[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ৯ বৈশাখ ১৪২৫, ২২ এপ্রিল ২০১৮

bangla news

কালিয়াকৈরে সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দগ্ধ শেফালী মারা গেছেন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-১২-১৩ ৮:০২:৪৩ এএম
বিস্ফোরণের পর কারখানায় আগুন ধরে যায়। ছবি: বাংলানিউজ

বিস্ফোরণের পর কারখানায় আগুন ধরে যায়। ছবি: বাংলানিউজ

গাজীপুর: গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলায় একটি কারখানায় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে গুরুতর দগ্ধ শেফালী বেগম (৪০) মারা গেছেন। তার শরীরের ৭৫ শতাংশই পুড়ে গিয়েছিল।

বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) ভোরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেফালীর মৃত্যু হয়। মঙ্গলবার (১২ ডিসেম্বর) বিকেলে উপজেলার জামালপুর এলাকায় এফ এস কসমেটিকস লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠানের কারখানায় বিস্ফোরণ দগ্ধ হন শেফালী। তিনি উপজেলার পলাশতলী এলাকার আব্দুল মান্নানের স্ত্রী। 

প্রতিষ্ঠানটির শ্রমিকরা বাংলানিউজকে জানান, কারখানাটিতে বিভিন্ন প্রকার কসমেটিকস তৈরি করা হয়। বিকেলে সেখানে ৩৫ জন শ্রমিক কাজ করছিলেন। সাড়ে ৪টার দিকে কারখানায় বিকট শব্দে একটি গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হয়। এতে কারখানার ভেতরে আগুন ধরে  যায়। এসময় দৌড়ে কয়েকজন বের হলেও অনেক শ্রমিক আটকা পড়ে দগ্ধ হন। 

তাৎক্ষণিক ১০ জনকে উদ্ধার করে কালিয়াকৈর উপজেলার বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়। আর শেফালীসহ পাঁচজনকে ভর্তি করা হয় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে। 

কালিয়াকৈর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার করিরুল আলম বিষয়টি বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেছেন। আর ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) বাচ্চু মিয়া বার্ন ইউনিটে দায়িত্বরত চিকিৎসকের বরাত দিয়ে জানান, দগ্ধ সবার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

ঢামেকে ভর্তি পাঁচজনের মধ্যে শেফালী ছাড়া বাকি চারজন হলেন- ইসমত আরা (২৮), নাজমিন (২০) আব্দুর রহিম (৩০), ইমরান (২৮)।

চিকিৎসকরা জানান, বিস্ফোরণে ইসমত আরার ৫০ শতাংশ, নাজমীনের ৫৫ শতাংশ, আব্দুর রহিমের ৬০ এবং ইমরানের শরীরের পুড়েছে ৩০ শতাংশ।

বাংলাদেশ সময়: ০৮০০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৭
এজেডএস/এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa