পুলিশের জন্য নির্মিত হবে নয়টি আবাসিক ভবন
[x]
[x]
ঢাকা, বুধবার, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৫ আগস্ট ২০১৮
bangla news

পুলিশের জন্য নির্মিত হবে নয়টি আবাসিক ভবন

মফিজুল সাদিক, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৮-১৩ ৭:৫৬:০৮ এএম
আবাসিক ভবন

আবাসিক ভবন

ঢাকা: ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় বর্তমানে ৩৩ হাজারের বেশি পুলিশ সদস্য কর্মরত আছেন। তারা পুলিশ হেডকোয়ার্টার, পুলিশ স্টাফ কলেজ, রেঞ্জ রিজার্ভ ফোর্স (আরআরএফ), রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতাল, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন), ঢাকা জেলা, স্পেশাল ব্রাঞ্জ (এসবি), স্পেশাল সিকিউরিটি অব প্রটেকশন ব্যাটালিয়ন (এসপিবিএন) পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই), অপরাধ তদন্ত বিভাগসহ (সিআইডি) বিভিন্ন শাখায় দায়িত্ব পালন করছেন। 

কিন্তু ঢাকায় কর্মরত পুলিশ সদস্যের মাত্র ৯ দশমিক ৫০ শতাংশ আবাসন সুবিধা পায়। বাকি ৯০ দশমিক ৫০ শতাংশ পুলিশ সদস্য ভাড়া থাকেন। ফলে পুলিশ সদস্য ও তাদের পরিবার নিরাপত্তা ঝুঁকির মধ্যে থাকেন বলে মনে করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, পুলিশ সদস্যদের আবাসন সমস্যা নিরসনে ‘ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় নয়টি আবাসিক ভবন নির্মাণ’ প্রকল্প হাতে নেওয়া হচ্ছে। প্রকল্পের আওতায় মেট্রোপলিটন এলাকায় চাহিদা মতো নয়টি ২০ তলাবিশিষ্ট ভবন নির্মাণ করা হবে। প্রকল্পের প্রস্তাবিত ব্যয় ৬৮১ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। চলতি সময় থেকে ২০২০ সালের জুন পর্যন্ত ভবনগুলো নির্মাণ করা হবে।

প্রকল্প প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের উপ-প্রধান (পরিকল্পনা) শেখ সাকিল উদ্দিন আহমদ বাংলানিউজকে বলেন, নয়টি আবাসিক ভবন ঢাকায় নির্মিত হবে। তবে এখনও নির্মাণ স্থান ঠিক হয়নি। এগুলো ঠিক করতে এবং স্থান নির্ধারণে আরও কিছু সভা হবে। পুলিশের নিজস্ব জমিতেই নয়টি ভবন নির্মিত হবে। ভবনে নির্মিত ইউনিট প্রাপ্যতা অনুযায়ী পুলিশ সদস্যরা ব্যবহার করবেন।

নয়টির মধ্যে পাঁচটি ২০ তলা ভবনে ৬৫০ বর্গফুটের প্রতি তলায় ১২টি করে ইউনিট থাকবে। তিনটি ২০ তলা ভবনে এক হাজার বর্গফুটের প্রতি তলায় আটটি ইউনিট থাকবে। অন্যদিকে একটি ২০ তলা ভবনের প্রতি তলায় ১২৫০ বর্গফুটের চারটি করে ইউনিট থাকবে। নয়টি ভবনে ১৬০০ কেজি ওজনের ৩৬টি লিফট, ৩শ’ কেভিএ জেনারেটর, দু’টি যানবাহন, ৮শ’ কেভিএ ক্ষমতাসম্পন্ন জেনারেটরসহ আনুষঙ্গিক কার্যক্রম অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রকল্পের প্রস্তাব পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগে ইতোমধ্যেই পাঠিয়েছে। প্রকল্পটি নিয়ে চলতি বছরের ২৬ জুলাই শেরে বাংলানগরে পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগে প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা হয়। পিইসি সভার সারসংক্ষেপ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের প্রধান এনায়েত হোসেন বলেন, বর্তমানে পুলিশ সদস্যদের আবাসন সমস্যা প্রকট। অনেক পুলিশ সদস্য ভাড়া বাসায় বসবাস করেন। এতে নিরাপত্তা সংক্রান্ত সমস্যা আছে। মূলত পুলিশের আবাসিক সমস্যা নিরসনেই নয়টি বহুতল আবাসিক টাওয়ার নির্মাণ করা হবে। পিইসি সভা হয়েছে, সামনে আরও কিছু সভা হবে। এরপরেই প্রকল্পটি চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য একনেক (জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি) সভায় উপস্থাপন করবো।

বাংলাদেশ সময়: ০৭৪৫ ঘণ্টা, আগস্ট ১৩, ২০১৮
এমআইএস/আরআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa