[x]
[x]
ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩০ কার্তিক ১৪২৪, ১৪ নভেম্বর ২০১৭

bangla news

শ্রমিকের ভালোবাসা কেনা যায় না: বসুন্ধরা চেয়ারম্যান

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৭-১৭ ৫:২২:০৩ এএম
বসুন্ধরা গ্রুপের (বিজি) চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান

বসুন্ধরা গ্রুপের (বিজি) চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান

ঢাকা: দেশের বৃহৎ শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের (বিজি) চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান বলেছেন, শ্রমিকের ভালোবাসা কেনা যায় না। এটা মানুষের অন্তরের অন্ত‍ঃস্থল থেকে আসে। এ ভালোবাসা আমি পেয়েছি। এজন্য নিজেকে অত্যন্ত সফল এবং গর্বিত ভাবি আমি।

রোববার (১৬ জুলাই) রাতে রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড সংলগ্ন ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি, বসুন্ধরার  (আইসিসিবি) নবরাত্রি হলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

‘বসুন্ধরা টিস্যু ট্রেড স্কিম ২০১৬’ এর সাফল্য উদযাপন উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি আহমেদ আকবর সোবহান বলেন, ১৯৯২ সালে আমি বাংলাদেশে প্রথম সিমেন্ট বের করি। কারখানা করার পর আমি এক বা দু-বার সেখানে গিয়েছি। তারপর আজ পর্যন্ত আর যাইনি। মিলের যত শ্রমিক আছে তারা মনে করে মিলের মালিক আমি, আমরা সবাই। একটি দিনের জন্যও কোনো সমস্যা হয় নাই।
 
‘এটাই আমাদের প্রতি মানুষের ভালোবাসা, আমাদের শ্রমিকদের ভালোবাসা। এটা কিন্তু কেনা যাবে না। এটা মানুষের অন্তরের অন্ত‍ঃস্থলের ভালোবাসা। আপনারা আমাদের দুর্দিনে জড়িত হয়েছেন ইনশাল্লাহ সুদিনেও থাকবেন। আজীবন আমাদের পাশে থাকবেন। আপনাদের সবার জন্য দোয়া রইলো।’
 
বিজি চেয়ারম্যান বলেন, আমার সৌভাগ্য ২০০০ সালে আমরা যখন টিস্যু পেপার উৎপাদন শুরু করি, তখন দিনে প্রোডাকশন ছিল ১ টন। আজ থেকে প্রতিদিন আমাদের টিস্যু উৎপাদন হবে ২০০ টন।

‘আমি আশা করছি আগামী ৫ বছরের মধ্যে আমরা প্রতিদিন ১ হাজার টন টিস্যু উৎপাদন করবো। এর সমস্ত অবদান আপনাদের। আমি শুধু নেপথ্যে থেকে কিছু কাজ করি,’ যোগ করেন আহমেদ আকবর সোবাহান।
 
কর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনাদের উৎসাহ উদ্দীপনা এবং বসুন্ধরা গ্রুপের সমস্ত পণ্যের প্রতি আপনাদের যে ভালোবাসা সে ভালোবাসার কারণে বাংলাদেশে তিনটি গ্রুপের নাম বললে বসুন্ধরা গ্রুপের নাম আসবে। এসব কিছুর জন্য আপনাদের অবদান সবচেয়ে বেশি।

‘আমি মনে করি যারাই বসুন্ধরা গ্রুপের সঙ্গে সম্পৃক্ত তারাই এ  পরিবারের একজন সদস্য। আমাদের ভালো মন্দ সবকিছুর সঙ্গে আপনারা জড়িত। আমাদের কোনো মন্দ দেখলে ব্যথা পাই, ভালো দেখলে খুশি হই। গর্বে নিজেদের বুক ভরে যায় আমরা বসুন্ধরা গ্রুপের সদস্য।’
 
বসুন্ধরা গ্রুপের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমরা এ মাসেই প্যান্ট সিস্টেম বেবি ডায়াপার, মশার কয়েল ও কিছু স্টেশনারি পণ্য বাজারে আনতে কাজ করছি।

এ সময় কয়েকজন রিটেইলারের অভিযোগ পরামর্শের বিষয়ে বক্তব্য দেন তিনি।
 
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহান ও বসুন্ধরা পেপার মিলের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (সেলস) গোলাম সারওয়ার নওশাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
 
সাফল্য উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানটির ঢাকা অঞ্চলের প্রায় ৩ হাজার রিটেইলার ও ডিস্ট্রিবিউটর সমবেত হন। অনুষ্ঠানে র্যাফেল ড্র’য়ে আকর্ষণীয় পুরস্কার দেওয়া হয়।

সব শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ছিলো কণ্ঠশিল্পী কর্ণিয়া, মিরাক্কেল খ্যাত কৌতূক শিল্পী আবু হেনা রনি, নৃত্যভূমি পরিবেশিত নাচ এবং ডিজে পরীর মনোমুগ্ধকর পরিবেশনা।
 
বাংলাদেশ সময়: ০৫১৮ ঘণ্টা, জুলাই ১৭, ২০১৭
এসই/এমএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Loading...
Alexa