ঢাকা, শনিবার, ৬ কার্তিক ১৪২৪, ২১ অক্টোবর ২০১৭

bangla news

অবশেষে সেই বখাটে ও তার বাবা কারাগারে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-১০-১২ ৩:৩৩:২২ পিএম
বখাটে হুজাইফ ইয়ামিন ও তার বাবা আমিনুর ইসলাম মীর, ছবি: আরিফ জাহান

বখাটে হুজাইফ ইয়ামিন ও তার বাবা আমিনুর ইসলাম মীর, ছবি: আরিফ জাহান

বগুড়া: বগুড়ার দুপচাঁচিয়ায় স্কুলছাত্রী রাফিজা আকতার সাথী আত্মহত্যার প্ররোচণার মামলার প্রধান আসামি বখাটে হুজাইফ ইয়ামিন (২০) ও তার বাবা আমিনুর ইসলাম মীরকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) দুপুরে জেলার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৪ এর বিচারক আবদুল্লাহ আল মামুনের আদালতে হাজির হয়ে তারা দু’টি মামলায় জামিনের জন্য আবেদন করেন।

পরে শুনানি শেষে আদালতের বিচারক তা নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

দুপুর আড়াইটার দিকে দুপচাঁচিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক বিষয়টি বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, দু’টি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা যথাক্রমে উপ-পরিদর্শক (এসআই) খায়রুল ইসলাম ও জাকির হোসেন জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দু’জনের দু’টি মামলায় পৃথকভাবে সাতদিন করে রিমান্ড আবেদন করেন। ১৫ অক্টোবর সেই আবেদন ওপর শুনানির দিন ধার্য রয়েছে।

এর আগে বখাটে হুজাইফ ইয়ামিনের অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে রোববার (০৮ অক্টোবর) সন্ধ্যায় নিজ বাড়িতে রাজিফা আত্মহত্যা করে। খবর পেয়ে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে।

এরপর অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত বখাটে হুজাইফ ইয়ামিনকে আটক করতে রাতেই হেরুঞ্জ গ্রামে অভিযান চালায়। এসময় গ্রামবাসী পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এতে পুলিশের পাঁচজন কর্মকর্তা আহত হন।

পরে অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে রাতে আবারো ওই গ্রামে অভিযান পরিচালনা করা হয়। পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে ২৬জন ব্যক্তিকে আটক করা হয়। বাকীদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এ ঘটনায় দু’টি পৃথক মামলা দায়ের করা হয়েছে। আত্মহত্যার প্ররোচণায় মেয়ের বাবা গোলাম রব্বানী বখাটে হুজাইফ ইয়ামিন ও তার বাবা আমিনুর ইসলাম মীরকে আসামি একটি মামলা করেন।

অপরদিকে দায়িত্বপালনে বাধা ও হামলার অভিযোগে পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রহিম ২৬জনের নাম উল্লেখসহ ৪০-৫০জনকে অজ্ঞাতপরিচয় আসামি করে আরেকটি মামলা করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫২৪ ঘণ্টা, অক্টোবর ১২, ২০১৭
এমবিএইচ/এএটি/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Loading...
Alexa