মৌলভীবাজারে ভুলে ভরা স্মার্টকার্ড!
[x]
[x]
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১ ভাদ্র ১৪২৫, ১৬ আগস্ট ২০১৮
bangla news

মৌলভীবাজারে ভুলে ভরা স্মার্টকার্ড!

মাহমুদ এইচ খান, ডিস্ট্রক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৮-০৯ ৬:৫৩:১৩ পিএম
ভুলে ভরা স্মার্টকার্ড

ভুলে ভরা স্মার্টকার্ড

মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারে উন্নতমানের স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র (স্মার্টকার্ড) বিতরণ শুরু হয়েছে । তবে এসব কার্ডে খোদ জেলার নামের বানানে ভুল রয়েছে। এছাড়া ব্যক্তির নাম, বাবার নাম, জন্ম সনে ব্যাপক ভুলের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মৌলভীবাজার জেলার ইংরেজি বানান ‘Moulvibazar’ এর স্থলে ‘Maulvibazar’ লেখা নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছেন সচেতন মহল। এসব ভুলের কারণে প্রবাসী অধ্যুষিত এই এলাকার মানুষকে দেশ-বিদেশে নানা বিড়ম্বনায় পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলায় মোট ভোটার দুই লাখ ৩৪ হাজার ৩০৭ জন। তার মধ্যে প্রাথমিক পর্যায়ে দুই লাখ ২২ হাজার ৮৫২টি স্মার্টকার্ড এসেছে। বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) সকাল থেকে স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হচ্ছে। বিতরণ করা এসব কার্ডে সবটিতে জেলার বানান ভুল রয়েছে।

ভুলে ভরা স্মার্টকার্ডএদিন বিকেল ৪টায় মৌলভীবাজার পৌরসভা কার্যালয়ে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হচ্ছে। বিতরণ করা এসব কার্ডের জন্মস্থানের (place of birth)-তে মৌলভীবাজারের নাম ইরেজিতে ‘Moulvibazar’ লেখায় বানানে ভুল করে ‘Maulvibazar’ লেখা হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী ‘Moulvibazar’ বানানে ‘M’ এর পর ‘O’ দেওয়ার বিধান থাকলেও সেখানে ‘A’ ব্যবহার করা হয়েছে। যা নিয়ে সচেতন মহল ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল হামিদ মাহবুব বাংলানিউজকে বলেন, ‘এটি একটি প্রবাসী অধ্যুষিত জেলা। এখানকার মানুষ নিয়মিত দেশের বাইরে যাওয়া-আসা করে। কিন্তু জেলার নামের বানান ভুল হওয়াতে তারা সে কাজে বাধাগ্রস্ত বা বিড়ম্বনায় পড়েত হবে। সরকারের বিশাল ব্যায়ের তৈরি এই কার্ডে ভুল থাকা খুবই দুঃখজনক।’

পৌরসভার মেয়র ফজলুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন দায়িত্বজ্ঞানহীন একটা কাজ করেছেন। মৌলভীবাজার শুধু একটি উপজেলার নাম নয়, এটি একটি জেলারও নাম। সদর উপজেলায় এই নামের বানান ভুল মানে সারা জেলার ক্ষেত্রে এমন ভুল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ভুল বানানের এসব কার্ড বিতরণ বন্ধ করে সংশোধন করে বিতরণ করতে হবে। নতুবা মানুষ নানা কাজে ভোগান্তিতে পড়বেন।’

এছাড়া নাগরিকদের যেসব স্মার্টকার্ড দেওয়া হয়েছে তাতে আগের কার্ডে যেসব তথ্য ছিলো স্মার্টকার্ডে তার অনেক জায়গায় ভুল রয়েছে। কারও নিজের নামে, কারো বাবার নাম আবার কারও স্বামীর নাম এবং কি নিজের জন্ম তারিখে ভুল করে বয়স কমিয়ে দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন অনেকেই।

পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা মিন্টু সরকার বাংলানিউজকে বলেন, ‘আমার জন্মসাল হচ্ছে ১৯৭৯ যা আমার আগের এনআইডি কার্ডে সঠিক ছিলো। কিন্তু নতুন স্মার্টকার্ডে আমার বয়স ১০ বছর কমিয়ে জন্মসাল ১৯৮৯ লেখা এসেছে। এখন এই এনআইডি কার্ড নিয়ে আমি বিপাকে পড়েছি। সার্টিফিকেট ও কার্ডে কোনো বয়সের মিল নেই।’

একই এলাকার সন্ধ্যা রানী পাল অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার আগের এনআইডি কার্ডে স্বামীর নাম উল্লেখ ছিলো কিন্তু নতুন কার্ডে এসেছে বাবার নাম। আমার বাবার নাম হবে রতীন্দ্র রুদ্র পাল কিন্তু স্মার্টকার্ডে সে নাম ভুল করে রবীন্দ্র রুদ্র পাল লেখা হয়েছে।’

নামের বানান ভুল হয়েছে এমন অভিযোগ করে কনক রানী পাল বাংলানিউজকে বলেন, ‘আমার মায়ের নাম হচ্ছে স্নেহলতা পাল যা আগের আইডিতে ঠিক ছিলো, কিন্তু নতুন কার্ডে ‘পাল’ বানানে ভুল করে ‘পালা’ লেখা হয়েছে।’

এ বিষয়ে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোখলেছুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, ‘মৌলভীবাজার বানানের ভুলটি আমরা দেখেছি। বিষয়টি নিয়ে নির্বাচন কমিশনের প্রধান কার্যালয়ে যোগাযোগ করেছি। এ ভুলে আঞ্চলিক কার্যালয়ের কোনো দায় নেই।’

অন্যান্য ভুলের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘আগের আইডি কার্ডে যা ছিলো নতুন স্মার্টকার্ডে তাই আসবে। তাদের সেখানে ভুল থাকলে এখানেও ভুল আসবে। তবে আমাদের কাছে প্রমাণসহ আবেদন করলে তা সংশোধন করে দেওয়া হবে।’

বুধবার (৮ আগস্ট) ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) সঙ্গে কথা বলে স্মার্টকার্ড বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। এরপর বৃহস্পতিবার থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে এসব কার্ড বিতরণ করা হচ্ছে। 

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৩ ঘণ্টা, আগস্ট ০৯, ২০১৮
জিপি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

নির্বাচন ও ইসি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa