[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২০ মে ২০১৮

bangla news

দেশে নয়, বিএনপিতেই যত সংকট

পলিটিক্যাল ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৫-০৫ ৮:২৫:৫৯ পিএম
আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন ড. হাছান মাহমুদ, পাশে ছিলেন মন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম

আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন ড. হাছান মাহমুদ, পাশে ছিলেন মন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম

ঢাকা: দেশে কোনও সংকট নেই, বরং বিএনপিতেই যত সংকট বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং দলের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ এমপি।

শনিবার (৫ মে) দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর-রুনি মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত ‘বীরকন্যা প্রীতিলতা ওয়াদ্দারের ১০৭তম জন্মবার্ষিকীর উপলক্ষে এক আলোচনা সভায়’ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। 

হাছান মাহমুদ বলেন, দেশে কোনও সংকট নেই, দেশ অত্যন্ত সুন্দরভাবে চলছে। দেশ জাতিসংঘের নির্ধারিত তিনটি শর্ত পূরণ শুধু নয়, আরও বহুদূর অতিক্রম করে আজকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এই বছরেই স্বল্প আয়ের দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে রূপান্তরিত হয়েছে। খাদ্য ঘাটতির দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। দেশ স্বাধীনের পর ৮০ শতাংশ লোক দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাস করতো, এখন দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাস করা লোকের সংখ্যা ১০ শতাংশ। বরং বিএনপিতেই যত সংকট। তাদের চেয়ারপারসন দুর্নীতির দায়ে শাস্তি প্রাপ্ত হয়ে কারাগারে আছেন। 

‘তাদের (বিএনপির) রাজনৈতিক দেউলিয়াত্ব এমন পর্যায়ে গেছে যে, তারা এমন একজনকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বানালেন, যিনি ১৯৬৭ সালে পাকিস্তানের করাচিতে জন্মগ্রহণ করেন। যিনি বাংলাদেশের নাগরিকই নন। সুতরাং পাকিস্তান গিয়ে তারেক রহমান নাগরিকত্ব চাইলে সে দেশের সরকার জন্মসূত্রে তাকে নাগরিকত্ব দিতে বাধ্য। বিএনপি এমনই একটি দৈন্যদশার মধ্যে আছে।’

রাজনীতিকে জিয়াউর রহমান নষ্ট করে দিয়েছেন অভিযোগ করে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক বলেন, জিয়াউর রহমান রাজনীতিবিদদের চরিত্র হননের জন্য রাজনীতিবিদদের ভাড়া করতেন। তিনি (জিয়াউর রহমান) অন্য দল থেকে লোক ভাগিয়ে নিয়ে ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে বিএনপি গঠন করেছিলেন। আজকে যেসব বিএনপি নেতারা সারাদিন বকবক করে, এরা সবাই ভাড়া করা রাজনীতিবিদ। আগে অন্য দল করতো, পরে বিএনপিতে এসেছে। কেউ বিএনপি বাই চান্স, কেউ বিএনপি বাই অ্যাক্সিডেন্ট। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও দল বদল করা রাজনীতিবিদ। তিনি প্রথমে বামপন্থি রাজনীতি করতেন।

ভারতবর্ষের স্বাধীনতা সংগ্রামের প্রথম নারী শহীদ প্রীতিলতার কথা উল্লেখ করে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, প্রীতিলতা আত্মহনন করেছিলেন। কারণ তিনি যদি আহতাবস্থায় ধরা পড়তেন, তাহলে তাকে নির্যাতন করে বিপ্লবীদের গোপন পরিকল্পনার কথা জেনে নিতো নিপীড়করা। সেই অত্যাচার এবং গোপন পরিকল্পনা যেন ফাঁস না হয়, সেজন্যই প্রীতিলতা অাত্মহননেন পথ বেছে নিয়েছিলেন। তার পরনের কাপড়ের মধ্যে পাওয়া গিয়েছিলো ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের জবানবন্দি। সেখানে তিনি সূর্যসেনের নির্দেশেই অাক্রমণ পরিচালনা করেছিলেন এবং কেনো করেছিলেন সেই জবানবন্দি বিস্তারিত ছিলো।

এসময় প্রীতিলতার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান আওয়ামী লীগের এ নেতা।

অায়োজক সংগঠনের উপদেষ্টা চিত্ত রঞ্জন দাসের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন, খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, সাবেক প্রধান বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, সাবেক সংসদ সদস্য সারাহ বেগম কবরী, বলরাম পোদ্দার প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ২০১৯ ঘণ্টা, মে ০৫, ২০১৮
এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa