[x]
[x]
ঢাকা, সোমবার, ২ মাঘ ১৪২৪, ১৫ জানুয়ারি ২০১৮

bangla news

ব্রাজিলকে বিশ্বকাপ জেতাতে প্রস্তুত নেইমার

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০১-০৫ ৫:১৮:১৪ পিএম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ঘরের মাঠে নেইমারের ২০১৪ বিশ্বকাপ অভিজ্ঞতা সুখকর ছিল না। দুঃস্বপ্নময় বললেও ভুল হবে না। সময় বদলে গেছে। দরজায় কড়া নাড়ছে আরেকটি ওয়ার্ল্ডকাপ। ব্রাজিলিয়ান অধিনায়কের বিশ্বাস, আগের চেয়ে এখন অনেক বেশি পরিণত তিনি এবং সেলেকাওদের কাঙ্ক্ষিত ষষ্ঠ বিশ্বকাপ ট্রফি জেতাতে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে প্রস্তুত।

এক সাক্ষাৎকারে বিশ্বকাপ স্বপ্ন নিয়ে নিজের অভিমত তুলে ধরেছেন ২৫ বছর বয়সী নেইমার, ‘পার্থক্য (চার বছর আগের অভিজ্ঞতার সঙ্গে) বোঝানোটা কঠিন, কিন্তু আমি মনে করি এখন আমি আরও অভিজ্ঞ, অধিক বিচক্ষণ, আরও বেশি পরিণত, অধিক কাসকুডো (কঠিন অর্থে অভিব্যক্তি বোঝাতে, এই শব্দটি ব্রাজিলে প্রচলিত)।’

‘এসব বলছি কারণ আমার অনেক অভিজ্ঞতা হয়েছে, একটি বিশ্বকাপে অংশ নিয়েছিলাম যেখানে আমরা হেরেছি। আমার বিশ্বাস পরবর্তীটার জন্য আরও বেশি করে প্রস্তুত থাকতে পারবো। কারণ আমি জানি বিশ্বকাপ কেমন হতে পারে, ভালোভাবে প্রস্তুত থাকবো। তাই ২০১৮ সালের নেইমার জুনিয়র ২০১৪ সালের নেইমার জুনিয়রের চেয়ে ভালো।’-যোগ করেন নেইমার।

ফুটবল শ্রেষ্ঠত্বের গত আসরে পাঁচ ম্যাচে চারটি গোল করেছিলেন নেইমার। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে ইনজুরির শিকার হয়ে ছিটকে পড়েন পেলের উত্তরসূরি। দলের সেরা তারকার অনুপস্থিতিতে সেমিফাইনালে জার্মানির কাছে ৭-১ গোলে হারের হতাশায় অশ্রুসিক্ত হয়ে মাঠ ছাড়ে সেলেকাওরা।

বাছাইপর্ব থেকে সবার আগে চূড়ান্ত পর্বের টিকিট কাটে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ২০১৮ ওয়ার্ল্ডকাপ মিশনে ফেভারিটসহ কারা বিস্ময় উপহার দিতে পারে সেটিও তুলে ধরেছেন নেইমার, ‘আমি মনে করি বরাবরের মতো সুপরিচিত সেরা দলগুলো ফেভারিট। তাদের মধ্যে অন্যতম ব্রাজিল, জার্মানি, ফ্রান্স, স্পেন, আর্জেন্টিনা। যেকোনো চ্যাম্পিয়নশিপে এই টিমগুলো হাইলাইট থাকে। সারপ্রাইজের দিক থেকে বেলজিয়ামের চমৎকার একটি স্কোয়াড রয়েছে এবং তারা এই বিশ্বকাপে চমক দেখাতে পারে। সালাহ (লিভারপুলের মিশরীয় ফরোয়ার্ড) একজন অসাধারণ খেলোয়াড় যে বিশ্বকাপ আসরে পার্থক্য গড়ে দিতে পারেন।’

বিশ্বকাপ যে সহজ হবে না তা ভালো করেই জানেন ব্রাজিলের ফুটবল ইতিহাসে প্রথম অলিম্পিক গোল্ড (২০১৬) জয়ের নায়ক নেইমার। অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে সেটি নিয়েও মন্তব্য করেছেন গত বছর বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে পাড়ি জমানো এই আইকনিক ফরোয়ার্ড, ‘এখানে কোনো সহজ সিলেকশন নেই। তাই আমি মনে করি প্রতিটি ম্যাচই খুব কঠিন হবে, এ কারণেই এটিকে ওয়ার্ল্ডকাপ বলা হয়, তাই নয় কি? বিশ্বের সেরা বাছাইকৃত দলগুলো খেলে এখানে এবং প্রতিটি ম্যাচই কঠিন।’

বাংলাদেশ সময়: ১৭১৮ ঘণ্টা, ৫ জানুয়ারি, ২০১৮
এমআরএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa