bangla news
ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯

১৯৯৬ বিশ্বকাপের লঙ্কান রূপকথা

ওয়ার্ল্ড কাপ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৫-২৬ ৫:৩৬:০০ পিএম
১৯৯৬ বিশ্বকাপের লঙ্কান রূপকথা-ছবি:সংগৃহীত

১৯৯৬ বিশ্বকাপের লঙ্কান রূপকথা-ছবি:সংগৃহীত

৩০ মে পর্দা উঠবে ক্রিকেট বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ লড়াই বিশ্বকাপের ১২তম আসরের। সে উপলক্ষ্যে গত আসরগুলোর সংক্ষিপ্ত পরিচিতি তুলে ধরা হচ্ছে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস বিশ্বকাপের মূল লড়াইয়ের আগে। এবারের আয়োজনে থাকছে ১৯৯৬ ভারত-পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা বিশ্বকাপ।

ভূমিকাপর্ব: ১৯৯৬ বিশ্বকাপে অনবদ্য রূপকথা লিখে শ্রীলঙ্কা। অস্ট্রেলিয়ার মতো বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে ক্রিকেটের নতুন পরাশক্তি হিসেবে উত্থান হয় লঙ্কানদের।

আয়োজক: ১৯৮৭ সালের পর পুনরায় বিশ্বকাপ আয়োজিত হয় এশিয়ার মাটিতে। তবে ১৯৯৬ বিশ্বকাপে যুগ্মভাবে ভারত-পাকিস্তানের পাশাপাশি আয়োজকের খাতায় নাম লেখায় শ্রীলঙ্কা।

অংশগ্রহণকারী দেশ: শুরুতে ছিল আট। তা থেকে দশ। এবার হলো বার। অাইসিসির পূর্ণ সদস্য হিসেবে ৯ দেশের পাশাপাশি সহযোগী সদস্য হিসেবে ১৯৯৬ বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণ করে কেনিয়া, নেদারল্যান্ডস ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। গত আসরে জিম্বাবুয়ে সহযোগী থাকলেও ’৯৬ বিশ্বকাপের আগে তারা পূর্ণ সদস্যপদ লাভ করে আইসিসির।

ভেন্যু: ১৯৯৬ বিশ্বকাপ আয়োজিত হয় ২৬টি ভেন্যুতে। মোট ৩৭ ম্যাচের আসরে ভারত তাদের ১৭ ম্যাচ আয়োজন করে ১৭টি আলাদা ভেন্যুতে। ৬টি ভেন্যুতে পাকিস্তান আয়োজন করে ১৬ ম্যাচ। শ্রীলঙ্কা তাদের ৪ ম্যাচ ৩টি ভেন্যুতে আয়োজন করে।

গ্রুপ পর্ব: ১৯৯২ বিশ্বকাপে কোনো গ্রুপ না থাকলেও ১৯৯৬ বিশ্বকাপ দলগুলোকে পুনরায় দুই গ্রুপে ভাগ করা হয়। ‘এ’ গ্রুপে ছিল স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা, ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, জিম্বাবুয়ে ও কেনিয়া। স্বাগতিক পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ড, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও নেদারল্যান্ডস ছিল ‘বি’ গ্রুপে।

মূল লড়াই শুরু: ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্দা ওঠে ষষ্ঠ বিশ্বকাপ আসরের। উদ্বোধনী ম্যাচে গত আসরের ফাইনালিস্ট ইংল্যান্ডকে হারিয়ে অভিযান শুরু করে নিউজিল্যান্ড। উল্লেখ্য, গ্রুপ পর্বে নিরাপত্তার অজুহাতে শ্রীলঙ্কার মাটিতে খেলতে যায়নি অস্ট্রেলিয়া ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। প্রথমবারের মতো চালু হওয়া কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে গ্রুপের সেরা আট দল। সেমিফাইনালে ভারতকে তাদের মাটিতে হারিয়ে প্রথমবারের মতো ফাইনালে ওঠে শ্রীলঙ্কা। আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে রোমাঞ্চকর জয় পায় অস্ট্রেলিয়া।

শিরোপা উৎসব: একদিকে স্টিভ ওয়াহ, শেন ওয়ার্ন, মাইকেল বেভান, মার্ক টেলর, রিকি পন্টিংদের মতো তারকারা। অন্যদিকে সদ্য নিজেদের জাত চেনানো সনাথ জয়াসুরিয়া, অরবিন্দ ডি সিলভা, অর্জুনা রানাতুঙ্গা, মুত্তিয়া মুরালিধরন, চামিন্দা ভাস। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে শেষ পযর্ন্ত ৭ উইকেটে সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে প্রথম বিশ্ব জয়ের আনন্দে মেতে উঠে কোচ ডেভ হোয়াটমোরের শিষ্যরা। আন্ডরডগ থেকে রাজা বনে যায় শ্রীলঙ্কা। ফাইনালে সেঞ্চুরি (১০৭ রান) ও ৪২ রানে তিন উইকেট নিয়ে অজিদের একাই হারিয়ে দেন ডি সিলভা।

টুকিটাকি: ৯ মার্চ গ্রুপ পর্বে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের পর ক্যারিয়ার শেষ করেন পাকিস্তানি কিংবদন্তি জাভেদ মিঁয়াদাদ। ক্রিকেটের নতুন ব্যাকরণ লিখে শ্রীলঙ্কা। ওয়ানডে ক্রিকেটে প্রথম ১৫ ওভারে গড়ে ৫০-৬০ তুলে নেওয়াটা মুখ্য ছিল। সেখানে প্রতি ম্যাচে ওপেনিংয়ে জয়াসুরিয়া-কালুভিতারানা জুটি বোলারদের তুলোধুনো করে রান তোলেন গড়ে ১০০-এর ওপরে।

রেকর্ড কর্নার: তখন পযর্ন্ত ইংল্যান্ডের দলীয় ৩৬৩/৭ ছিল ওয়ানডে ক্রিকেটর সর্বোচ্চ সংগ্রহ। ইংলিশরা রেকর্ডটি গড়েছিল ১৯৯২ সালে, পাকিস্তানের বিপক্ষে। ১৯৯৬ বিশ্বকাপে নতুন রেকর্ড গড়ে শ্রীলঙ্কা। কেনিয়ার বিপক্ষে তারা ৫ উইকেটে করে ৩৯৮ রান। অস্ট্রেলিয়া-দক্ষিণ আফ্রিকার এক মহাকাব্যিক ম্যাচের আগে যা টিকেছিল ১২ মার্চ ২০০৬ সাল পযর্ন্ত। এছাড়া বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ সংগ্রহ ছিল শ্রীলঙ্কার। ২০০৭ বিশ্বকাপে বারমুডার বিপক্ষে ৪১৭ রান করে বিশ্বকাপে দলীয় সংগ্রহের রেকর্ডটি নিজেদের করে নেয় ভারত।

পরিসংখ্যান: ১৯৯৬ বিশ্বকাপে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান ও উইকেট শিকার করেন দুই ভারতীয়। ৫২৩ রান করেন শচীন টেন্ডুলকার। আর ১৫ উইকেট নেন অনিল কুম্বলে। অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ম্যান অব দ্য সিরিজ হন জয়াসুরিয়া।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩০ ঘন্টা, মে ২৬,২০১৯
ইউবি/এমএমএস

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2019-05-26 17:36:00