[x]
[x]
ঢাকা, শনিবার, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৫ নভেম্বর ২০১৭

bangla news

যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম প্রবেশে ফের নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছেন ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০২-১৭ ৪:১১:১৯ পিএম
ডোনাল্ড ট্রাম্প, ছবি: সংগৃহীত

ডোনাল্ড ট্রাম্প, ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আদালতের আদেশে স্থগিত হওয়ার পর এ বিষয়ে ফের নতুর নির্বাহী আদেশ জারির ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আগামী সপ্তাহে মুসলিম নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালে নতুন আদেশ জারি হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) হোয়াইট হাউসে এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প এ কথা জানান।

কিছুদিন আগে সাত মুসলিম প্রধান দেশের ওপর আদালতের নিষেধাজ্ঞার স্থগিতাদেশের জবাবে আগামী সপ্তাহে ট্রাম্প তার নতুন নির্বাহী নির্দেশে মুসলিম নিষেধাজ্ঞার পক্ষে যৌক্তিক বিষয় তুলে ধরবেন।

ফেডারেল আদালতের স্থগিতাদেশকে খারাপ সিদ্ধান্ত হিসেবে অভিহিত করে ট্রাম্প বলেন, নতুন নির্বাহী আদেশ অত্যন্ত সময়োপযোগী হতে যাচ্ছে। আগামী সপ্তাহে নির্বাহী আদেশটি জারি করা হবে।

নতুন সেই নির্বাহী আদেশ যুক্তরাষ্ট্রকে আরও বেশি নিরাপত্তা দেবে বলেও জানান তিনি। তবে নতুন নিষেধাজ্ঞায় কোন ধরনের বিষয়গুলো যুক্ত হচ্ছে সে বিষয়ে ব্যাখ্যা করেননি ট্রাম্প।

গত ২৭ জানুয়ারি পেন্টাগনে ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রে শরণার্থী, অভিবাসী ও ভ্রমণকারী প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে এক নির্বাহী আদেশে সই করেছিলেন। ‘যুক্তরাষ্ট্রকে গোঁড়া ইসলামি সন্ত্রাসীদের কবল থেকে রক্ষা করতে’ ট্রাম্প এই আদেশে সই করেছিলেন বলে জানান তিনি।

এই আদেশের আওতায় পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে সিরিয়ার শরণার্থী ও অভিবাসী প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা কার্যকর থাকার ঘোষণা দেওয়া হয়েছিলো। একইসঙ্গে যে কোনো ধরনের শরণার্থী প্রবেশ ৪ মাস বন্ধ থাকার কথা বলা হয়। আর মুসলিম প্রধান সাতটি দেশের দর্শনার্থী বা অভিবাসী প্রবেশ ৩ মাসের জন্য বন্ধ থাকার কথা বলা হয়।

ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশে বলা হয়েছিলো- যুক্তরাষ্ট্রের শরণার্থী প্রবেশ কর্মসূচি ৪ মাসের জন্য স্থগিত, বড় ধরনের পরিবর্তন ছাড়া পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সিরিয়ার শরণার্থী প্রবেশ নিষিদ্ধ, ‘উদ্বেগজনক এলাকা’ সিরিয়া ও ইরাকের পাশাপাশি ইরান, লিবিয়া, সোমালিয়া, সুদান ও ইয়েমেনের কোনো ভ্রমণকারী প্রবেশে ৯০ দিনের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।

এমন নিষেধাজ্ঞায় খোদ আমেরিকানসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষ ক্ষুব্ধ হন। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে জরালো প্রতিবাদ জানান। তবে ট্রাম্পের পক্ষেও কেউ কেউ সাফাই গেয়েছেন।

পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে নিষেধাজ্ঞার একদিন পরই প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জারি করা নির্বাহী আদেশ স্থগিত করে দিয়েছেন দেশটির এক আদালত। একটি আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে নিউইয়র্কের ফেডারেল আদালত স্থানীয় সময় গত ২৮ জানুয়ারি রাতে এ স্থগিতাদেশ দেন।

প্রথমে আদালতের স্থগিতাদেশ তোয়াক্কা করেননি ট্রাম্প। পরে দেশি-বিদেশি চাপ ও তীব্র সমালোচনার মুখে শেষ পর্যন্ত তার দেওয়া নির্বাহী আদেশের পক্ষে আদালতে আপিল করলে দেশটির ফেডারেল আপিল আদালত তা খারিজ করে দেন। ফলে ট্রাম্পের আরোপিত এ সংক্রান্ত সব নিষেধাজ্ঞাই মুখ থুবড়ে পড়ে।

শেষ পর্যন্ত কুল-কিনারা না পেয়ে অভিবাসী বা ভ্রমণকারীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের সময় অত্যন্ত কড়া নজরে রাখতে সীমান্তে দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

মুসলিম নিষেধাজ্ঞায় ফের ট্রাম্প উঠে-পড়ে লেগেছেন। আদালতের স্থগিতাদেশ উপেক্ষা করে হোয়াইট হাউসের সংবাদ সম্মলেন আগামী সপ্তাহের মধ্যে মুসলিম নিষেধাজ্ঞায় যে নতুন নির্বাহী আদেশের কথা বলেছেন ট্রাম্প। তাতে বলার আর অপেক্ষা রাখে না, বিশ্বব্যাপী অভিবাসন ও দর্শনার্থী ইস্যুতে ফের অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি হতে যাচ্ছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৭
টিআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Loading...
Alexa