[x]
[x]
ঢাকা, সোমবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২১ মে ২০১৮

bangla news

ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন অ্যাওয়ার্ড পেলেন সায়মা ওয়াজেদ

প্রবাস ডেস্ক  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৭-২৬ ৩:৪২:০৩ পিএম
ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

নিউইয়র্ক: অটিজম আক্রান্তদের কল্যাণে নিরবচ্ছিন্ন ও উদ্ভাবনীমূলক কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক অ্যাডভাইজরি প্যানেলের বিশেষজ্ঞ ও অটিজম বিশেষজ্ঞ সায়মা ওয়াজেদ হোসেনকে ‘ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন অ্যাওয়ার্ডে’ ভূষিত করা হয়েছে। 

স্থানীয় সময় বুধবার (২৫ জুল‍াই) প্রিন্সটন ক্লাব অব নিউইয়র্কে আয়োজিত শিশু অটিজম কেন্দ্র ও স্কুল ‘সিমা কলাইনু’ এবং এর সহযোগী প্রতিষ্ঠান ‘আই কেয়ার ফর অটিজম’ এর বার্ষিক প্রাতঃরাশ অনুষ্ঠানে এ অ্যাওয়ার্ড দেওয়‍া হয়। 

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের অটিজম বিষয়ক জাতীয় উপদেষ্টা কমিটির সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ হোসেনের পক্ষে অ্যাওয়ার্ডটি গ্রহণ করেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন।

‘সিমা কলাইনু’ নিউইয়র্কের প্রথম শিশু অটিজম কেন্দ্র ও স্কুল, যা ১৯৯৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠানটি এ পর্যন্ত জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে নিউইয়র্কের ৫টি বোরোর সব সম্প্রদায়ের অটিজম স্পেকট্রাম ডিসঅর্ডারে আক্রান্ত সহস্রাধিক শিশুকে তাদের অটিজম সেন্টার, স্কুল ও হোম সার্ভিসের সেবা দিয়ে আসছে।      
 
বাংলাদেশে অটিজম বিষয়টি সামনের সারিতে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক কার্যালয় ২০১৪ সালে সায়মাকে ‘এক্সিলেন্স ইন পাবলিক হেলথ অ্যাওয়ার্ডে’ ভূষিত করে। 

অ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত মোমেন সায়মা ওয়াজেদ হোসেনের পাঠানো একটি সংক্ষিপ্ত বার্তা পাঠ করেন।

বার্তায় সায়মা বলেন, অটিজম সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান সিমা কলাইনু’র এই স্বীকৃতির জন্য আমি সম্মানিত বোধ করছি। অটিজম সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান সিমা কলাইনু’র মতো বাংলাদেশ ও এশিয়া অঞ্চলে এ সংক্রান্ত পেশার মানুষের জন্য পরিকল্পিত এবং ব্যাপকভিত্তিক প্রশিক্ষণের সুযোগ সৃষ্টিতে আমি কাজ করছি। 

‘অটিজম কোনো ধর্মীয়, সাংস্কৃতিক ও আর্থ-সামাজিক সীমারেখার মধ্যে আবদ্ধ নয়। এ কারণেই এর জন্য বিশেষ ধরনের সেবা ও কর্মসূচির প্রয়োজন রয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার একজন শুভেচ্ছা দূত হিসেবে অটিজম নেটওয়ার্ক নিয়ে আমি সকলের সঙ্গে কাজ করতে চাই।’  
     
এ সময় সায়মা ওয়াজেদ হোসেন ছাড়াও নিউইয়র্ক সিটির কাউন্সিল মেম্বার ব্রাড ল্যান্ডার, কাউন্সিল মেম্বার মার্ক লেভিনি, নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিলের স্পিকার মেলিচ্ছা মার্ক-ভিভারিতোর কমিউনিটি লিয়াজোঁ কার্যালয়ের কর্মী মিজ জেনি বার্গার ও কলবি হেয়ার্ড নামে নয় বছর বয়সী একটি অটিস্টিক বালককেও অ্যাওয়ার্ড  দেওয়া হয়। 

অনুষ্ঠানে অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্তদের অটিস্টিক শিশুদের আঁকা চিত্রকর্ম অ্যাওয়ার্ড হিসেবে দেওয়া হয়েছে। 

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩৩ ঘণ্টা, জুলাই ২৬, ২০১৭
পিআর/এমএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

প্রবাসে বাংলাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa