[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ১০ আষাঢ় ১৪২৫, ২৪ জুন ২০১৮

bangla news

ওয়ারিশ বন্টনে নারীকে ঠকানো যাবে না, পীর সাহেব চরমোনাই

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৩-১০ ৭:১০:৫৮ পিএম
ওয়ারিশ বন্টনে নারীকে ঠকানো যাবে না, পীর সাহেব চরমোনাই

ওয়ারিশ বন্টনে নারীকে ঠকানো যাবে না, পীর সাহেব চরমোনাই

বরিশাল: বিশেষ মোনাজাতের মধ্য দিয়ে তিন দিনব্যাপী চরমোনাইয়ের বাৎসরিক মাহফিল শেষ হয়েছে।

মাহফিলে শেষে শনিবার (১০ মার্চ) সকাল ৯টায় বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন হজরত মাওলানা মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করিম পীর সাহেব চরমোনাই।

মোনাজাতে বিশ্ব মানবতার মুক্তি, দেশ-জাতির উন্নয়ন ও সমৃদ্ধি ও সমগ্র মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ কামনা করেন তিনি।

এর আগে বাদ ফজর বয়ানে তিনি বলেন, নিজের মধ্য থেকে বড়ত্ব কমাতে হবে। আপনারা নিজেদের মধ্য থেকে অহংকার পরিহার করুন। চরমোনাই তরিকার আল্লাহর কুতুবগণ এই দ্বীনি মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেছে শুধুমাত্র পথভোলা মানুষদের  আল্লাহর সঙ্গে জুড়িয়ে দেওয়ার উদ্দেশে। জীবন চলার পথে অহংকার ও গর্ব পরিহারের আহবান জানিয়ে পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, অহংকার করলে ধ্বংস অনির্বায। এসব থেকে অবশ্যই দূরে থাকতে হবে।

বয়ানে  উত্তরাধিকার বন্টনের ক্ষেত্রে নারীদের সম্পত্তি সঠিকভাবে বন্টন করার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, অনেকে আছে যারা ছেলেদের সব সম্পত্তি লিখে দেয়। এটা ঠিক না। ছেলে যেমন তার ভাগ পাবে, মেয়েও তার পিতার সম্পত্তির ভাগ পাবে। এগুলো সঠিকভাবে আদায় করতে হবে। অন্যথায় আল্লাহর কাছে জাবাবদিহি করতে হবে। এ বিষয়ে তিনি বিশেষ গুরুত্বারোপ করেন। 

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই আরও বলেন, অনেকে চরমোনাই পছন্দ করে না। কারণ তারা রাজনীতি করে। আমি বলবো, পীর হয়ে যদি রাজনীতি না করি, তাহলে তো পেটনীতি করতে হবে। আমরা চাইলেও তো খানকায় বসে থাকতে পারতাম। সব দলের লোকেরা আমাদেরকে ভালবাসতো, হাদিয়া দিতো। 

তিনি বলেন, রাজনীতির মাঠেও যদি আমরা ধান্দাবাজির রাজনীতি করতাম, তাহলে বিএনপি-আওয়ামী লীগ আমাদেরকে বিশ-ত্রিশটা আসন দিতো। আমরা ইবাদতের নিয়তে রাজনীতি করি বলে ওসব নিয়ে আমরা চিন্তা করি না। আমাদের সাধ্য অনুপাতে দ্বীন প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করে যাচ্ছি। ফলাফল আল্লাহর হাতে।

তিনি আরও বলেন, ভোটের সময় আমাদের সামনে বিভিন্ন শ্লোগান আসে। কিন্তু আপনি একজন মুসলমান হিসেবে ইসলামের পক্ষে থাকবেন, এটাই ঈমানের দাবি। এরপর পীর সাহেব চরমোনাই ঘোষণা করেন, আগামী নির্বাচনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ইনশাআল্লাহ ৩০০ আসনেই হাতপাখা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবে।

৭ মার্চ শুরু হওয়া মাহফিল এই মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হলো। মাহফিলে দেশ-বিদেশের শীর্ষস্থানীয় উলামায়ে কেরাম যোগদান করেন। মাহফিলের তিন দিন শরিয়ত, মারেফাত এবং ইসলামের বিভিন্ন আহকাম সম্পর্কে বয়ান করেন চরমোনাই পীর, চরমোনাই দরবারের খলিফা ও দেশবরেণ্য আলেমরা। 

বাংলাদেশ সময় : ১৯১০ ঘন্টা, মার্চ ১০, ২০১৮
এমএস/এমএইউ/ 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

ইসলাম বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa