[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ৩১ আষাঢ় ১৪২৫, ১৫ জুলাই ২০১৮

bangla news

২০ শতাংশ নতুন জমি পেয়েছে বাংলাদেশ: পরিকল্পনামন্ত্রী

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৪-১৬ ১:৫৮:০৩ এএম
ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: নদীতে চর জেগে উঠায় বাংলাদেশ বিগত তিন-চার বছরে ২০ শতাংশ নতুন জমি পেয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। নদীতে ক্যাপিটাল ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে আরো অনেক জমি পাওয়া যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

রোববার (১৫ এপ্রিল) শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত ‘সামাজিক বিজ্ঞান গবেষণা পরিষদের দু’টি গবেষণা ফলাফল সংক্রান্ত কর্মশালায় এতথ্য জানান তিনি।

কর্মশালায় এ কেস স্টাডি অব বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন: ‘ডেভেলপমেন্ট অব ট্যুরিজম ইন্ডাস্ট্রি ইন বাংলাদেশ’ এবং ‘ক্রপ ডাইভারসিফিকেশন অ্যান্ড ফুড সিকিউরিটি ইন নর্থওয়েস্ট বাংলাদেশ’ শীর্ষক দু’টি গবেষণার ফলাফল উপস্থাপন করা হয়।
 
নতুন জমি প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, দেশবাসী এসব জমিতে বসতিসহ নানা ধরনের আবাদ করে স্বাবলম্বী হচ্ছে। এসব জমির আরো সঠিক ব্যবস্থাপনা করতে হবে। এর মাধ্যমে দেশ আরো সমৃদ্ধ হবে।
 
তিনি বলেন, মানুষের হাতে টাকা হলেই মানুষ এক দেশ থেকে আরেক দেশে বেরিয়ে পড়ে, এটা মানুষের সহজাত প্রবৃত্তি। শুধুমাত্র এ পর্যটন শিল্পকে কাজে লাগিয়েই নেপাল অনেক বেশি জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জন করছে। তাহলে বাংলাদেশ পারবে না কেন? তাই দেশের টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়নে পর্যটন শিল্প বিকাশের ক্ষেত্রে বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে। এছাড়া ফসল বহুমুখী করণে সরকারের গৃহীত বিভিন্ন পদকক্ষেপের কথা তুলে ধরেন তিনি।
 
মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির জন্য সম্ভাবনাময় খাতগুলোর মধ্যে প্রধান তিনটি হচ্ছে- পর্যটন, তথ্য ও প্রযুক্তি এবং স্বাস্থ্য সেবা। এসব খাতে উন্নতি করার মাধ্যমে অর্থনীতি টেকসই করা সম্ভব। যেসব বিদেশি এদেশে ব্যবসা করতে আসেন তাদের আমরা ট্যুরিস্ট হিসেবে ধরি। এটা ঠিক নয়। তারা আসেন ব্যবসা করতে, বেড়াতে নয়।
 
কর্মশালায় আরো উপস্থিত ছিলেন- পরিকল্পনা বিভাগের জিয়াউল ইসলাম, বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইমইডি) সচিব মফিজুল ইসলামসহ পরিকল্পনা কমিশনের সদস্যরা।
 
বাংলাদেশ সময়: ০১৫৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৬, ২০১৮
এমআইএস/আরবি/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa