Alexa
ঢাকা, শুক্রবার, ১০ চৈত্র ১৪২৩, ২৪ মার্চ ২০১৭
bangla news
symphony mobile

ময়লা-আবর্জনা থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৩-০৪ ১০:০১:০৪ পিএম
বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু-ফাইল ফটো

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু-ফাইল ফটো

ঢাকা: ময়লা-আবর্জনা থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে আগামী বছর পরীক্ষামূলক ভাবে রাজধানীর কেরানীগঞ্জে এক মেগাওয়াটের বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু।

শনিবার (০৪ মার্চ) বিকেলে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এক্সপোনেট এক্সিভিশন প্রাইভেট লিমিটেড আয়োজিত তিন দিনব্যাপী অষ্টম বিডি এক্সপো অ্যান্ড ডায়লগ-২০১৭ এর সমাপনী আলোচনায় সভায় ভিডিও বার্তায় তিনি এ কথা বলেন।
 
নসরুল হামিদ বিপু বলেন, বর্তমান সরকার নবায়নযোগ্য বিদ্যুৎ উৎপাদনের দিকে এগুচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী বছর রাজধানীর কেরানীগঞ্জে ময়লা আবর্জনা থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য জার্মানির কোম্পানি জিআইজেডের সহযোগিতায় এক মেগাওয়াটের একটি পরীক্ষামূলক বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। এ কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে আমরা যদি সফল হতে পারি, তাহলে দেশের প্রতিটি উপজেলায় একটি করে ময়লা আবর্জনা থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে সক্ষম বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। দেশের বড় বড় শহরগুলোতেও আমাদের এ প্রকল্প চালু করার চিন্তা রয়েছে।
 
বায়ু থেকেও বিদ্যুৎ উৎপাদনের চিন্তা সরকারের রয়েছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ইতিমধ্যে দেশের বিভিন্ন জায়গায় বায়ু পরিমাপ শুরু করা হচ্ছে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য। দেশের কোন কোন অঞ্চলে বায়ু বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করা যায় সে বিষয়টিও ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে আমরা বায়ু পরিমাপের ফলাফল পেয়ে যাবো।

তিনি আরও বলেন, সোলার প্যানেল কীভাবে আরও সাশ্রয়ী মূল্যে গ্রাহকদের দেওয়া যায় সে বিষয়টি নিয়ে আমাদের চিন্তা করতে হবে। তাছাড়া শুধু গ্রাম অঞ্চলে নয় আরবান সাইডেও  কীভাবে সোলার প্যানেল ব্যবহার করে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা যায় সেই বিষয়টি নিয়েও আমাদের কাজ করতে হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাঙালিরা জন্মগতভাবেই সৃজনশীল। আমার মনে হয় তাদের সৃজনশীল আইডিয়াগুলো সম্মুখে আনার জন্য ‘বিডি এক্সপোর’ এ ধরণের আরও এক্সপো আয়োজনের প্রয়োজন রয়েছে।

আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন-  সাসটেইনেবল ডিজাইন, গ্রিন ট্রি বিল্ডিং এনার্জি প্রাইভেট লিমিটেডের ডিরেক্টর অনুরাগ বাজপেয়ী, বাংলাদেশ ইনফাস্টাকচার ফিনাস ফান্ড লিমিটেডের সিও এস এম ফরমানুল ইসলাম ও এক্সপোনেট এক্সিভিশন প্রাইভেট লিমিটেডের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর এস কে মো. রাশেদুল হক প্রমুখ।
 
বৃহস্পতিবার (০২ মার্চ) থেকে শুরু হওয়ায় তিন দিনব্যাপী বিডি এক্সপোতে দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠানের সর্বমোট ২১৫টি কোম্পানির স্টল অংশ নেন। শনিবার (৪ মার্চ) রাত ৮টায় বিডি এক্সপো শেষ হয়।
 
বাংলাদেশ সময়: ২১৫৭ ঘণ্টা, মার্চ ০৪, ২০১৭
এমএ/আরআইএস/বিএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

You May Like..