ঢাকা, শুক্রবার, ৬ আশ্বিন ১৪২৪, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭

bangla news

কলেজ এমডিকে লাঞ্ছনার ঘটনা অস্বীকার মেয়র আরিফের

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৭-১৭ ৮:২১:০১ পিএম
ব্রিফ করছেন আরিফুল হক

ব্রিফ করছেন আরিফুল হক

সিলেট: নগরীর ইউমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড‍া. শাহ আব্দুল আহাদকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ অস্বীকার করলেন সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) মেয়র সিসিক আরিফুল হক চৌধুরী।

তিনি বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে ও উন্নয়ন কাজে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির লক্ষ্যে একটি মহল আমার বিরুদ্ধে বদনাম রটাচ্ছে। মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে।

সোমবার (১৭ জুলাই) সন্ধ্যায় সিসিকের অস্থায়ী কার্যালয়ে নিজ কক্ষে প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, সরকারি হেফাজত থেকে (কারাগার) বের হওয়ার পর অসমাপ্ত উন্নয়ন তথা মহানগরীর রাস্তাঘাট সম্প্রসারণ, ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নে কাউন্সিলরদের নিয়ে কাজ করছি।

নগরীর মিরবক্সটুলা এলাকায় ইউমেন্স মেডিকেল কলেজসহ বেশ কয়েকটি ক্লিনিক রয়েছে। নগরীর অন্যান্য সড়কের ন্যায় ওই সড়কটি সম্প্রসারণ করণে বরং বেশি লাভবান হবে সেবা দানকারী এই প্রতিষ্ঠানগুলো। মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সীমানা প্রচীর ভাঙার ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে। কিন্তু ওইদিন সিসিকের প্রকৌশলীরা সেখানে গেলে তারা কাজে বাধা দেন।

মেয়র বলেন, কাউন্সিলরদের নিয়ে এ বিষয়ে আলোচনা করতে গেলে ন্যূনতম সম্মান দেখায়নি মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ। তারা টেলিফোনে অন্যকারো সহযোগিতা চান এবং বলেন, মেয়র লোকজন নিয়ে এসেছেন।

হাসপাতালের এমডির সঙ্গে তাঁর এ ধরণের কোনো আচরণ ঘটেনি দাবি করেন মেয়র। তিনি বলেন, নগরের অভিভাবক হিসেবে তারা আমাকে সম্মান না দেখালেও চিকিৎসকদের আমি সব সময় সম্মান করি। ব্যক্তিগতভাবে আমার পরিবার চিকিৎসকদের কাছে ঋণী। তাই তারা ভুল করলেও অভিভাবকের চেয়ারে বসে আমি ভুল করতে পারি না।

নগরীর উন্নয়ন ঠেকাতে এবং আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য ভুল ব্যাখ্যা দেওয়া হচ্ছে দাবি করেছেন মেয়র আরিফ।

এর আগে বিকেল সোয়া ৩টার দিকে মহানগরীর রাস্তা সম্প্রসারণ নিয়ে বাকবিতণ্ডার জের ধরে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর হাতে নগরীর ইউমেন্স মেডিকেল কলেজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. শাহ আব্দুল আহাদকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ ওঠে।

উদ্ভুত পরিস্থিতিতে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী সিলেট সিটি করপোরেশন মিলনায়তনে তাৎক্ষণিক প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করে ঘটনার ব্যাখা দেন।

বাংলাদেশ সময়: ২০১৫ ঘণ্টা, জুলাই ১৭, ২০১৭
এনইউ/বিএস

 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Alexa