Alexa
ঢাকা, শুক্রবার, ২ ভাদ্র ১৪২৪, ১৮ আগস্ট ২০১৭

bangla news

লোকাল ট্রেনও যথাসময়ে

সেরাজুল ইসলাম সিরাজ, স্পেশাল করেসপেন্ডন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৮-১৩ ১০:৪৬:৫৭ এএম
রাজশাহী থেকে চিলাহাটির উদ্দেশে তিতুমীর এক্সপ্রেস ট্রেন- ছবি: বাংলানউজ

রাজশাহী থেকে চিলাহাটির উদ্দেশে তিতুমীর এক্সপ্রেস ট্রেন- ছবি: বাংলানউজ

তিতুমীর এক্সপ্রেস থেকে: রাজশাহী থেকে যথা সময়ে ছাড়লো ট্রেনটি। গন্তব্য সীমান্ত জেলা নীলফামারীর চিলাহাটি স্টেশন। 

পথে আব্দুলপুর, নাটোর, মাতনগর, আহসানগঞ্জ, সান্তাহার, আক্কেলপুর, জামালগঞ্জ, জয়পুরহাট, হিলি স্থলবন্দর,  বিরামপুর, ফুলবাড়ি, পার্বতীপুর, সৈয়দপুর, নীলফামারী ও ডোমারে যাত্রা বিরতি করবে। পথে কোনো বিড়ম্বনা না হলে দুপুর দেড়টায় পৌঁছে যায়।

রাজধানীর বাইরেও ট্রেনের এই নিয়মানুবর্তিতা মনের মধ্যে বেশ প্রশান্তি এলে দিলো সহকর্মীদের মধ্যে। এক সময় ট্রেন বিলম্বে ছাড়াটা রেওয়াজে পরিণত হয়েছিল, প্রতীকী অর্থে বলা হতো নয়টার ট্রেন কয়টায় ছাড়ে। কিন্তু সেই দিন এখন অনেকটাই অতীত। আঞ্চলিক ট্রেনগুলোও যথা নিয়মে চলছে।

বেশ লম্বা চওড়াই বলতে হবে ট্রেনটিকে। মোট ১৩টি বগি রয়েছে এতে। এর মধ্যে প্রথম শ্রেণির বগি একটি, যাতে আসন রয়েছে ২৪টি। আর শোভন বগি ১১টি যার একেকটিতে ১০৪টি করে আসন রয়েছে। সব মিলয়ে এক হাজার দু'শ চৌদ্দজন বসতে পারে।

তবে সব সময়েই নাকি ট্রেনটি ওভারলোড থাকে। পরিচালক মো. আজম বাংলানিউজকে জানান সব সময় পনেরো থেকে আঠার'শ পর্যন্ত যাত্রী যাতায়াত করে।

ট্রেনটিতে চমৎকার একটি খাবারের গাড়ি রয়েছে। যেখানে রেলওয়ের মেন্যু অনুযায়ী  গরম গরম খাবার তৈরি করা হচ্ছে।

ট্রেনটির পরিস্কার পরিচ্ছতা মোটামুটি সন্তোষজনক বলা চলে। তবে ছাড়ার ঘণ্টা খানেকের মধ্যে নোংরা করে ফেলেন যাত্রীরা। যাত্রীদের অভিযোগ হচ্ছে ময়লা ফেলার বিন নেই তাহলে ময়লা কোথায় ফেলব। কোনো এসি বগি নেই তিতুমীরে। যে কারণে অনেকে ইচ্ছা থাকলেও আরামদায়ক ট্রেন ভ্রমণের স্বাদ নিতে পারছে না এই রুটের যাত্রীরা। বগি যুক্তকরার জোর দাবি জানিয়েছেন অনেকেই।

পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা মোটামুটি সন্তোষজনক হলেও তৃতীয় লিঙ্গের (হিজড়া) লোকেদের উৎপাত ছিলো অসহ্যজনক, তারা  রাজশাহী স্টেশন থেকে ট্রেন ছাড়ার কয়েক মিনিট আগে থেকেই উৎপাত শুরু করে। তাদের একজন চলে গেলে হানা দেয় অন্যজন।

এছাড়া ভিক্ষুকের আনাগোনা ছিলো উল্লেখ করার মতো, সহকর্মী আসিফ আজিজ বললেন,  জীবনে অনেক ট্রেন ভ্রমণ করেছি, কিন্তু কোনো ট্রেনে এতো ভিক্ষুক দেখিনি। ১২টি বগিতে প্রায় অর্ধশতাধিক ভিক্ষুক দেখা গেছে। নানান কৌশল প্রয়োগ করতে দেখা গেছে।

এ রুটে মোট দুটি ট্রেন চলাচল করে। তিতুমীর সকাল ৬.২০টায় চিলাহাটির উদ্দেশ্যে যাত্রা করে, দেড়টায় পৌঁছে,  দু'টায় ফিরতি যাত্রা শুরু করে। অপর ট্রেন বরেন্দ্র এক্সপেস সকালে চিলাহাটি থেকে রাজশাহীর পথে যাত্রা করে দুপুর আড়াইটায় ফিরে যায়।

বাংলাদেশ সময়: ১০৩৮ ঘণ্টা, আগস্ট ১৩, ২০১৭
এসআই/বিএস 
 

অন্তর্ভুক্ত বিষয়ঃ ট্রেন

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

You May Like..
Alexa