Alexa
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ শ্রাবণ ১৪২৪, ২৫ জুলাই ২০১৭

bangla news

সোনারগাঁও উপজেলা চেয়ারম্যানের বরখাস্ত‍াদেশ স্থগিত

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৭-১৭ ১:৫৬:৩৩ পিএম
সোনারগাঁও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম মান্নান

সোনারগাঁও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম মান্নান

ঢাকা: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আজহারুল ইসলাম মান্নানকে করা বরখাস্তের আদেশ ছয়মাসের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের বরখাস্তাদেশের বিরুদ্ধে করা রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে সোমবার (১৭ জুলাই) রুলসহ এ স্থগিতাদেশ দেন বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন।
 
আজহারুল ইসলাম মান্নান বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক।

পুলিশের দায়ের করা  বিস্ফোরক মামলার অভিযোগপত্র আদালতে গৃহীত হওয়ায়

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব লুৎফর নাহার স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে গত ০৫ জুলাই তৃতীয়বারের মতো বরখাস্ত করা হয় তাকে।

২০১৫ সালের ০৫ জানুয়ারি সোনারগাঁও থানায় বিস্ফোরক আইনে দায়ের হওয়া মামলায় (নং ৮) মান্নানকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় থানা পুলিশ। অভিযোগপত্রটি আদালতে গৃহীত হওয়ার পর উপজেলা পরিষদ আইন-১৯৯৮ অনুসারে মন্ত্রণালয় থেকে তাকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ দেওয়া হয়।

এর আগেও একই ধরনের মামলার অভিযোগপত্র আদালতে গৃহীত হওয়ায় দু’বার সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছিল তাকে।

এর মধ্যে গত বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি তার বিরুদ্ধে দু’টি মামলার অভিযোগপত্র আদালতে গৃহীত হওয়ায় প্রথমবারের মতো সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছিল মান্নানকে। সেবার মন্ত্রণালয়ের ওই আদেশকে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন তিনি। পরে মন্ত্রণালয়ের স্থগিতাদেশ তিনমাসের জন্য স্থগিত করেন হাইকোর্ট। রাষ্ট্রপক্ষের আপিল খারিজ করে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগও স্থগিতাদেশ বহাল রাখলে পদ ফিরে পান তিনি।  

গত ০৮ মার্চ স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারির মাধ্যমে মান্নানকে দ্বিতীয়বারের মতো সাময়িক বরখাস্ত করে। তার রিট আবেদনে ০৬ এপ্রিল সাময়িক বরখাস্তাদেশ ০৬ মাসের জন্য স্থগিত করেন হাইকোর্ট। সর্বোচ্চ আদালতের চূড়ান্ত আদেশের পর গত ১৭ মে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহীনূর ইসলাম মান্নানকে উপজেলা পরিষদের দায়িত্ব বুঝিয়ে দেন।

দায়িত্ব বুঝে পাওয়ার দেড় মাসের মাথায় ০৫ জুলাই আবারও সাময়িক বরখাস্ত হন তিনি।
 
আজহারুল ইসলাম মান্নান বাংলানিউজকে বলেন, ‘ক্ষমতাসীন দলের সমর্থকেরা একের পর এক মামলা দিয়ে আমাকে দায়িত্ব পালন থেকে দূরে সরিয়ে রাখছেন। আমি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার। আমি সরকারের কাছে ন্যায়বিচার দাবি করছি’।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০০ ঘণ্টা, জুলাই ১৭, ২০১৭
এএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

You May Like..
Alexa