[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৯ নভেম্বর ২০১৭

bangla news

মাশরা‌ফিকে রাইড দি‌য়ে ঢাকায় চালু হলো উবারম‌টো

সা‌ব্বির আহ‌মেদ, সি‌নিয়র ক‌রেসপ‌ন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-১১-১৪ ১১:৫৩:১১ এএম
উবারম‌টো’র প্রথম যাত্রী মাশরাফি বিন মর্তুজা।

উবারম‌টো’র প্রথম যাত্রী মাশরাফি বিন মর্তুজা।

ঢাকা: ঢাকায় উবা‌রের মোটরসাই‌কেল 'উবারম‌টো' চালু হ‌য়ে‌ছে। প্রথম যাত্রী হি‌সে‌বে উবারম‌টো’র রাইড নেন‌ বাংলাদেশ জাতীয় ক্রি‌কেট দ‌লের অ‌ধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) সকাল সা‌ড়ে ১০টায় চালু হয় উবারম‌টো। এর মধ্য দিয়ে উবা‌রের একই অ্যা‌পসে ট্যা‌ক্সির পাশাপা‌শি মোটরসাই‌কেল ফিচার‌টিও যুক্ত হ‌লো।

প্রথম রাইড নেওয়ার পর ক্রি‌কেট তারকা মাশরা‌ফি ব‌লেন, ‘রাইড নি‌য়ে আ‌মি খু‌শি। যানজটে ব‌সে না থে‌কে দ্রুত আসতে পারলাম।  পার্টনার আমা‌কে হেল‌মেট পর‌তেও উৎসা‌হিত করলেন’।  

অ্যাপস্ সংশ্লিষ্টরা জানান, এতোদিন ঢাকায় শুধু উবারে কার-ট্যাক্সি মিলতো। এখন থেকে মোটরসাইকেলও মিলবে। উবারমটোতে বেইস ফেয়ার ৩০ টাকা। ট্রিপের সময় প্রতি মিনিট ১ টাকা ও প্র‌তি কি‌লোমিটারের ভাড়া ১২ টাকা।

সরকার রাইড শেয়ারিং নীতিমালা প্রণয়নের আগেই এ নিয়ে উবারমটোসহ ৫টি সক্রিয় মোটরসাইকেল রাইড শেয়ারিং অ্যাপস্‌ চলছে ঢাকায়।

গত ফেব্রুয়ারি মাসে ভারতের হায়দ্রাবাদ শহরে প্রথম মোটরাসাইকেল রাইড শেয়ার সেবা দেওয়া শুরু করে উবার। পরের মাসে বেঙ্গালুরুতে চালু হয়। এর আগে গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে ব্যাংককে উবার ‘মোটরসাইকেল ট্যাক্সি সার্ভিস’ চালু করে। কিন্তু ভারত ছাড়া উবারমটো আর কোথাও ততোটা জায়গা করে নিতে পারেনি।

ঢাকায় গত বছরের ২২ নভেম্বর চালু হয় আন্তর্জাতিক অন ডিমান্ড ট্যাক্সি সার্ভিস উবার। পরের মাস ডিসেম্বরে চালু হয় ‘পাঠাও’। দুই সপ্তাহ আগে কিছুটা বাড়তি ভাড়ায় ‘পাঠাও কারস’ নামে একই অ্যাপসে চালু হয়েছে ট্যাক্সি সার্ভিসও।

বাংলাদেশে প্রথম মোটরসাইকেলে রাইড শেয়ারিং শুরু হয় গত বছরের ০৭ মে। তখন ‘শেয়ার এ মোটরসাইকেল (স্যাম) মোটরসাইকেল রাইড শেয়ারিং ধারণা নিয়ে আসে। কিন্তু শুরুতেই বিআরটিএ’র নিষেধাজ্ঞায় পড়ে কার্যক্রম শিথিল রাখে ‘স্যাম’। এর মাঝে স্যাম-এর প্রায় ২০ শতাংশ বেশি ভাড়া নির্ধারণ করে মোটরসাইকেল রাইড শেয়ারিং শুরু করে পাঠাও। বাইকার বেশি থাকায় জনপ্রিয়তাও পায় তারা।

মাসখানেক আগে থেকে পাঠাও-এর সমান ভাড়া দিয়ে ফের প্রতিযোগিতায় নেমেছে স্যাম।

এখন ঢাকায় সক্রিয়ভাবে মোটরসাইকেল রাইড শেয়ারিং করতে দেখা যাচ্ছে  ‘পাঠাও’, ‘স্যাম’ ‘মুভ’ ও ‘বাহন’কে। এর মধ্যে অফার আর বিভিন্ন সুবিধার কারণে স্যাম ও পাঠাও বেশি ব্যবহৃত হতে দেখা যাচ্ছে। বাকি অ্যাপস্‌গুলোর বাইক সব সময় পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ রয়েছে যাত্রীদের।

বাংলাদেশ সময়: ১১৫৩ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৪, ২০১৭
এসএ/এএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Loading...
Alexa