[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ৩ পৌষ ১৪২৪, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭

bangla news

বরগুনা-বেতাগী সড়কের বেহাল দশা

মীর জামাল, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৩-২১ ৪:৪০:০১ এএম
বেহাল সড়ক, ছবি: বাংলানিউজ

বেহাল সড়ক, ছবি: বাংলানিউজ

বরগুনা: যতদুর চোখ যায় রাস্তায় খানাখন্দে ভরা। জেলা শহর বরগুনা থেকে বেতাগী উপজেলায় চলাচলের ৩৮ কিলোমিটার সড়কই প্রায় বেহলা দশা। এতে সাধারণ মানুষের বেড়েছে দুভোর্গ, আছে দুর্ঘটনায় প্রাণনাশের আশঙ্ক‍া।

বিশেষ প্রয়োজন না হলে জেলা শহরে আসতে রাজি চান না বেতাগী উপজেলাবাসী। একদিকে ভাঙা রাস্তা, অন্যদিকে দুর্ঘটনার শঙ্কা। এমন ঝুঁকি নিয়ে চলছে স্থানীয়দের বিভিন্ন গন্তব্যে ছুটে চলা।

সোমবার (২০ মার্চ) বিকেলে বরগুনা সদর উপজেলার ২ নম্বর গৌরিচন্না ইউনিয়েনের সোনার বাংলা নামে স্থানে সরেজমিনে গিয়ে রাস্তা খানাখন্দের দৃশ্য ধরা পরে বাংলানিউজের ক্যামেরায়।

বেতাগী থেকে বরগুনার উদ্দেশে আসা সুমাইয়া খানম, শরীফ ফরাজী, ছালাম মিয়াসহ কয়েকজন বাসযাত্রী বাংলানিউজকে জানান, বরগুনা-বেতাগী মহাসড়কের বেহাল দশার কারণে মারাত্মক ভোগান্তিতে পড়েছেন তারা। আর সড়কের খারাপ অবস্থার কারণে জেলা শহরের সঙ্গে বেতাগী উপজেলার যোগাযোগ প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। দীর্ঘদিন সড়কটি মেরামত না করায় বর্তমানে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

খানা-খন্দে ভরা সড়কে গন্তব্যে ছুটে চলা, ছবি: বাংলানিউজবরগুনা-বেতাগী সড়কের রেন্ট এ মোটরসাইকেল চালক ইউনুস মির জানান, বরগুনা থেকে বেতাগী ৩৮ কিলোমিটার সড়কটি সম্পূর্ণ খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। সড়কের খারাপ অবস্থার কারণে উপজেলা থেকে মোটরসাইকেলে আসা যাত্রীদের দুর্ভোগ এখন চরম পর্যায়ে উঠেছে। জেলা শহরে আসলে রাস্তার ঝাঁকুনিতে অসুস্থ হয়ে পড়ছে অধিকাংশ যাত্রী।

পরিবহন ও পণ্য পরিবহন চালকরা বাংলানিউজকে জানান, সড়কের খানা-খন্দের কারণে গন্তব্যে পৌঁছাতে সময় লাগছে তিনগুণ, প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা।

বরগুনা সড়ক ও জনপদের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. জহিরুল ইসলাম বাংলানিউজকে জানান, সড়কটির অবস্থা খুবই নাজুক। তবে খুব শিগগিরই সড়কটির মেরামতের কাজ শুরু করবে সড়ক ও জনপদ বিভাগ।

দুর্ঘটনা এড়াতে বরগুনা-বেতাগী সড়কটি বর্ষার বৃষ্টি শুরু হবার আগেই সংস্কার কাজ শুরু করার জরালো দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

বাংলাদেশ সময়: ০৪৩৭ ঘণ্টা, মার্চ ২১, ২০১৭
টিআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Alexa