[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ৮ মাঘ ১৪২৪, ২১ জানুয়ারি ২০১৮

bangla news

রাস্তা দখল করে বাজার, গাড়ির স্ট্যান্ড

মনি আচার্য্য, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০১-১৪ ১২:৫৫:৫১ পিএম
ডিআইটি রোডে রাস্তা দখল বসেছে কাঁচাবাজার/ ছবি: কাশেম হারুন

ডিআইটি রোডে রাস্তা দখল বসেছে কাঁচাবাজার/ ছবি: কাশেম হারুন

ঢাকা: রাস্তার অর্ধেকটা দখল করে চলছে বেচাকেনা! পিছনে আটকে রয়েছে শত শত গাড়ি। কারোই কোনো ভ্রুক্ষেপ নেই সেদিকে। সড়কে সৃষ্ট যানজট দেখেও না দেখার ভান করছে দোকানিরা। একটু এগোলেই চোখে পড়ে সারি সারি মাইক্রোবাস রাস্তা দখল করে বানিয়ে নিয়েছে নিজেদের স্ট্যান্ড। ফলে একই রাস্তার দুই জায়গায় দখল হওয়ায় যান চলাচলের কোনো জো নেই।

রোববার (১৪ জানুয়ারি) রাজধানীর ডিআইটি রোডে গিয়ে দেখা যায়, পশ্চিম রামপুরা বাজার থেকে টিভি সেন্টার পর্যন্ত সড়কটি অবৈধ দখলের কারণে যানবাহন চলাচল স্থবির হয়ে পড়েছে। 

সড়কের অর্ধেক অংশ দখল করে বসেছে কাঁচাবাজার। টিভি সেন্টারের পাশে হাতিরঝিলে চলাচলকারী মাইক্রোবাসের অঘোষিত অবৈধ স্ট্যান্ড। ফলে রাজধানীর অন্যতম ব্যস্ত সড়কটিতে সব সময় লেগে থাকে অসহনীয় যানজট। 

গাজীপুর থেকে পল্টন, গুলিস্তান ও মতিঝিলগামী বাসের যাতায়াতের প্রধান সড়ক এই ডিআইটি রোড। ফলে রাস্তা দখল হওয়ায় প্রতিদিনই সীমাহীন যানজটে পড়ে ভোগান্তি পোহাচ্ছেন যাত্রীরা।
ডিআইটি রোডে রাস্তা দখল বসেছে কাঁচাবাজার/ ছবি: কাশেম হারুনশুধু রাস্তা দখল করেই শেষ নয়, মানুষের হাঁটাচলা করার ফুটপাত পর্যন্ত দখল করে রেখেছেন মাংস ও সবজি বিক্রেতারা। যদিও রাস্তার পাশে ভিতরের গলিতে রয়েছে স্থায়ী একটি বাজার। কিন্তু ব্যবসায়ীরা এই বাজারে না বসে রাস্তাকেই বাজার বানিয়ে ফেলেছেন।

স্থানীয় বাসিন্দা ও গাড়ি চালকদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, রাস্তা দখলের কারণে তাদের ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে পড়ে থাকতে হয়। সকাল ৭টায় বসা এই বাজার চলে রাত পর্যন্ত। এছাড়া রাস্তা দখল করে মাইক্রোবাসের অবৈধ স্ট্যান্ড বানানোর কারণে টিভি সেন্টারে সামনে সব সময় লেগে থাকে জটলা।

এসব কারণে ডিআইটি রোড কার্যত স্থবির হয়ে থাকে সারাদিন। যদিও রাস্তাটিতে যানজট ও গাড়ির চাপ কমাতে রামপুরা ব্রিজ সংলগ্ন স্থানে একটি ইউলুপ নির্মাণ করা হয়েছে। কিন্তু রাস্তা দখলের কারণে সেই ইউলুপের সুফল পাচ্ছে না এলাকাবাসী।

সুপ্রভাত পরিবহনের চালক বছির মিয়া বাংলানিউজকে বলেন, “রাস্তা দখলের কারণে রামপুরা ব্রিজ থেকে দীর্ঘ যানজট লাইগা থাকে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা বইসা থাকতে হয়। এই রোডের কারণে শান্তিনগর-মৌচাক-মালিবাগ-রাজারবাগ ফ্লাইওভারের সুবিধা পাচ্ছি না।”

তুরাগ পরিবহনের চালক সাজ্জাদ বাংলানিউজকে বলেন, “এমনে রাস্তা দখল কইরা রাখে এইটা কোন দেশের আইন। কেউ কিছু কয় না। রাস্তা হইছে গাড়ি চলনের লাগি কিন্তু হেরা বাজার ও গাড়ির স্ট্যান্ড বানায়া রাইখা দিছে। এহন যানজটের ঠেলায় আমরা বাঁচি না।”
ডিআইটি রোডে রাস্তা দখল করে মাইক্রোবাসের স্ট্যান্ড/ ছবি: কাশেম হারুনসড়কটিতে প্রতিদিন যাতায়াত করা যাত্রী শিহাব বাংলানিউজকে বলেন, সরকার এত ফ্লাইওভার নির্মাণ করছে যানজট নিরসনের জন্য। কিন্তু বছরের পর বছর ধরে রাস্তা অবৈধভাবে দখল করে রেখেছে যে রাস্তাগুলো সেটা সরাতে পারে না কেন? এসব রাস্তা থেকে দখল সরানো না গেলে কোনো কাজেই আসবে না ফ্লাইওভার।

খোঁজ-খবর নিয়ে জানা যায়, পশ্চিম রামপুরা বাজারটি রাস্তা দখল করেই বানানো হয়েছিল। এখন বাজার কর্তৃপক্ষ চেষ্টা করছেন আরও রাস্তা দখল করে বাজারের পরিধি বাড়াতে।

স্থানীয় বাসিন্দা রাকিব বাংলানিউজকে বলেন, এখনকার স্থায়ীয় বাজারটি আগে রাস্তা ছিল। এভাবে রাস্তায় বাজার বসিয়ে এখন স্থায়ী বাজার বানিয়ে ফেলেছে। ব্যবসায়ীরা এবারও চেষ্টা করছে রাস্তা দখল করে বাজার বাড়াতে।

মাছ বিক্রেতা সোহেল মিয়া বাংলানিউজকে বলেন, রাস্তা নয়, বাজার উচ্ছেদ করে রাস্তা বড় করা হয়েছে। এখন আমরা বসব কোথায়? তাই রাস্তাই এখন বাজার।

.

এদিকে হাতিরঝিল দিয়ে চলাচলকারী মাইক্রোবাসের রাস্তা দখল করে অবৈধ স্ট্যান্ডের বানানো সম্পর্কে চালকরা বলেন, রাজধানীর সব জায়গায়ই এমন স্ট্যান্ড আছে, আমরা করলে ক্ষতি কি? গাড়ি রাখলেও যানজট হয় না রাখলেও হয়!

ঐতিহ্যের নগরীতে যান-জটলায় স্থবিরতা!

বাংলাদেশ সময়: ১২৪৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৪, ২০১৮
এমএসি/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa