ঢাকা, সোমবার, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯, ২৭ জুন ২০২২, ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

কৃষি

কালো জিরা চাষে সাড়া ফেলেছেন প্রতিবন্ধী আক্কাস আলী

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩৩ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৩, ২০২২
কালো জিরা চাষে সাড়া ফেলেছেন প্রতিবন্ধী আক্কাস আলী

মাগুরা: মাঠে মাঠে কালো জিরার ফুলের মৌ মৌ গন্ধ, মৌমাছির গুঞ্জন। বাতাসে দোল  খাওয়া দিগন্ত বিস্তৃত কালো জিরার মাঠ।

শারীরিক প্রতিবন্ধী হয়েও কঠোর পরিশ্রম করে আক্কাস আলী খান পেয়েছেন এই সাফল্য। চলতি বছরে বছরে কালো জিরা চাষ করে রীতিমত সাড়া ফেলেছেন তিনি। তার দেখাদেখি এলাকার অনেক কৃষক কালো জিরা চাষে এগিয়ে আসছেন।

মাগুরা সদর উপজেলা নালিয়ারডাঙ্গী গ্রামের মাঠে চাষ হয়েছে কালো জিরা। ফলনও হয়েছে ভাল। এ বছর  ৫০ শতক জমিতে মসলা জাতীয় ফসল কালো জিরা চাষ করেছেন প্রতিবন্ধী আক্কাস আলী খান।

বাংলানিউজকে তিনি জানান, কালো জিরা চাষ করতে খরচ হয় বিঘা প্রতি  ৪ হাজার টাকা। ফলন ভাল হলে বিঘাপ্রতি ৪ মনের বেশি ফসল ঘরে তোলা যায়। এর বাজার মূল্যও ভাল। প্রতিমণ কালো জিরা ৭ থেকে ৮ হাজার টাকা দরে বিক্রি হয় বলে জানান এ কৃষক।

নালিয়াডাঙ্গী গ্রামে চলতি মৌসুমে কালো জিরার চাষ হয়েছে  ৫০ একরের বেশি জমিতে। কৃষকরা জানিয়েছেন ফলনও ভাল পেয়েছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ভাল দামে কালো জিরা বিক্রি করতে পারবেন।

এদিকে বাজারে মূল্য ভাল থাকায় দিন দিন কালো জিরার চাষ বাড়ছে বলে জানিয়েছেন এ অঞ্চলের কৃষকরা।

মাগুরা আঞ্চলিক মসলা গবেষাণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামান বলেন, কালো জিরা একটি ঔষধিগুণ সম্পন্ন মসলা জাতীয় ফসল। কালো জিরা একটি তেল জাতীয় ফসল। এই ফসলে রয়েছে অসংখ্য ঔষুধি গুণাবলি। যা মানব দেহে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করছে। বাংলাদেশ মসলা গবেষণা কেন্দ্র রবি মৌসুমে চাষ হয় এমন একটি জাত উদ্ভাবন করেছে বারি-১ জাতের কালো জিরা। যা চাষে কৃষকরা লাভবান হচ্ছেন। মাগুরা মসলা গবেষণা কেন্দ্র থেকে কৃষকদের নানা বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। এতে কৃষকরা উপকৃত হচ্ছেন। আশা করি আগামীতে কালো জিরা চাষে কৃষকরা আরও বেশি আগ্রহী হবেন।
 

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩২ ঘণ্টা, ২৩ এপ্রিল, ২০২২
এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa