[x]
[x]
ঢাকা, বুধবার, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৫ নভেম্বর ২০১৭

bangla news

রামপাল নিয়ে অভিযোগ অনুমান ও আবেগ নির্ভর

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৪-২১ ১২:১৫:৩২ পিএম
‍আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ; ছবি-ফাইল ফটো

‍আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ; ছবি-ফাইল ফটো

ঢাকা: রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র নিয়ে করা অভিযোগ অনুমান, আবেগ এবং জ্যোতিষ বিদ্যা নির্ভর বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার (এপ্রিল ২০) বিকেলে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডিস্থ রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই কথা বলেন।  সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির সংবাদ সম্মেলনে দেয়া বক্তব্যের প্রতিবাদে এই সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়।

তিনি বলেন, গতকাল তেল-গ্যাস রক্ষার নামে তথাকথিত কমিটির পক্ষ থেকে পদ্মা সেতুর মতো সরকারের আরেকটি বৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্প ‘রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র’ নিয়েও ঠিক একইভাবে মিথ্যাচার করা হচ্ছে। বাংলাদেশে একটি গোষ্ঠী আছে- যারা সব সময় বাংলাদেশকে দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ হিসেবে বিশ্বের কাছে উপস্থাপন করতে চায়। তারা কখনও সরকারের কোনো উন্নয়ন কর্মকাণ্ড খুঁজে পায় না। 

এছাড়া টিআইবি’র নাম উল্লেখ করে তিনি বলেন, তারা সব সময় প্রতিবেদনের নামে বাংলাদেশকে একটি দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ হিসেবে উপস্থাপন করতে সচেষ্ট থাকে। শুধু টিআইবি’ই নয় এর সাথে আরও অনেক বিশেষ ব্যক্তিবর্গও যুক্ত আছেন। বাংলাদেশ যে আজ, বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্যকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের পথে এগিয়ে চলেছে এতে তারা ঈর্ষান্বিত হয়ে উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করার জন্যই নানা ধরনের মিথ্যচার এবং নানা ধরনের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। 

হাছান মাহমুদ বলেন, রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের আশাপাশের এলাকার পরিবেশ রক্ষায় প্রথমে সুপার ক্রিটিকাল পদ্ধতি ব্যবহার করার কথা ছিল। কিন্তু সরকার অধিকতর নিরাপত্তার জন্য আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল পদ্ধতি ব্যবহার করছে। এ জন্য যন্ত্রপাতি আমদানি করছে সরকার। রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নিঃসরিত ছাই কিনতে বাংলাদেশের বিভিন্ন সিমেন্ট কারখানা এখনই যোগাযোগ করছে।

এ নিয়ে যারা সমালোচনা করছেন তারা বিজ্ঞান নয়, অনুমান ও ষড়যন্ত্র নির্ভর কথা বলছে উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, এসব কথাবার্তা সুস্পষ্টভাবে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। একটি গোষ্ঠী পদ্মা সেতু ইস্যুতে বাংলাদেশকে দুর্নীতিগ্রস্ত প্রমাণ করতে চেয়েছিল তারাই ব্যর্থ হয়ে এখন রামপাল ইস্যু নিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে।’

এছাড়া রামপাল ইস্যুতে সুলতানা কামালের ‘রামপাল নিয়ে সরকার দেশে-বিদেশে অসত্য তথ্য দিয়ে যাচ্ছে। ভারতের এক্সিম ব্যাংকের সঙ্গে যে চুক্তি হয়েছে, সে বিষয়ে কোনো তথ্য দিচ্ছে না’- এমন বক্তব্যের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘সরকার জনগণকে বিভ্রান্ত করছেন না। সুলতানা কামালের প্রতি সম্মান রেখে আমি বলছি, তিনিসহ যারা এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, তারাই জনগণকে বিভ্রান্ত করছেন। এক্সিম ব্যাংক ভারত সরকারের অনুমতি নিয়ে আন্তর্জাতিক চুক্তির মাধ্যমে অর্থায়ন করছে। তাই এটা নিয়ে প্রশ্ন তোলা অবান্তর।’

সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য গোলাম রাব্বানী চিনু, রিয়াজুল কবির কাওছার ও মারুফা আক্তার পপি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১২০৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ২১, ২০১৭
আরআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Loading...
Alexa