[x]
[x]
ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ আষাঢ় ১৪২৫, ১৯ জুন ২০১৮

bangla news

মেরিন শিল্পে চাকরিপ্রার্থীদের জন্য ‘এমপ্লয়মেন্ট হ্যান্ডবুক’

1307 |
আপডেট: ২০১৫-০৮-১২ ৯:৩৩:০০ এএম

মেরিন শিল্পে একটি গুরুত্বপূর্ণ দেশ সিঙ্গাপুর। সিঙ্গাপুরের এই শিল্পে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি থেকে পাস করা গ্রাজুয়েটরা।

মেরিন শিল্পে একটি গুরুত্বপূর্ণ দেশ সিঙ্গাপুর। সিঙ্গাপুরের এই শিল্পে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি থেকে পাস করা গ্রাজুয়েটরা।

সিঙ্গাপুরের মেরিন শিল্পে বাংলাদেশিদের ব্র্যান্ডকে আরও সুন্দরভাবে তুলে ধরতে ‘এমপ্লয়েমেন্ট হ্যান্ডবুক’ তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে বিআইএমটি অ্যালুমনাই অ্যাসোসিয়েশন, সিঙ্গাপুর। 

হ্যান্ডবুকের প্রিন্ট ও অনলাইন সংস্করণ, এই দুই মাধ্যমেই তথ্যের বিশাল বিচরণ থাকছে। এই বইয়ের কল্যাণে মেরিন শিল্পে বাংলাদেশি চাকরিপ্রার্থীদের জন্য ‘চাকরি খোঁজা’ আরও সহজ হবে।

চাকরিদাতারাও সহজেই বাংলাদেশিদের বিভিন্ন তথ্য পাবে এখানে। মেরিন শিল্পে বাংলাদেশিদের বিভিন্ন সাফল্যের তথ্যও থাকছে হ্যান্ডবুকে। 

স্থানীয় সময় শনিবার ৮ আগস্ট সিঙ্গাপুর পলিটেকনিক অডিটোরিয়ামে এক অনুষ্ঠানে  ‘এমপ্লয়মেন্ট হ্যান্ডবুক’র উদ্বোধন করা হয়।

এসময় বিআইএমটি অ্যালুমিনাই অ্যাসোসিয়েশন,সিঙ্গাপুরের নেতারা ছাড়াও দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনের প্রতিনিধি সামিয়া হালিম ও আয়েশা সিদ্দিকা শেলী উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট হাসান মিঞা বলেন, বিআইএমটি থেকে পাস করে যারা চাকরি খুঁজছেন, তারা অনেক সময়ই সরাসরি মেরিন শিল্পের প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন না।

‘এই সুযোগে অনেক চাকরিপ্রার্থী মধ্যসত্ত্বভোগীদের দ্বারা প্রতারিত হন। এই এমপ্লয়মেন্ট হ্যান্ডবুক‘র ফলে মেরিন প্রতিষ্ঠানলোর সঙ্গে সরাসরি চাকরিপ্রার্থীরা যোগাযোগ করতে পারবেন। যাতে কমে যাবে প্রতারিত হবার সম্ভবনাও।’

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ বিজনেস চেম্বার অব সিঙ্গাপুরের প্রেসিডেন্ট মির্জা গোলাম সবুর,  সিঙ্গাপুর বাংলাদেশ সোসাইটি সভাপতি মোহাম্মদ শহিদ্দুজ্জামান, বেঙ্গলি ইউনিভার্সাল সোসাইটির প্রেসিডেন্ট রনজিত চন্দ্র সাহাসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে সিঙ্গাপুরের ৫০বছর পূর্তিতে দেশটির জনগণকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিআইএমটি অ্যালুমনাই অ্যাসোসিয়েশন সিঙ্গাপুরের জেনারেল সেক্রেটারি আজগর হোসেইন।

তিনি বলেন, খুব ছোট দেশ হয়েও বিভিন্ন ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনের  জন্য বিশ্বে সিঙ্গাপুর একটি রোল মডেল। দেশটির অর্থনীতিতে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বাংলাদেশিরাও সাফল্যের সঙ্গে ভূমিকা রাখছে।

আলোচনা শেষে ছিল বাংলাদেশ থেকে আগত শিল্পীদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। গান করেন-স্মরণ, বৃষ্টি, লোপা। নৃত্যের তালে দর্শক-শ্রোতাদের মৃগ্ধ করেছেন সাজিন, জাদুর আবেশে আছন্ন করেছেন শাহীন শাহ। বাদ ছিল না কৌতুক অভিনেতা হারুন কিসিঞ্জারের হাস্যরসও। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন লোপা।

বিআইএমটি অ্যালুমনাই অ্যাসোসিয়েশন,সিঙ্গাপুরের প্রেসিডেন্ট হাসান মিঞা অনুষ্ঠানের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে কর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

বিশেষ করে মিরাজ, বিল্লাল, মুকুল, আদনান, রানা, মাহমুদ, নজরুল, তাহাজ্জুদ, রাশেদ, শাহ আলম, গিয়াস, ওয়ালিউল, শিপু, লিটন, কাজল, মাসুদ ও নাজমুলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।

লেখক: ড. মশিউর রহমান, বিজ্ঞানী, ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব সিঙ্গাপুর। 

বাংলাদেশ সময়: ০৯২৭ ঘণ্টা, আগস্ট ১২, ২০১৫
এমএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

প্রবাসে বাংলাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa