ঢাকা, সোমবার, ১ কার্তিক ১৪২৪, ১৬ অক্টোবর ২০১৭

bangla news

অবশেষে উদ্ধার হলেন মুসা ইব্রাহীম

হুসাইন আজাদ, অ্যাসিস্ট্যান্ট আউটপুট এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৬-১৯ ৮:০৮:৩৯ এএম
 উদ্ধার হওয়ার পর সহ-অভিযাত্রীদের সঙ্গে মুসা ইব্রাহীম

উদ্ধার হওয়ার পর সহ-অভিযাত্রীদের সঙ্গে মুসা ইব্রাহীম

ঢাকা: অবশেষে সুস্থ ও অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে পাপুয়া নিউ গিনিতে ওশেনিয়ার সর্বোচ্চ পর্বত মাউন্ট কার্সটেঞ্জের চূড়া জয় করতে গিয়ে বেজ ক্যাম্পে আটকে পড়া অভিযাত্রী মুসা ইব্রাহীম ও তার দুই ভারতীয় সহ-অভিযাত্রীকে।

প্রায় সাতদিনের মতো আটকে থাকার পর সোমবার (১৯ জুন) সকালে হেলিকপ্টারে করে তিন অভিযাত্রীকে ওই বেজ ক্যাম্প থেকে সমতলে ফিরিয়ে আনা হয়। 

আটকে পড়া এই তিন অভিযাত্রীকে উদ্ধারের তৎপরতায় ছিল আসিয়ান দপ্তর এবং ইন্দোনেশিয়ায় বাংলাদেশ ও ভারতীয় দূতাবাস। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এই উদ্ধার তৎপরতা স্বয়ং তদারকি করেন।

হেলিকপ্টারে তাদের উদ্ধারের তথ্যটি দিয়ে ভোর ৫টা ৪৪ মিনিটে একটি ফেসবুক পোস্ট দেন প্রতিমন্ত্রী। এরপর ৫টা ৫৬ মিনিটে আরও একটি ফেসবুক পোস্ট দেন শাহরিয়ার আলম। সেখানে তিনি লেখেন, সত্যরূপ সিদ্ধার্থ ও মুসা ইব্রাহীম, তারা হেলিকপ্টার থেকে আমাকে লিখেছেন, “অনেক গল্পই হয়তো বলা হবে না, হয়তো কখনো জানানোও হবে না...কিন্তু আপনি আমাদের হৃদয়ে থাকবেন...।’ এইবার আমি ঘুমাতে গেলাম। তাদের আর মিনিট দশেক লাগবে সমতলে পৌঁছাতে। সবাই ভালো থাকুন।”

তিন অভিযাত্রীকে উদ্ধার করে সমতলে নিয়ে আসার পর ৬টা ৩৭ মিনিটে তাদের তোলা একটি ছবি পোস্ট দেন মুসা ইব্রাহীমের বন্ধু সাংবাদিক ও অ্যাক্টিভিস্ট আশীফ এন্তাজ রবি।

তার আগে ৬টা ৬ মিনিটে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে মুসা ইব্রাহীম লেখেন, ‘এই মাত্র তিমিকা (ইন্দোনেশিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ) এয়ারপোর্টে পৌঁছালাম। আল্লাহ মহান। আমরা নিরাপদে ফিরেছি। দেখা হবে ইনশাল্লাহ।”

তিমিকা এয়ারপোর্ট থেকে মুসা ইব্রাহীমদের নিয়ে যাওয়া হবে পাপুয়া নিউ গিনিতে। তারপর তাদের নিয়ে যাওয়া হবে ইন্দোনেশিয়ার বালি শহরে। সেখানকার আনুষ্ঠানিকতা সেরে মুসা ইব্রাহীম শিগগির দেশে ফিরবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

৪ হাজার ৮৮৪ মিটার উঁচ্চতার মাউন্ট কার্সটেঞ্জের চূড়া জয় করতে গত ৩০ মে ঢাকা ছাড়েন মুসা ইব্রাহীম। অভিযানে তার সহ-অভিযাত্রী হিসেবে ছিলেন ভারতের সত্যরূপ সিদ্ধান্ত এবং নন্দিতা। 

১ জুন থেকে শুরু হওয়া তাদের এ অভিযান শেষ হওয়ার কথা ১৮ জুন। ১৩ জুন কার্সটেঞ্জের চূড়া জয় ফেরার পথে বৈরী আবহাওয়ার মুখে ওই বেজ ক্যাম্পে আটকা পড়েন তিন অভিযাত্রী। এরমধ্যে শেষ হয়ে যায় তাদের সঙ্গে থাকা খাবারও। এই প্রেক্ষাপটে তাদের উদ্ধারে তৎপর হয় বাংলাদেশ ও ভারতীয় দূতাবাস এবং আসিয়ান দপ্তর।

প্রথমে শনিবার (১৭ জুন) মুসা ও তার দুই সহযাত্রীকে উদ্ধারে বেজ ক্যাম্পটিতে হেলিকপ্টার পাঠানোর চেষ্টা চালানো হয়। এরপর রোববারও (১৮ জুন) তাদের উদ্ধারে দ্বিতীয় দফা চেষ্টা চালানো হয়। বৈরী আবহাওয়ার কারণে দু’টি চেষ্টাই ব্যর্থ হয়। অবশেষে সাতদিনের মাথায় সোমবার তিন অভিযাত্রীকে উদ্ধার করা হলো।

মুসা ইব্রাহীম প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে এভারেস্টের চূড়ায় লাল-সবুজের পতাকা ওড়ান। তিনি এখন সাত মহাদেশের সাত শীর্ষ চূড়া জয়ের অভিযানে নেমেছেন। সেই অভিযানেরই অংশ হিসেবে কার্সটেঞ্জ জয়ে গিয়েছিলেন মুসা।

বাংলাদেশ সময়: ০৮০২ ঘণ্টা, জুন ১৯, ২০১৭/আপডেট ০৮৩০ ঘণ্টা
আরআই/এইচএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Loading...
Alexa