Alexa
ঢাকা, শুক্রবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, ২৬ মে ২০১৭
bangla news

‘রিজেন্টের উদ্যোগ মাইলফলক হয়ে থাকবে’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৩-১৫ ৪:৪৮:৪০ পিএম
ওসমানী বিমানবন্দরে রিজেন্ট এয়ারওয়েজের সাথে কোডশেয়ার চুক্তির মাধ্যমে ফ্লাই দুবাইয়ের ফ্লাইট পরিচালনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন; ছবি- আবু বকর

ওসমানী বিমানবন্দরে রিজেন্ট এয়ারওয়েজের সাথে কোডশেয়ার চুক্তির মাধ্যমে ফ্লাই দুবাইয়ের ফ্লাইট পরিচালনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন; ছবি- আবু বকর

ওসমানী বিমানবন্দর থেকে: কোড শেয়ারের মাধ্যমে ফ্লাই দুবাই এর সাথে যৌথভাবে সিলেট-দুবাই ফ্লাইট শুরু করার রিজেন্ট এর উদ্যোগ এভিয়েশন খাতে মাইলফলক হয়ে থাকবে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন।

বুধবার (মার্চ ১৫) বিকেলে সিলেটের ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রিজেন্ট এয়ারওয়েজের সাথে কোডশেয়ার চুক্তির মাধ্যমে দুবাই-সিলেট রুটে ফ্লাই দুবাইয়ের ফ্লাইট পরিচালনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, ওসমানী বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রূপ দেয়ার জন্য সরকার নানা উদ্যোগ নিচ্ছে। ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের রানওয়ের উন্নয়ন করা হবে। সিলেটবাসীর আকাঙ্ক্ষা পূরণ হবে বলে আশা করছি। রিজেন্ট এয়ারওয়েজ এর উদ্যোগ এভিয়েশনের ইতিহাসে একটি মাইলফলক হয়ে থাকবে। এ বিষয়টি রিজেন্টের জন্য সহজ ছিলো না। ফ্লাই দুবাই এর পরে এমিরেটসসহ বেশ কয়েকটি এয়ারলাইন্স কোড শেয়ারের মাধ্যমে সিলেট থেকে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পরিচালনায় আগ্রহ প্রকাশ করছে। কিন্তু এই মুহূর্তে তা সম্ভব হচ্ছে না। কারণ ওসমানী বিমানবন্দরের সেই সক্ষমতা নেই। আমরা চেষ্টা করবো অতি দ্রুত ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের সক্ষমতা বাড়িয়ে এখানে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পরিচালনার সংখ্যা বাড়ানোর।

এ সময় বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এহসানুল গনি বলেন, ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরটি অবকাঠামোর দিক থেকে অভ্যন্তরীণ বিমানবন্দরের মতোই। তবে এটিকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হিসেবে ঘোষণা করা হয়। তখন থেকেই বর্তমান সরকার এর উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। আমরা আশা করছি আগামী ২ বছর থেকে ৩ বছরের মধ্যে এটি পুরোপুরি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পরিণত হবে।

এ সময় রিজেন্ট এয়ারওয়েজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা লে. জেনারেল (অব.) এম ফজলে আকবর বলেন, কোড শেয়ারে এই প্রথম বাংলাদেশের একটি এয়ারলাইন্স ফ্লাইট পরিচালনা করছে। এটি এভিয়েশনের ইতিহাসে ভূমিকা রাখবে। আমরা মানের সাথে কোনো আপোস করিনি। তাই নতুন নতুন উদ্যোগ নিতে পারছি। যাত্রী সেবায় কিভাবে এগিয়ে যাওয়া যায় সে বিষয়ে কাজ করছি।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের প্রাক্তন স্থায়ী প্রতিনিধি ড. এ কে এম আব্দুল মোমেন, রিজেন্ট এয়ারওয়েজের চেয়ারম্যান ইয়াসিন আলী, রিজেন্ট এয়ারওয়েজের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক সালমান হাবিব, স্কাই এভিয়েশনের সার্ভিসের চেয়ারম্যান সাইফুল হক।

২০১০ সাল থেকে যাত্রা করা দেশের শীর্ষস্থানীয় বেসরকারি এয়ারলাইন্স রিজেন্ট এয়ারওয়েজ অভ্যন্তরীণ রুট ছাড়াও ৬টি আন্তর্জাতিক রুটে চলাচল করছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৪ ঘণ্টা, মার্চ ১৫, ২০১৭
ইউএম/আরআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

You May Like..