ঢাকা, রবিবার, ২৯ আশ্বিন ১৪২৪, ১৫ অক্টোবর ২০১৭

bangla news

১৫ মিনিটের রাস্তা এখন দুই ঘণ্টা!

মনি আচার্য্য, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৬-১৮ ৫:৪৭:৫২ পিএম
খোঁড়াখুঁড়িতে রাস্তার বেহাল দশা/ছবি: শাকিল আহমেদ

খোঁড়াখুঁড়িতে রাস্তার বেহাল দশা/ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: গত এক বছর ধরে রাজধানীর মিরপুরের বিভিন্ন এলাকায় চলছে মেট্রোরেলের কাজ। পাশাপাশি রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি করে ওই এলাকায় একযোগে বিদ্যুৎ বিভাগ, ওয়াসা, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) বিভিন্ন সেবামূলক লাইন স্থানান্তরের কাজ চলছে।

ফলে রাজধানীর ব্যস্ততম এলাকাটি বেহাল দশা । এর মধ্যে মিরপুর-১২ নম্বর পল্লবী এলাকার অবস্থা বেশি খারাপ।মিরপুর-১০ নম্বর গোলচত্বর থেকে সাড়ে ১১ হয়ে মিরপুর-১২ নম্বর পল্লবী মোড় পর্যন্ত দুইপাশে খোঁড়াখুঁড়িতে রাস্তার বেহাল দশা। এ কারণে গত এক বছর ধরে মিরপুর সাড়ে ১১ থেকে ১২ নম্বর পর্যন্ত সড়কটি ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ভোগান্তির শেষ নেই স্থানীয় বাসিন্দা ও এ এলাকায় প্রতিনিয়ত যাতায়াত করা মানুষদের।

রোববার (১৮ জুন) সকালে সরেজমিনে দেখা যায়, রাজধানীর মিরপুর-১০ থেকে ১২ নম্বর পর্যন্ত পুরো এলাকায় খোঁড়াখুঁড়ি করে চলছে রাস্তা সংস্কারের কাজ। এছাড়া সংস্কার কাজে ব্যবহৃত জিনিসপত্র পড়ে রয়েছে যেখানে-সেখানে । এছাড়া রাস্তার দুইপাশেই পড়ে রয়েছে ডিএনসিসি’র ময়লা-আবর্জনার স্তূপ।
খোঁড়াখুঁড়িতে রাস্তার বেহাল দশা/ছবি: শাকিল আহমেদপল্লবীর বাসিন্দা সবুজ আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, গত এক-দেড় বছর ধরে চরম ভোগান্তিতে আমরা দিন কাটাচ্ছি। রাস্তার দুই পাশে ময়লা আবর্জনা ও খোঁড়াখুঁড়ির কারণে প্রায় সারা বছরই যানজট লেগে থাকে। এ কারণে মিরপুর-১২ থেকে ১০ নম্বর যেতে ১৫ মিনিটের রাস্তা প্রায় ২ ঘণ্টা লাগে।

ওই এলাকার রিকশাচালক ফরিদ হোসেন বলেন, রাস্তা কাটার জন্য পল্লবীতে একবার ঢুকলে আর বের হওয়া যায় না। এ এলাকায় গাড়ি চালানোর কোনো পরিবেশ নেই। তাই, আমরা সহসা মিরপুর-১২ নম্বর রোডে যেতে চাই না।

তবে রাস্তা সংস্কার কাজের সঙ্গে জড়িতরা বলছেন, রাস্তা সংস্কার কাজ প্রায় শেষের দিকে। দ্রুত কাজ শেষ করার জন্য কর্মীসংখ্যা বাড়ানো হয়েছে।
খোঁড়াখুঁড়িতে রাস্তার বেহাল দশা/ছবি: শাকিল আহমেদঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নির্বাহী প্রকৌশলী সাইদুর রহমান এ বিষয়ে বলেন, আমাদের কাজে এলাকাবাসীর কিছুটা ভোগান্তি হচ্ছে এটা জানি। তবে, আমরা কাজ দ্রুত শেষ করতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করি, দ্রুত শেষ হয়ে যাবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩৬ ঘণ্টা, জুন ১৮, ২০১৭
এমএ/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Loading...
Alexa