[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২০ মে ২০১৮

bangla news

আগে জাতীয় দলের কোচ, পরে অনূর্ধ্ব-১৯

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৩-১২ ৭:২১:১১ পিএম
চলমান নিদাহাস ট্রফিতে বাংলাদেশ দলের অন্তবর্তীকালীন হেড কোচ কোর্টনি ওয়ালশের (বাঁয়ে) সঙ্গে আকরাম খান (ডানে)-ছবি:বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম (ফাইল ফটো)

চলমান নিদাহাস ট্রফিতে বাংলাদেশ দলের অন্তবর্তীকালীন হেড কোচ কোর্টনি ওয়ালশের (বাঁয়ে) সঙ্গে আকরাম খান (ডানে)-ছবি:বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম (ফাইল ফটো)

ঢাকা: গেল বছরের অক্টোবরে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের মাঝামাঝি হাথুরুসিংহে টাইগারদের হেড কোচের দায়িত্ব ছাড়ার পর থেকে আজ অব্দি সে জায়গায় নতুন কোচের নিয়োগ দিতে পারেনি বিসিবি। ফলে জায়গাটি শূন্য পড়ে আছে। জাতীয় দলের পাশাপাশি হেড কোচ নেই অনূর্ধ্ব-১৯ দলেরও।

সর্বশেষ অনূর্ধ্ব-১৯ দলে ডেমিয়েন রাইট ছিলেন। বিশ্বকাপ পরযন্ত তার টাইগার যুবাদের সাথে চুক্তি থাকায় তিনি দেশে ফিরে গেছেন।

এমতাবস্থায় জাতীয় দল ও অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কোচ খুঁজতে শুরু করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থাটি। কোচের দ্রুত নিয়োগের ব্যাপারটিও তাদের মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

তবে বাংলাদেশ ক্রিকেটের পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান জানালেন, অনূর্ধ্ব-১৯ ও হাই পারফরম্যান্স দলের আগে জাতীয় দলের কোচের নিয়োগের বিষয়টিই তারা প্রাধান্য দিচ্ছেন। ‘জাতীয় দলের কোচের ব্যাপারে মাননীয় বোর্ড প্রেসিডেন্ট ও সিইও চেষ্টা করে যাচ্ছেন। একটু কষ্টের ব্যাপার। যেহেতু নামিদামি কোচ সবাই ইনভলব আছে বিশেষ করে শর্ট ভার্সন ম্যাচগুলায় ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সাথে। অনেক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তবে গতকালই বলেছেন হয়তোবা ১০-১৫ দিনের মধ্যে একটা কনফার্ম হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্লাস আমাদের একাডেমি, অনূর্ধ্ব-১৯ এর জন্যও আমরা চিন্তা করছি। তবে প্রথমমতো জাতীয় দলের হেড কোচটা খুবই দরকার। সেটার জন্য অনেক তারনা করছি। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের জন্য আমরা ট্রেনার ও কোচ খোঁজার চেষ্টা করছি। জাতীয় দলের কোচ যদি ঠিক করে ফেলি তার পরপরই অনূর্ধ্ব-১৯ ট্রেনার এবং কোচ ঠিক করে ফেলবো (হেড কোচ)।’

সোমবার (১২ মার্চ) বিসিবিতে নিজ কার্যালয়ে আকরাম একথা বলেন।

টাইগারদের কোচের খোঁজে বিসিবি উঠে পড়ে লেগেছে সত্যিই, কিন্তু আকরামের কথায় এটা স্পষ্ট যে বড় নাম বা হাই প্রোফাইলের কোচ তারা নিয়োগ দিতে পারছেন না, ‘এখন বড় নাম পাওয়াটা কঠিন। কাউন্টিতে বা অনেক টেস্ট প্লেয়িং কান্ট্রিতে যারা আছেন, অ্যাসিস্ট্যান্ট কোচ হিসেবে আছেন এই ধরনের ভাল কাউকে পেলে নেয়ার চেষ্টা করবো।’

অথচ সেদিন কলম্বোতে বিসিবি সভাপতি বললেন,  নামি দামি কাউকেই এপ্রিলের শুরুতেই নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। ধরেই নিচ্ছি এটা তাদের সমন্বয়ের সমস্যা। সেটা আমাদের বিবেচ্য বিষয় নয়। আমাদের বিবেচ্য বিষয় অভিভাবকহীন টাইগারদের একজন যোগ্য অভিভাবকের হাতে তুলে দেয়া। তিনি সে যেই হোন না কেন। আর যাকে পাওয়া যাবে অবশ্যই ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত। সম্ভব হলে আরও লম্বা সময়ের জন্য।
আকরামের কথায় সেই আশ্বাসও মিললো  ‘হ্যাঁ, এটাতো ওর সাথে ওভাবেই কথা হচ্ছে। লংটাইমের জন্য অবশ্যই।’

সে না হয় গেল। কিন্তু অনূর্ধ্ব-১৯ দল কে কোন অভিভাবকের হাতে তুলে দেয়া হচ্ছে? তিনি কী দেশি না বিদেশি? আকরামের কথায় তেমন কোন ইঙ্গিত মিললো না। মিললো বিসিবি’র আরেকটি সূত্রের মাধ্যমে। আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহেই নাকি এক দেশি কোচ যুবা দলে আফিফদের দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন!

বাংলাদেশ সময়: ১৯১৫ ঘণ্টা, ১২ মার্চ, ২০১৮
এইচএল/এমএমএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa