চৌধুরী বলেন ‘নিরুদ্দেশ হাওয়ায় হাওয়ায়’ বইটিতে  আমার বাল্যকাল, আমার শৈশব, যৌবন, নারীবিষয়ক অনেক ঘটনাই ঠিকমতো আসেনি। অনেক নারীর সাথে আমার সম্পর্ক ছিল, সম্পর্ক ছিল ফিল্মের অনেক লোকের সাথে, সেসব কিছুই এখানে লেখা হয়নি। তাছাড়া কুমিল্লা পর্ব, সন্দ্বীপ পর্ব, ঢাকার অনেক ঘটনা এবং আমার সামুদ্রিক মাছব্যবসার সাথে জড়িয়ে পড়ার প্রসঙ্গও বইটতে পরিপূর্ণভাবে আসেনি। এবার আমি এসবই আরও বিশদভাবে, ধারাবাহিকভাবে লিখছি। ’

নতুন করে লেখা স্মৃতিকথাটির নাম কি আগের মতো ‘নিরুদ্দেশ হাওয়ায় হাওয়ায়’ থাকবে, নাকি বদলে যাবে? জানালেন, এটা এখনও ঠিক করেননি। লেখা শেষ হলে বলতে পারবেন নাম বদল হবে নাকি আগের নামই থাকবে।

বইটি প্রকাশ করবে শুদ্ধস্বর।

বাংলাদেশ স্থানীয় সময় ১৩১৫, অক্টোবর ১৭, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa