[x]
[x]
ঢাকা, সোমবার, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১১ ডিসেম্বর ২০১৭

bangla news

মিনি মার্কেটেও বাঙালিদের বড় সম্ভাবনা

শাহজাহান মোল্লা, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-১২-০৭ ৭:০০:১৫ এএম
মিনি মার্কেটে বিকিকিনি চলছে। ছবি: আসিফ আজিজ

মিনি মার্কেটে বিকিকিনি চলছে। ছবি: আসিফ আজিজ

মালাক্কা, মালয়েশিয়া থেকে: দেশে ব্যবসা করতে হলে কমবেশি ঝামেলায় পড়তে হয় বাঙালিদের। চাঁদাবাজ থেকে শুরু করে নানা হয়রানির শিকার হতে হয়। যে কারণে অনেকেই ব্যবসা গুটিয়ে পাড়ি জমান বিদেশে। কিন্তু যার কপালে রয়েছে ব্যবসা সে শত চেষ্টাতেও তা বাদ দিতে পারেন না।

যারা ভেজালমুক্ত ব্যবসা করতে চান তাদের জন্য নিরাপদ স্থান হতে পারে মালয়েশিয়ার মালাক্কা প্রদেশ। এখানে নেই কোনো চাঁদাবাজের ভয়, নেই বাকী নিয়ে ফাঁকি দেওয়ার দুশ্চিন্তা। শুধু  মালাক্কা প্রদেশ নয়, পুরো মালয়েশিয়াতে রয়েছে ঝামেলামুক্ত ব্যবসা করার সুযোগ। তবে অন্যান্য প্রদেশের তুলনায় মালাক্কায় বাংলাদেশি প্রবাসীদের সম্ভাবনার দুয়ার খুলছে "মিনি মার্কেট"।

মিনি মার্কেটে সাজিয়ে রাখা দ্রব্য সামগ্রী। ছবি: আসিফ আজিজমালাক্কায় প্রায় শতাধিক মিনি মার্কেট রয়েছে, যার ৮০ শতাংশের মালিক বাঙালি। এরা সবাই নিজ নিজ মার্কেটে সফল। মাত্র দুই লাখ রিঙ্গিত বা ৪০ লাখ টাকা হলেই উপযুক্ত জায়গা দেখে মিনি মার্কেট দেওয়া যেতে পারে। তবে অবশ্যই মালয়েশিয়ার পার্টনার রাখতে হবে। আর যদি মালয়েশিয়ান কোন মেয়েকে বিয়ে করা যায়, তাহলে ব্যবসার লাইসেন্স পেতে আর ঝক্কি ঝামেলা সামলাতে হবে না।

মালাক্কায় কয়েকজন সফল ব্যবসায়ীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায় সেখানে কোনো চাঁদাবাজী নেই, নেই কোন চুরি বাটপারি। এমনকি কারো চোখ রাঙানিও দেখতে হয় না। কাস্টমার নিজে পছন্দমত জিনিস ব্যাগ ভর্তি করে কাউন্টারে দাম দিয়ে চলে যাচ্ছেন। কেউ একটা কমও দিচ্ছে না আবার কেউ উচ্চ দামও নিচ্ছেন না।

মিনি মার্কেটে কাঁচা সবজি। ছবি: আসিফ আজিজমালাক্কার কুরবাং শিল্পাঞ্চলে লক্ষ্মীপুরের আলী বিন বাশার (পাচার মিনি) মিনি মার্কেট দিয়েছেন প্রায় ৫ বছর। মিনি মার্কেট থেকে এখন সবজির খেত করেছেন কয়েক একর জায়গা জুড়ে।

সব খরচ বাদ দিয়ে প্রতি মাসে প্রায় ১০ হাজার রিঙ্গিত আয় হয় এই দোকান থেকেই। এমন কোন নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস নেই যা এই মিনি মার্কেটে পাওয়া যায় না। প্রতিদিন সকাল ৭টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত দোকান খোলা থাকে।

মিনি মার্কেটে সাজিয়ে রাখা হালকা খাবার। ছবি: আসিফ আজিজআলী বিন বাশার বলেন, ব্যবসা করতে হলে ভা‌গ্যের দরকার আছে। ভা‌গ্যে ভাল থাকলে অল্প দিনেই সফলতার মুখ দেখা যায়। কেননা এখানে কোনো চুরি বাটপারি নেই। প্র‌তি‌টি জিনিসে ১০ শতাংশ লাভ থাকে।

আগে মালয়েশিয়াতে মিনি মার্কেটের ব্যবসা ছিল চীনাদের দখলে। সততা আর কর্মদক্ষতায় এখন বেশিরভাগ মিনি মার্কেটের মালিক বাঙালি। এদের একজন দীন ইসলাম। এরা সবাই আগামীতে মিনি মার্কেট ব্যবসাতেই সফলতার সম্ভাবনা দেখছেন।

শাহজাহান মোল্লাশাহজাহান মোল্লা, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

বাংলাদেশ সময়: ০৬৫৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৭
এসএম/আরএ

** চোখ আটকে যায় ১২৫ বছরের আবু বকর মসজিদে

...

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Alexa