bangla news

ভারতের হাতেই শিরোপা দেখতে চান শোয়েব আখতার

ওয়ার্ল্ড কাপ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-০৭ ৫:৪১:৫৫ পিএম
শোয়েব আখতার: ছবি-সংগৃহীত

শোয়েব আখতার: ছবি-সংগৃহীত

সেমিফাইনালে যেতে পারেনি পাকিস্তান। ২০১৯ বিশ্বকাপে উপমহাদেশের মশাল জ্বালিয়ে রেখেছে কেবল ভারত। সেই মশাল যেন শেষ পযর্ন্ত নিভে না যায়, এমনটাই চান পাকিস্তানের সাবেক পেসার শোয়েব আখতার।

ভারত-পাকিস্তান ক্রিকেটের দুই সাপে-নেউলে। তবে বৈরিতা ভুলে ‘রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস’ চান, বিশ্বকাপ যেন আবার উপমহাদেশে ফেরত আসে। রোববার (১৪ জুলাই) লন্ডনের লর্ডসে হতে যাওয়া ফাইনালে ভারতের হাতে শিরোপা দেখার ইচ্ছে শোয়েবের।

শনিবার (০৬ জুলাই) ভারত-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের পর নিজের ইউটিউব চ্যানেলে শোয়েব বলেন, ‘নিউজিল্যান্ড চাপ নিতে পারে না। আশা করি, তারা যেন এবার ‘চোক’ না করে। কিন্তু আমি প্রকৃতপক্ষে চাই, বিশ্বকাপ যেন উপমহাদেশে থাকে। আমি ভারতের হাতে শিরোপা দেখতে চাইবো।’

রাউন্ড রবিনে শীর্ষ দল হিসেবে শেষ চারে জায়গা করে নিয়েছে ভারত। আট ম্যাচের মধ্যে কোহলিরা জয় পেয়েছে সাতটিতে। বৃষ্টির কারণে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে একটি ম্যাচে মাঠে নামা হয়নি ভারতের। মঙ্গলবার (০৯ জুলাই) সেই ‘বাতিল’ ম্যাচ পুষিয়ে দিতেই যেন প্রথম সেমিতে মুখোমুখি হচ্ছে দু’দল।

পাকিস্তানের ঘোর শত্রু হলেও ভারতকে সমর্থন দিয়ে নিউজিল্যান্ডের ওপর ঝাল মেটাতে চাইবেন শোয়েব। কারণ কিউইদের হাতেই যে স্বপ্ন পুড়েছে পাকিস্তানের! নিউজিল্যান্ডের সমান ১১ পয়েন্ট পেলেও নেট রান রেটে পিছিয়ে থাকায় ভাঙা মন নিয়ে ঘরে ফিরতে হয়েছে সরফরাজদের।

প্রিয় দলের সেমিতে যেতে না পারার আক্ষেপটা লুকাননি শোয়েব আখতার। সাবেক এই গতি তারকা ব্ল্যাক ক্যাপসদের চেয়ে পাকিস্তানকে এগিয়ে রাখলেন তুলনামূলকভাবে, ‘নিউজিল্যান্ডের চেয়ে পাকিস্তান ভাল খেলেছে। আমি ভেবেছিলাম পাকিস্তান শেষ চারে যেতে পারবে কিন্তু নিষ্ঠুর নেট রান রেটের কারণে তা আর সম্ভব হয়নি।’

বাংলাদেশ সময়: ১৭৪১ ঘণ্টা, জুলাই ০৭, ২০১৯ 
ইউবি/এমএমএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ CWC19
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2019-07-07 17:41:55