জিলকদ মাসের আমল
[x]
[x]
ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৪ আগস্ট ২০১৮
bangla news

জিলকদ মাসের আমল

ইসলাম ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৭-১৩ ৬:১৬:১৬ পিএম
ইবাদত/প্রতীকী ছবি

ইবাদত/প্রতীকী ছবি

ঢাকা: আরবি মাসগুলোর মধ্যে অন্যতম শাওয়াল মাস প্রায় শেষ। এরপর আসবে হিজরি ক্যালেন্ডারের এগারোতম মাস জিলকদ। এ মাসও খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেননা ঈদ-উল-ফিতর ও ঈদ উল আজহার মধ্যে জিলকদ মাসের অবস্থান।

জিলকদ শব্দের অর্থ স্থির হওয়া বা বিশ্রাম নেওয়া। জিলকদ মাসকে বিশ্রামের মাস বলা হয়, কেননা এ মাসের আগের চার মাস ও পরের দুই মাস ইবাদতে ব্যস্ত থাকতে হয়। এ কারণে জিলকদ মাসে মুসল্লিরা বিশ্রামের সুযোগ পায়। জিলকদের মাসেরও বেশ কিছু আমল রয়েছে।

বাংলানিউজের পাঠকদের জন্য জিলকদ মাসের আমল সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলো-

জিলকদ মাসের পর জিলহজ মাস। তাই এ মাসে হজ ও কোরবানির প্রস্তুতি নেয়া ভালো। এছাড়াও জিলহজ ও মহররম মাসের প্রস্তুতি হিসেবে নফল রোজা করা। এ মাসের ১, ১০, ২০, ২৯ ও ৩০ তারিখে নফল রোজা পালন করা। জিলকদ মাসে সুন্নত রোজাও পালন করা। এ মাসের ১৩, ১৪ ও ১৫ তারিখে (আদি পিতা প্রথম নবী হজরত বাবা আদম আ.) আইয়ামে বিদের সুন্নত রোজা রাখা। প্রত্যেক শুক্রবার নফল রোজা পালন করা। এছাড়াও প্রতি সপ্তাহের সোম ও বৃহস্পতিবার সুন্নতে নববি রোজা রাখা।

প্রতিদিন বেশি বেশি কোরআন তেলওয়াত করা খুবই ভালো। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের পাশাপাশি বেশি বেশি নফল নামাজ (তাহাজ্জুদ, ইশরাক, চাশত বা দুহা, জাওয়াল ও আউওয়াবিন) আদায় করা।

বাংলাদেশ সময়: ১৬১২ ঘণ্টা, জুলাই ১২, ২০১৮
এএইচ/এসএইচ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ইবাদত

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa