[x]
[x]
ঢাকা, শনিবার, ৬ শ্রাবণ ১৪২৫, ২১ জুলাই ২০১৮

bangla news

শুধুই ফল, গাছ যেন চোখেই পড়ে না!

সোহাগ হায়দার, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৭-১২ ৮:২৩:৪৪ এএম
গাছে ঝুলে আছে রসালো লটকন। ছবি বাংলানিউজ

গাছে ঝুলে আছে রসালো লটকন। ছবি বাংলানিউজ

পঞ্চগড়: লোভনীয় ও পুষ্টিকর ফল লটকন। বলা যায় গ্রীষ্মের টসটসে একটি রসালো ফল এটি। এতে ভিটামিন ও খাদ্যশক্তিসহ নানারকম খনিজ উপাদান রয়েছে। বর্তমানে নানা ফলের ভিড়ে লটকনের গুণের কথা অনেকেরই অজানা। লটকন গাছের গোড়া থেকে মগ ডাল পর্যন্ত হয়। 

প্রকৃতি তার নিপুন হাতে থরে থরে গাছের গোড়া থেকে মগ ডাল পর্যন্ত সাজিয়ে রেখেছে এ ফল। যা চোখে না দেখলে বিশ্বাস করা সম্ভব না। বাংলাদেশের সর্ব উত্তরের প্রান্তিক জেলা পঞ্চগড়ে গেলে দেখা যায় এসব লটকন গাছের সমাহার। 

সরেজমিন জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার তিস্তাপাড়া এলাকায় দেখা যায় লটকন চাষ করে লাভবান হচ্ছেন চাষিরা। আর এ কারণেই  চাষিদের আগ্রহ বাড়ছে লটকন চাষে।

তিস্তাপাড়া এলাকার লটকন চাষি গোকুল বাবু বাংলানিউজকে  জানান, ৭ বিঘা জমিতে বিভিন্ন ফলসহ লটকন চাষ করছি। এই বাগানে ৬০টির বেশি লটকন গাছ রয়েছে। গত বছরের চেয়ে এ বছর লটকন গাছে ফল বেশি হওয়ায় পাইকাররা পুরো বাগান কিনে নিয়েছেন। আর এবার তিনি দামও পেয়েছেন বেশি।  গাছে ঝুলে আছে রসালো লটকন। ছবি বাংলানিউজ

জানা যায়, লটকন পাইকাররা স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে এসব লটকন পাঠিয়ে দেন। লটকন চাষি শুভঙ্কর রায় জানিয়েছেন, লটকন চাষে পরিশ্রম তেমন একটা না থাকলেও লাভ অনেক। 

জেলা কৃষি বিভাগের উপ-পরিচালক সামছুল হক বাংলানিউজকে জানান, জেলায় এ বছর ৩২ হেক্টর জমিতে লটকন চাষ করা হচ্ছে। পঞ্চগড়ের উৎপাদিত লটকন আকারে বড়, আকর্ষণীয় এবং রসালো হওয়ায় চাহিদাও বেশি। আশাকরি আগামীতে পঞ্চগড়ে লটকন চাষে আরো সাড়া পাওয়া যাবে। 

বাংলাদেশ সময়: ০৮১৬ ঘণ্টা, জুলাই ১২, ২০১৮ 
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa