ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ আষাঢ় ১৪২৬, ২০ জুন ২০১৯
bangla news
বিশ্বকাপ ২০১৯

ফেভারিট হয়েই বিশ্বকাপে যাচ্ছে বাংলাদেশ

ওয়ার্ল্ড কাপ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৫-২২ ৮:১৯:০৪ পিএম
বাংলাদেশ ক্রিকেট দল-সংগৃহীত

বাংলাদেশ ক্রিকেট দল-সংগৃহীত

৩০ মে পর্দা উঠবে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস বিশ্বকাপের। তার আগে মূল মঞ্চের প্রতিটি দেশ নিয়ে ধারাবাহিক এই আয়োজনে এবারের পর্ব সাজানো হয়েছে ক্রিকেটের নতুন পরাশক্তি বাংলাদেশকে নিয়ে। 

ভূমিকাপর্ব: বাংলাদেশের ক্রিকেটকে নতুনভাবে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার কিছু নেই। ছোট বালক যেভাবে ছোট ছোট পা ফেলে বড় হয়ে ওঠে, বাংলাদেশেরও ক্রিকেট অবিকল এখন বড়দের কাতারে। বড়দের কাতার মানে পরাশক্তির পথে। অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকাকে আমরা যেমন পরাশক্তি বলে থাকি। ঠিক তাদেরই পাশে স্বমহিমায় নিজেদের জায়গা করে নিচ্ছে টাইগাররা।

ইতিহাস: স্বাধীনতার আগ থেকে বাংলাদেশে ব্যাটে-বলের লড়াইয়ের প্রচলন ছিল। অবিভক্ত বাংলায় ক্রিকেট আসে ইংরেজদের হাত ধরে। অবশ্য অানুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের ক্রিকেট
যাত্রা শুরু ১৯৭২ সালে। ক্রিকেটকে উন্নতির লক্ষ্যে ওই বছর গঠিত হয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

১৯৭৭ সালে বাংলাদেশ আইসিসির সহকারী সদস্যপদ লাভ করে। ২০০০ সালে লাভ করে পূর্ণ সদস্যপদ। একই বছর টাইগারদেরে টেস্ট অভিষেক হয় ভারতের বিপক্ষে।

বাংলাদেশের প্রথম ওয়ানডে অভিষেক হয় পাকিস্তানের বিপক্ষে, ৩১ মার্চ ১৯৮৬ সালে। টি-টোয়েন্টি অভিষেক হয় ২০০৬ সালে, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে।

র‌্যাংকিং: ২০১৯ বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে ৭ম স্থানে থেকে বিশ্বকাপ খেলবে বাংলাদেশ। সবশেষ প্রকাশিত আইসিসি র‌্যাংকিংয়ে টেস্টে টাইগারদের অবস্থান ৯তম। টি-টোয়েন্টিতে আছে দশে।

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ: ১৯৯৭ সালে মালেয়শিয়ায় আইসিসি ট্রফির ফাইনালে কেনিয়াকে হারিয়ে বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে বাংলাদেশ। ১৯৯৯ সালে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য মাইলফলক বটে। নিজেদের প্রথম বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিলেও পাকিস্থানকে হারিয়ে ক্রিকেট বিশ্বকে চমকে দেয় অাকরাম খান-খালেদ মাহমুদ সুজনরা। 

সেই শুরু। এরপর থেকে প্রতিটি বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেছে বাংলাদেশ। আসরে টাইগারদের সর্বোচ্চ দৌড় ২০১৫ বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলা।

এখন পযর্ন্ত বিশ্বকাপে ৩৩ ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। জয় পেয়েছে ১১ ম্যাচে। হেরেছে ২০ ম্যাচ। দুই ম্যাচে ফল হয়নি।

২০১৯ বিশ্বকাপ স্কোয়াড: মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, লিটন দাস, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোহাম্মদ মিঠুন, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, রুবেল হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান, মেহেদি হাসান মিরাজ, আবু জায়েদ রাহি, সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। কোচ- স্টিভ রোডস (অস্ট্রেলিয়া)।

গেম প্ল্যান: মারমুখী ব্যাটিং, ঝড় তোলা পেস এবং লেগ স্পিন। অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ইংল্যান্ডের মতো পরাশক্তির দলগুলোর প্রধান শক্তি এই তিন। তবে সেই জায়গায় বাংলাদেশ বৈচিত্র্য আনবে নিঃসন্দেহে। ৩০০ রানের কম নিলেও টাইগাররা পেস ও স্পিনারদের নিয়ে লড়াই করবে সমানতালে। তিন টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান যদি ২৫ বা ৪০ ওভার পযর্ন্ত টিকে থাকতে পারে তবে স্কোরটা বিশাল হবে। বাংলাদেশের বোলাররা যেকোন সময় ম্যাচ ঘুরিয়ে দিতে সক্ষম। প্রতিপক্ষকে ২৫০-২৮০ রানের মধ্যে বন্দী করার স্পৃহা নিয়ে মাঠে নামবে তারা। 

স্পটলাইট:  মাশরাফি, সাকিব, তামিম, মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ । বাংলাদেশের পঞ্চপাণ্ডব। এই পাঁচ স্তম্ভের ওপর ভরসা টাইগারদের। ম্যাশের মতো অধিনায়ক ও সাকিবের মতো বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার আছে টাইগাদের দলে। আছে তামিমের মতো ড্যাশিং ব্যাটসম্যান। মুশি ও রিয়াদ দলের প্রয়োজনে যেকোন মুহুর্তে ম্যাচ হাতের মুঠোয় নিয়ে আসতে পারে। এছাড়া আছে কাটার মাস্টার মুস্তাফিজ স্পিনার মিরাজ। 

প্রস্তুতি: ইংল্যান্ড ও ওয়েলস বিশ্বকাপের আগে দুর্দান্ত সময় কাটিয়েছে মাশরাফিদের। প্রথমবারের মতো কোন আন্তর্জাতিক সিরিজ জিতেছে তারা। আয়ারল্যান্ডের মাটিতে ত্রি-দেশীয় সিরিজে একটি ম্যাচও হারেনি। ইংলিশ কন্ডিশনটা অবশ্য নতুন নয় টাইগারদের জন্য। ইংল্যান্ডের মাটিতেই বিশ্বকাপে প্রথম জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ।

২০১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ: রবিন রাউন্ডের আসরে বাংলাদেশ প্রথম ম্যাচ খেলবে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে, ৫ জুন, দ্য ওভালে। শেষ ম্যাচ পাকিস্তানের বিপক্ষে। ম্যাচটি হবে ৫ জুলাই, লর্ডসে।

বাংলাদেশ সময়: ২০১৮ ঘন্টা, মে ২২, ২০১৯
ইউবি/এমএমএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-05-22 20:19:04