bangla news

দর্শকদের ‘দুয়ো’ থেকে রক্ষা করায় কোহলির প্রশংসায় স্মিথ

ওয়ার্ল্ড কাপ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৬-১৮ ২:২২:৪৮ পিএম
ছবি:সংগৃহীত

ছবি:সংগৃহীত

বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারির পর এক বছর ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ ছিলেন স্টিভেন স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নার। তবে ফিরে একেবারে জাতীয় দলের হয়ে বিশ্বকাপে সুযোগ হয়েছে তাদের। কিন্তু আসরের শুরুতেই ইংলিশ সমর্থকরা জানিয়েছিল, মাঠে প্রতারক বলে দুয়ো দেওয়া হবে তাদের।

তবে ভারতের বিপক্ষে অজিদের ম্যাচে বাজে অভিজ্ঞতাই হলো দলটির সাবেক অধিনায়ক স্মিথের। ফিল্ডিং করার সময় এই তারকাকে প্রতারক বলে গালি দেয় ভারতীয় দর্শকরা। তবে এ ব্যাপারটি ভালোভাবে নেননি সেসময় ব্যাটিংয়ে থাকা টিম ইন্ডিয়ার অধিনায়ক বিরাট কোহলি। রক্ষা করেন স্মিথকে। আর বিরাটের এমন আচরণে এবার উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করলেন স্মিথ।


অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৩৬ রানের জয়ের সেই ম্যাচে কোহলির ব্যাটিংয়ের সময় স্মিথকে গ্যালারি থেকে গালি দেওয়া হয়। কিন্তু ব্যাপারটি বুঝতে পেরে এগিয়ে আসেন খোদ কোহলি। তিনি হাতের ইশারায় দর্শকদের বুঝিয়ে দেন এমন ব্যবহার না করতে। সেসময় তিনি স্মিথের সঙ্গে স্পোর্টসম্যানশিপ সরূপ হাতও মেলান।

ভারতীয় দলনেতার স্তুতি গাইতে গিয়ে স্মিথ বলেন, ‘কোহলি সেদিন দারুণ কাজ করেছে। ব্যাপারটি আমার ভালো লেগেছে। আসলে এসব ব্যাপারে এখন আর চিন্তা করি না। কিন্তু কোহলির এমন আচরণে আমি কৃতজ্ঞ।’

সেদিন ম্যাচ শেষে অবশ্য সংবাদ সম্মেলনে এ ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে কোহলি নিজ দেশের দর্শকদের হয়ে ক্ষমা চান, ‘যা হওয়ার তা হয়েছে, সে ফিরে এসেছে, কঠোর পরিশ্রম করছে ও নিজ দেশের হয়ে ভালো খেলছে। এখানে প্রচুর ভারতীয় সমর্থক ছিল। তবে আমি চাইনি তারা বাজে উদাহারণ হয়ে থাকুক। আমার মতে তাকে দুয়ো দেওয়া উচিত হয়নি।’

‘আমার কাছে ব্যাপারটি খারাপ লেগেছে, যদি আমি এমন কিছু করতাম এবং পরে ক্ষমা চেয়ে ও সবকিছু মেনে নিতাম। তবে ফিরে আসার পরও দুয়ো শুনতে হবে, এটা কখনোই পছন্দনীয় নয়।’

বাংলাদেশ সময়: ০২২০ ঘণ্টা, জুন ১৮, ২০১৯
এমএমএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ CWC19
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2019-06-18 14:22:48