ঢাকা, বুধবার, ২৫ মাঘ ১৪২৯, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৬ রজব ১৪৪৪

কৃষি

গোপালগঞ্জে ভাসমান বেডে সবজি চাষ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৫৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২১, ২০২৩
গোপালগঞ্জে ভাসমান বেডে সবজি চাষ

গোপালগঞ্জ: গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় নিম্ন জলাভূমি বেষ্টিত জমিতে ভাসমান বেডে সবজি চাষের উদ্বোধন করা হয়েছে।

শনিবার (২১ জানুয়ারি) সকালে উপজেলার কান্দি ইউনিয়নের মাচারতারা গ্রামের কয়েকটি জলাভূমির ওপর তৈরি ভাসমান বেডে সবজির চারা রোপণ করে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধন করেন ‘ভাসমান বেডে সবজি ও মসলা চাষ’ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড. বিজয় কৃষ্ণ বিশ্বাস।  

এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফেরদৌস ওয়াহিদ, উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ নিটুল রায়, কান্দি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান তুষার মধুসহ এলাকার কৃষক-কৃষাণীরা উপিস্থত ছিলেন।  

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ নিটুল রায় বলেন, কোটালীপাড়া উপজেলার কান্দি ইউনিয়নে দেড় হাজার বিঘা জলাবদ্ধ পতিত জমি রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে আমরা এই পতিত জমিতে ফসল উৎপাদনের উদ্যোগ নিয়েছি। এই পতিত জলাবদ্ধ জমির যেখানে ধান চাষ করা সম্ভব, সেখানে ধান চাষ করব। আর যেখানে ধান চাষ করা সম্ভব না, সেখানে সবজি চাষ করা হবে।  

তিনি আরও বলেন, এই দেড় হাজার বিঘা জলাবদ্ধ পতিত জমিতে ধান ও সবজির চাষ করা হলে ৬০ হাজার মণ ধান উৎপাদিত হবে। যার বাজার মূল্য ৬ কোটি টাকা। এছাড়া কচুরিপানার ভাসমান বেডে লাউ, কুমড়া, করলাসহ বিভিন্ন সবজি চাষ করলে অন্তত ৩০ লাখ টাকার সবজি উৎপাদিত হবে।  

ভাসমান বেডে সবজি ও মসলা চাষ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড. বিজয় কৃষ্ণ বিশ্বাস বলেন, যেখানে পানি আছে সেখানে আমরা ভাসমান বেডে সবজি চাষ করব। আর যেখানে পানি নেই কিন্তু ধান লাগানো সম্ভব না, সেখানে আমরা ডিপি পদ্ধতিতে সবজির চাষ করব। ভাসমান বেডে সবজি চাষে মাটি এবং রাসায়নিক সার প্রয়োগ করা হয় না। কিন্তু এই ডিপি পদ্ধতিতে আমরা কিছু মাটি ও রাসায়নিক সার প্রয়োগ করব।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২১, ২০২৩
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa