[x]
[x]
ঢাকা, শুক্রবার, ৪ শ্রাবণ ১৪২৫, ২০ জুলাই ২০১৮

bangla news

এবার মিরপুর বিআরটিএতে দুদকের অভিযান

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৭-১২ ৬:৩৯:০৭ পিএম
বিআরটিএ কার্যালয়ে দুদকের অভিযান

বিআরটিএ কার্যালয়ে দুদকের অভিযান

ঢাকা: কেরানীগঞ্জের ইকুরিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) অফিসের পর এবার মিরপুর কার্যালয়ে অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। হট লাইনে (১০৬) পাওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে পাঁচ ঘণ্টার এ অভিযান চালায় দুদক।

বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) দুদকের পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, বিআরটিএ’র রেজিস্ট্রেশন ও ফিটনেস কার্যক্রম দুর্নীতিমুক্ত করার লক্ষ্যে দুর্নীতি দমন কমিশন বৃহস্পতিবার বিআরটিএ’র মিরপুর কার্যালয়ে আকস্মিক অভিযান চালায়। দুদক অভিযোগ কেন্দ্রে (১০৬) হয়রানির শিকার যানবাহন মালিকদের অভিযোগ পেয়ে সংস্থাটি এ অভিযান চালায়।

দুদকের উপ-পরিচালক জাহিদ হোসেনের নেতৃত্বে ৯ সদস্যের একটি টিম দীর্ঘ পাঁচ ঘণ্টায় ২০টি কাউন্টারের সবক’টিতে অভিযান চালায়। এসময় ১০ জন গ্রাহকের সঙ্গে মতবিনিময় করে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করে। উপস্থিত সেবাগ্রহিতারা দুদক টিমকে জানায়, ১১৩ নম্বর কাউন্টারে রেজিস্ট্রেশন ও ফিটনেস দেওয়া যথেষ্ট বিলম্বিত হচ্ছে, কর্তৃপক্ষ উক্ত কাউন্টারে কর্মরত শাহ মোহাম্মদ মুয়াবিয়াকে তাৎক্ষণিক প্রত্যাহার করে।

অভিযানের সময় দুদক টিম বিআরটিএ’র উপ-পরিচালক মাসুদ আলমকে রেজিস্ট্রেশন/ফিটনেস কার্যপদ্ধতির সংস্কার ও উন্নয়নের আহ্বান জানান।
দুদক টিম বিআরটিএ কার্যালয়ে সম্প্রতি বসানো আধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন ভেহিকেল ফিটনেস ডিভাইসটির মাধ্যমে ’শিকড় পরিবহন’–এর একটি মিনিবাস তাৎক্ষণিক পরীক্ষা করলে এটি অনুত্তীর্ণ হয়। দুদক টিম সার্বক্ষণিকভাবে ফিটনেস যাচাইয়ের লক্ষ্যে মেশিনটি ব্যবহারের উপর গুরুত্বারোপ করে। 

এছাড়া দুদক টিমের উপস্থিতিতে ১০টি প্রাইভেটকার হয়রানি ও দুর্নীতিমুক্তভাবে তাৎক্ষণিকভাবে ফিটনেস সার্টিফিকেট পায়। এসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক মিনহাজ শাহরিয়ার অভিযোগে জানান, চার ঘণ্টা যাবত তিনি ফিটনেস নবায়নের জন্য অপেক্ষমাণ। দুদক টিমকে পেয়ে তিনি আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন এবং তাৎক্ষণিকভাবে তার গাড়ির ফিটনেস সার্টিফিকেট দেওয়া হয়।

অভিযান শেষে জনসচেতনতার জন্য ওই কার্যালয়ে দুর্নীতিবিরোধী স্টিকার ও লিফলেট বিতরণ করা হয়। মাইকিং করে জনসাধারণকে ঘুষ আদান-প্রদান থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানানো হয়। উপস্থিত জনসাধারণ দুদকের অভিযান অব্যাহত রাখার অনুরোধ জানান। 

এ অভিযান পরিচালনা প্রসঙ্গে এনফোর্সমেন্ট অভিযানের সমন্বয়কারী দুদকের মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী জানান,  বিআরটিএতে বিশৃঙ্খলার কারণ দুর্নীতি, তাই এ অভিযান চলছে। এছাড়া দুর্নীতিবাজদের ধরতে ট্র্যাপ-টিমও সদা তৎপর রাখা হয়েছে। জনগণ ঘুষ-সংস্কৃতি থেকে মুক্ত হয়ে দুদককে সহযোগিতা করলে পরিস্থিতির আরও উন্নতি হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩১ ঘণ্টা, জুলাই ১২, ২০১৮
আরএম/এএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   দুদক

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa