রাজশাহীতে সমাবেশের জন্য বিএনপির প্রস্তুতি সম্পন্ন
[x]
[x]
ঢাকা, শুক্রবার, ২ ভাদ্র ১৪২৫, ১৭ আগস্ট ২০১৮
bangla news

রাজশাহীতে সমাবেশের জন্য বিএনপির প্রস্তুতি সম্পন্ন

বাংলানিউজ টিম | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৪-১৫ ১:৩৫:৩৭ পিএম
রাজশাহীতে সমাবেশের জন্য বিএনপির প্রস্তুতি সম্পন্ন-ছবি-বাংলানিউজ

রাজশাহীতে সমাবেশের জন্য বিএনপির প্রস্তুতি সম্পন্ন-ছবি-বাংলানিউজ

রাজশাহী থেকে: রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ শুরু হবে কিছুক্ষণের মধ্যে। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কারাগারে রাখার প্রতিবাদে রাজশাহীর ৮ জেলা ও ১০টি সাংগঠনিক জেলা ভুবন মোহন পার্কে এ সমাবেশের আয়োজন করেছে।

রোববার (১৫ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১১টায় ভুবন মোহন পার্কে গিয়ে দেখা গেছে, ছোট মাঠে বিশাল আকারের মঞ্চ নির্মাণ করা হয়েছে। 

দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ এ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেবেন।

রাজশাহী নগরীর মাদ্রাসা মাঠে গত ৩১ মার্চ সমাবেশ করার জন্য অনুমতি চাওয়া হয়। কিন্তু পুলিশ প্রশাসন সেখানে অনুমতি না দেওয়ায় সমাবেশ করতে পারেনি দলটি। পরে সাহেব বাজার মোড়ে ভুবন মোহন পার্কে দলটির নিজস্ব অফিসের কাছে বিকেলে সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নেয় বিএনপি।

দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এই সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিলো। কিন্তু তার মায়ের মৃত্যুতে তিনি সমাবেশে উপস্থিত হতে পারছেন না বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

তবে সমাবেশে কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ড. মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, আব্দুল আউয়াল মিন্টু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার আমিনুল হক, মিজানুর রহমান মিনু প্রমুখ উপস্থিত থাকবেন।  

সমাবেশে সভাপতিত্ব করবেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র ও কেন্দ্রীয় বিএনপির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল।

বাংলানিউজকে তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় জেলখানায় রাখা হয়েছে। জনগণ এজন্য ক্ষুব্ধ হয়ে আছে। ইতোমধ্যেই তারা মাঠে নেমেছে।

তিনি বলেন, সরকারের কাছে আমরা খালেদা জিয়ার মুক্তি চাইবো না। আমরা যেখানে সমাবেশ করতে চেয়েছিলাম সেই মাঠে সমাবেশ করতে দেওয়া হয়নি। আশা করি জনগণ স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের মধ্যে দিয়ে এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাবে। আশা করি ৭/৮ লাখ লোকের সমাবেশ হবে। যেহেতু মাঠ দেয়নি পুরো রাজশাহী শহরই সমাবেশে পরিণত হবে।

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু বাংলানিউজকে বলেন, বগুড়া ও সিরাজগঞ্জের স্থানীয় নেতারা জানিয়েছেন পুলিশ তাদের কোনো গাড়ি আসতে দেবে না। মালিক সমিতিও কোনো গাড়ি দেবে না। তারপরও আশা করি এই ভুবন মোহন মাঠসহ পুরো শহরে লাখো লাখো মানুষের সমাবেশ হবে।

রাজাশাহী মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন বলেন, মাঠটি ছোট হলেও আমরা শহরের বিভিন্ন এলাকায় মাইকের ব্যবস্থা করেছি। যাতে করে জনগণ আমাদের কথা শুনতে পারেন। এজন্য দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে সরকারি কলেজ পর্যন্ত, দক্ষিণে শহীদ বাচ্চু স্মৃতি সংঘ, উত্তরে বাটা মোড়, উত্তর-পূর্বে গণকপাড়া, পূর্বে জিরো পয়েন্ট ও দক্ষিণ-পূর্বে মনি চত্তর পর্যন্ত মাইক লাগানো হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৩৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৫, ২০১৮
এমএইচ/এসএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa