[x]
[x]
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৬ নভেম্বর ২০১৭

bangla news

বিক্ষোভ সমাবেশ ডেকে মাঠে নেই জামায়াত

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-১০-১১ ৪:০৮:৪২ পিএম
জামায়াতের ডাকা কর্মসূচির জন্য পুলিশের বাড়তি নিরাপত্তা

জামায়াতের ডাকা কর্মসূচির জন্য পুলিশের বাড়তি নিরাপত্তা

ঢাকা: জামায়াতের আমির মকবুল আহমাদসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের গ্রেফতারের প্রতিবাদে ডাকা বিক্ষোভ সমাবেশের কর্মসূচিতে মাঠে নামেনি দলটি।

বুধবার (১১ অক্টোবর) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে জামায়াতের কোনো কর্মসূচি চোখে পড়েনি।

নগরীর শ্যামলী, কল্যাণপুর, ফার্মগেট, কারওয়ানবাজার, শাহবাগ, পল্টন, মতিঝিলসহ বিভিন্ন এলাকায় জামায়াতের কোনো মিছিল-সমাবেশ বা নেতা-কর্মীদের উপস্থিতি দেখা যায়নি।

সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে বাড়তি পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করতে দেখা গেছে। তবে কোথাও কোনো মিছিল-সমাবেশের খবর জানাতে পারেনি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

পল্টন মোড়ে দায়িত্বরত একজন পুলিশ সদস্য বাংলানিউজকে বলেন, অন্য স্বাভাবিক দিনগুলোর মতোই পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন। তবে জামায়াতের কর্মসূচি কারণে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলায় পুলিশ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। এখনো তাদের কোনো কর্মসূচি চোখে পড়েনি।

এদিকে ছাত্রশিবির ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, জামায়াতের ৯ নেতাকে গ্রেফতার ও রিমান্ডের প্রতিবাদে কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ কর্মসূচি এবং হরতালের সমর্থনে রাজধানীর দয়াগঞ্জে মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

মিছিলটি রাজধানীর স্বামীবাগ থেকে শুরু হয়ে দয়াগঞ্জ মোড়ে গিয়ে শেষ। মিছিল পরবর্তী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে শিবির নেতৃবৃন্দ দেশবাসীকে বৃহস্পতিবারের শান্তিপূর্ণ হরতাল সফল করার আহ্বান জানান। তবে মিছিল-সমাবেশের খবর নাকচ করে দিয়েছে পুলিশ।

ডিএমপির ওয়ারী জোনের সহকারী কমিশনার (এসি, পেট্রোল) মো. জিয়াউল আলম বাংলানিউজকে বলেন, আমরা সকাল থেকেই মাঠে রয়েছি। আমি নিজে দয়াগঞ্জ এলাকাতে রয়েছি। জামায়াত-শিবিরের কোনো মিছিল কিংবা মিটিং আমাদের নজরে আসেনি।

যেকোন ধরনের অপতৎপরতা ঠেকাতে পর্যাপ্ত পুলিশ সদস্য মাঠে রয়েছে। কিন্তু কোথাও জামায়াতে ইসলামির কোনো কর্মসূচির খবর পাওয়া যায়নি বলে জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

সোমবার (০৯ অক্টোবর) রাতে গোপন বৈঠক থেকে গ্রেফতারের পর জামায়াত আমির মকবুল আহমাদ, নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার এবং সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমানসহ আটজনকে মঙ্গলবার বিকেলে ১০ দিনের রিমান্ডে পাঠান আদালত।

নেতৃবৃন্দকে রিমান্ডে নেওয়ার প্রতিবাদে এবং তাদের মুক্তির দাবিতে ১২ অক্টোবর সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা সর্বাত্মক হরতালের কর্মসূচি ঘোষণা দেয় দলটি।

এছাড়া বুধবার (১১ অক্টোবর) সারাদেশে বিক্ষোভ সমাবেশ এবং ১৩ অক্টোবর নেতাদের মুক্তির জন্য দোয়া মাহফিলের কর্মসূচিও দিয়েছে জামায়াত।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ১১, ২০১৭
পিএম/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Loading...
Alexa