[x]
[x]
ঢাকা, শুক্রবার, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৭ নভেম্বর ২০১৭

bangla news

ট্যানারি শিল্পের কাজ দ্রুত শেষ করার আহ্বান

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৮-২১ ১:৪৯:৫৮ পিএম
ট্যানারি শিল্পের কাজ দ্রুত শেষ করার আহ্বান- ছবি: দীপু মালাকার

ট্যানারি শিল্পের কাজ দ্রুত শেষ করার আহ্বান- ছবি: দীপু মালাকার

ঢাকা: সাভারের ট্যানারি শিল্পের কাজ দ্রুত শেষ করার জন্য সরকার ও মালিক পক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোল (বাপা)।

সোমবার (২১ আগস্ট) সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) আয়োজিত ‘আসন্ন ঈদে সাভারের অসম্পূর্ণ ট্যানারি পার্কঃ বুড়িগঙ্গা ও ধলেশ্বরী অব্যাহত দূষণ’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলন এ দাবি জানায় সংগঠনটি।  

সংবাদ সম্মেলনটি যৌথভাবে আয়োজন করে বাংলাদেশ আন্দোলন (বাপা) ও বুড়িগঙ্গা রিভারকিপার।

বিশিষ্ট লেখক, কলামিস্ট ও গবেষক সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, দেশের রপ্তানি আয়ের বিরাট একটি অংশ আসে ট্যানারি শিল্প থেকে। তার পরেও সাভারের অবস্থিত ট্যানারি শিল্পের কাজ খুব ধীর গতিতে চলছে। এর ফলে ট্যানারি শিল্প থেকে অর্জিত রপ্তানি আয় এখন হুমকির মুখে। বিভিন্ন দেশের বায়ারা ধীরে ধীরে সরে যাচ্ছেন। তাই সাভারের ট্যানারি শিল্পের কাজ দ্রুত শেষ করার জন্য সরকার ও মালিক পক্ষের প্রতি আহ্বান জানাই।

কোরবানি ঈদের আগে সাভারের ট্যানারি শিল্পের অসম্পূর্ণ কাজ সম্পূর্ণ করার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, সাভারের ট্যানারি শিল্পের সলিড ওয়েস্ট কোথায় রাখা হবে এর কোনো ব্যবস্থা এখনো করা হয়নি। ট্যানারি শিল্পের বিভিন্ন ওয়েস্টের মাধ্যে পরিবেশে দূষণ হচ্ছে। কিন্তু এই দূষণ বন্ধে এখনো কোনো ব্যবস্থাগ্রহণ করা হয়নি।

আবুল মকসুদ বলেন, গত ১০ বছর ধরে আমরা ট্যানারি শিল্পের পরিবেশ দূষণ নিয়ে কথা বলে আসছি। কিন্তু এই কাজ তো সরকারকে নিজে থেকেই করার কথা ছিল। আমরা হাজারীবাগে গিয়ে দেখেছি এখনো অবৈধভাবে পরিবেশের ক্ষতি করে ট্যানারি চালু রয়েছে। হাজারীবাগের অনেক ট্যানারিতে বাসা বাড়ি থেকে বিদ্যুৎ ও অনেক আবার বিদ্যুৎ কোম্পানির সঙ্গে লিয়াজু রেখে কারখানা চালিয়ে যাচ্ছে। এ সব অবৈধ কারখান কাজ পরিবেশ রক্ষার্থে দ্রুত বন্ধ করতে হবে।

বুড়িগঙ্গা রিভারকিপার ও বাপার যুগ্ম-সম্পাদক শরীফ জামিল তারা লিখিত বক্তব্যে বলেন, অবিলম্বে ট্যানারির বর্জ্য থেকে বুড়িগঙ্গা ও ধলেশ্বরী নদীকে রক্ষা করতে হবে। সাভার ট্যানারি শিল্প স্থানান্তর করে উজানের ধলেশ্বরীকে দূষণ করা হচ্ছে। ফলে ধলেশ্বরী থেকে দূষিত পানি এসে  বুড়িগঙ্গাকেও দূষিত করছে। সাভারে ট্যানারি স্থানান্তরে বিলম্ব ও অসম্পূর্ণ পরিকল্পনার কারণে আজ এ অবস্থা হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি-- আগামী ঈদের পরপর নদী, চামড়া ও চামড়া শিল্প রক্ষায় সরকারকে বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। এছাড়া দেশের সব নদী ও জলাশয় দূষণ বন্ধে শিল্পকারখানাগুলোর বর্জ্য পরিশোধন ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন- বাপার যুগ্ম-সম্পাদক আলমগীর কবির এবং  বুড়িগঙ্গা রিভারকিপার ও বাপার যুগ্ম-সম্পাদক মিহির বিশ্বাস প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫০ ঘণ্টা, আগস্ট ২১, ২০১৭
এমএসি/জিপি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Loading...
Alexa