[x]
[x]
ঢাকা, সোমবার, ৮ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৩ জুলাই ২০১৮

bangla news

মাদকবিরোধী অভিযানে ২২ হাজার আটক

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৬-২৫ ৪:১০:০৯ পিএম
সংবাদ সম্মেলনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, ছবি: বাংলানিউজ

সংবাদ সম্মেলনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: দেশজুড়ে চালানো মাদকবিরোধী অভিযানে ২২ হাজার বিক্রেতা ও পাচারকারীকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। 

তিনি বলেছেন, চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে ২২ হাজার মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী  মোবাইল কোর্ট ও নিয়মিত অভিযানের মাধ্যমে এদের আটকের পর বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

সোমবার (২৫ জুন) সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচার বিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। 

আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, আইন-শঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী শতভাগ নিশ্চিত না হয়ে কাউকে আইনের আওতায় আনছে না। সরকারের তিনটি গোয়েন্দা সংস্থার তালিকায় যেসব মাদক ব্যবসায়ী  ও পাচারকারীর নাম এসেছে তাদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। আমাদের তালিকায় যাদের নাম আসছে, আমরা তাদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নিচ্ছি। জন-প্রতিনিধি কিংবা অন্য কোনো ব্যক্তি সে যেই হোক।

‘দেশের কারাগারগুলোতে এখন প্রায় ৮০ হাজার কারাবন্দি রয়েছে। এরমধ্যে গতমাসের ১২ তারিখ থেকে এ পর্যন্ত মাদক বিরোধী অভিযানে আটক করা হয়েছে ২২ হাজার জন। এসব কারাগারের ধারণ ক্ষমতা ৩৬ হাজার কয়েদির।’
 
তিনি বলেন, আমাদের উদ্দেশ্য কাউকে হত্যা করা নয়। যেখানে মাদক বিক্রি হয়, সেখানেই অবৈধ টাকা, অবৈধ অস্ত্র থাকে। আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর অভিযানের সময় মাদক ব্যবসায়ীরাও অস্ত্র চালায়।সেখানে গোলাগুলি হওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়, গোলাগুলি হতেই পারে। যতদিন মাদক নির্মূল না হবে ততদিন এই অভিযান চলবে। 

সংবাদ সম্মেলনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মে মাস পর্যন্ত মাদ্রক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ১৯ হাজার ৫৬ অভিযান চালিয়ে ৬ হাজার ১৩২ জন আসামির বিরুদ্ধে ৫ হাজার ৪৭৮টি মামলা করেছে। এসময় ১২ লাখ ২৯ হাজার ৪৪১টি ইয়াবা ট্যাবলেট, ১১ হাজার ১৩২ বোতল ফেনসিডিল, ৫ হাজার ৬৪১ কেজি হেরোইন, ১ হাজার ৬৮২ কেজি গাঁজা, ৫ হাজারের বেশি অ্যাম্পুল ইনজেকশন উদ্ধার করা হয়েছে।
 
তিনি জানান, ২৬ জুন (মঙ্গলবার) মাদক দ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচার বিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালন করা হবে। এবছর দিবসের প্রতিপাদ্য- ‘শিশু ও যুবাদের প্রতি মনোযোগ দেয়াই তাদের নিরাপদ বেড়ে ওঠার প্রথম পদক্ষেপ’। 

মাদকের ক্ষতিকর দিক সর্ম্পকে গণসচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে মাদকবিরোধী ব্যাপক সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার ব্রত নিয়ে দিবসটি পালন করা হবে। এই কর্মসূচির আওতায় আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ, টকশো, চলচ্চিত্র প্রদর্শন, সংবাদপত্রে ক্রোড়পত্র প্রকাশ করা হবে।
 
এরই অংশ হিসেবে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জাতীয় পর্যায়ের এসব অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে। 

এছাড়া সারাদেশের মতো সকাল ৮টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে থেকে মৎস্য ভবন পর্যন্ত মাদকবিরোধী মানববন্ধন পালন করা হবে।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৬০৪ ঘণ্টা, জুন ২৫, ২০১৮
এসই/এমএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   মাদক

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa