ঢাকা, সোমবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৭, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২ সফর ১৪৪২

নির্বাচন ও ইসি

কেসিসি নির্বাচনের সর্বশেষ

বাংলানিউজ টিম | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৬০২ ঘণ্টা, মে ১৫, ২০১৮
কেসিসি নির্বাচনের সর্বশেষ একটি ভোটকেন্দ্রের বাইরে চেয়ার-টেবিল ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে/ছবি- মানজারুল ইসলাম

নগরপিতা বেছে নিতে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ করছেন ভোটাররা। এরইমধ্যে সম্ভাব্য দুই নগরপিতাসহ অন্য প্রার্থীরা তাদের ভোট দিয়েছেন। বিভিন্ন কেন্দ্রে ভোটারদের দীর্ঘ লাইনের পাশাপাশি কোথাও ভোটার ছাড়াই ব্যালট বাক্স ভরে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আবার জালভোট দেওয়ার নগরীর ২২ নম্বর ওয়ার্ডের ফাতেমা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ সাময়িক স্থগিত করা হয়।

মঙ্গলবার (১৫ মে) সকাল ৮টায় শুরু হয় ভোটগ্রহণ। তবে কোনো কোনো কেন্দ্রে আগেই ভোটারদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়।

বেলা সাড়ে ১১টায় সরকারি ইকবাল নগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছেন জেলা সহকারী রিটার্নিং অফিসার (জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা, নড়াইল) আনিসুর রহমান।

জালভোট দেওয়ার অভিযোগে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নগরীর ২২ নম্বর ওয়ার্ডের ফাতেমা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বন্ধ ঘোষণা করেন প্রিজাইডিং অফিসার জিয়াউল হক।

সকাল পৌনে ৯টায় কেসিসির ২৪৩ নম্বর ভোটকেন্দ্র মহানগরীর মিয়াপাড়া মেইন রোডের রহিমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দেন বিএনপি মনোনীত নজরুল ইসলাম মঞ্জু। এ সময় তিনি বিভিন্ন কেন্দ্রে সরকার দলীয় প্রার্থীর লোকজন তার পুলিং এজেন্টদের ঢুকতে দিচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন।

এছাড়া কাগজী বাড়ি কয়লাঘাট স্কুল, কলেজিয়াট স্কুল, আবু হানী মাদ্রাসা, সবুরেন্নেছা মাদ্রাসা কেন্দ্রে ভোটারদের ভোট দিতে দেওয়া হচ্ছে না। ট্যাংক রোডে বাড়ি থেকে ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। ওয়ার্ড কার্যালয়ের পাশে এতিমখানা মোড়ের নূরানি মাদ্রাসা কেন্দ্রে ভোটারের হাতে কালি দিয়ে আওয়ামী লীগ সমর্থকরা নিজেরাই সিল মেরে দিচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

সকাল ৮টা ১০ মিনিটে কেসিসির ১৮৩ নম্বর ভোট কেন্দ্র মহানগরীর পাইনিয়ার মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে ভোট দেন।

আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক। পরে ভোটকেন্দ্র দখলে নিয়ে জালভোট দেওয়ার অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন। এছাড়া ফলাফল যাই হোক মেনে নেওয়ার কথাও বলেন তিনি।

কেসিসি নির্বাচনে আর যেসব অভিযোগ পাওয়া গেছে- খালিশপুর ১১ নং ওয়ার্ডের জামিয়াহ ত্বৈয়্যেবাহ নূরানী তালিমুল কোরআন মাদরাসা কেন্দ্র থেকে সহোদর সিরাজকে কুপিয়ে এবং আলমকে মারধর করা হয়। তাদের খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ওয়ার্ডে জামিয়া ইসলামিয়া আশরাফুলউলুম বয়স্ক মাদ্রাসা কেন্দ্র থেকে স্বতন্ত্র কাউন্সিলর প্রার্থী জামান মোল্লা জেলিনের এজেন্ট আসাদ ও হাবিবকে সকালেই কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া হয়।

এসব বিষয়ে কেসিসি নির্বাচনের রিটার্র্নিং কর্মকর্তা মো. ইউনুচ আলী বলেন, কিছু স্থানের ঘটনা আমি শুনেছি। সেখানে যাচ্ছি।

বাংলাদেশ সময়: ১২০০ ঘণ্টা, মে ১৫, ২০১৮
জেডএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa