[x]
[x]
ঢাকা, সোমবার, ৭ ফাল্গুন ১৪২৪, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

bangla news

কিশোরীর শ্লীলতাহানীতে বাধা দেওয়ায় ৬ জনকে কুপিয়ে জখম

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০২-০৯ ৮:১২:১৮ পিএম
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

কক্সবাজার: কক্সবাজার সদর উপজেলার ঝিলংজা ইউনিয়নে দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানীতে বাধা দেওয়ায় ছয়জনকে কুপিয়ে জখম করেছে আবছার কামাল (২৮) নামের এক যুবক। 

আবছার রামু উপজেলার দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়নের ছাদের পাড়ার ফকির শমসুরের ছেলে। 

আহতেরা হলেন- ভিকটিমের বাবা ফজল আহমদ সওদাগর ও ভিকটিমের ভাই মোহাম্মদ উল্লাহ ও তার স্ত্রী মনোয়ারা (২০), ভিকটিমের অপর ভাই হাবিব উল্লাহ, তাদের প্রতিবেশী নুরুল আমিন (৩০) ও জমির উদ্দিন।

আহতের পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, শ্লীনতাহানীর চেষ্টাতে বাধা দেওয়ায় ভিকটিমের পরিবারের উপর বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) রাতে ও বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে দু’দফা হামলা চালায় আবছার কামাল ও তার সহযোগীরা। গত ৭ ফেব্রুয়ারি রাতে আবছার ভিকটিমের ঘরে প্রবেশ করে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে। এসময় ভিকটিমের চিৎকারে তার ভাই ও এলাকাবাসী এসে আবছারকে ঘরে আটকে রাখে। এই খবর পেয়ে আবছারের ৪ ভাইসহ চরপাড়া গ্রামের আরও ২০/৩০ জন সহচর এসে ভিকটিমের বাড়িতে ভাংচুর করে আবছারকে নিয়ে যায়। এরই জেরে বৃহস্পতিবার মাগরিবের নামাজের পর ছাদের পাড়া জামে মসজিদের ভেতরে সন্ত্রাসীরা ভিকটিমের বাবাকে কুপিয়ে জখম করে। সেসময় তাকে উদ্ধার করতে আসলে আবছার ও তার দলবল ছয়জনকে কুপিয়ে জখম করে।

রামু থানার ওসি লিয়াকত আলী সিকদার বলেন, ওই হামলায় ৬ জন আহতের খবর আমি জানতাম না। আহতদের পক্ষ থেকে কেউ থানায় আসলে মামলা নেব। 

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফরাজুল হক টুটুল বলেন, বিষয়টি আমি জানতাম না। খোঁজখবর নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২০১১ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০১৮
আরআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa