[x]
[x]
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ বৈশাখ ১৪২৫, ২৬ এপ্রিল ২০১৮

bangla news

‘আমাদের শক্তিকে ভুল জায়গায় নষ্ট করিনি’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৩-০৩ ১:১৬:৩৩ পিএম
উইমেন টেক এক্সপো ২০১৮ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। ছবি: শাকিল আহমেদ

উইমেন টেক এক্সপো ২০১৮ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শক্তি হচ্ছে তার জনশক্তি। আর এ শক্তিকে আমরা কোনোভাবেই ভুল জায়গায় ব্যবহার করে নষ্ট করিনি বলে মন্তব্য করেছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। 

শনিবার (৩ মার্চ) ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশের (আইডিইবি) অডিটোরিয়ামে ‘উইমেন টেক এক্সপো ২০১৮’-এর প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। 

এ এক্সপো যৌথভাবে আয়োজন করে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন) ও বাংলাদেশ ওম্যান ইন আইটির (বিডব্লিউআইটি)।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী বলেন, আমাদের আর ভয়ের কোনো কারণ নেই। আমরা আমাদের দেশের মেয়েদেরকেও সমানভাবে উন্নত অবস্থায় দেখতে পেরেছি। কাজের ক্ষেত্রে ছেলেদের পাশাপাশি প্রতিযোগিতায় মেয়েরাও অংশগ্রহণ করছে। আর এটা সম্ভবই হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মাধ্যমে। সর্বশেষ পুলিশ প্যারেডেও আমরা দেখেছি একজন নারীকে নেতৃত্ব দিতে। এগুলো দেখেই আমরা প্রমাণ পাচ্ছি পিছিয়ে থাকার কোনো কারণ এখন আর অবশিষ্ট নেই আমাদের।

বাঙ্গালি জন্মগতভাবেই অনেক বেশি সাংস্কৃতিক উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখন অনেক বেশি স্পিরিচুয়াল শক্তি আমাদের মধ্যে আছে। এ শক্তিটাকে পুরোদমে কাজে লাগাতে পারলেই আমরা বিশ্বে উন্নত দেশ হিসেবে মাথা উচু করে দাঁড়াতে পারবো। আমাদের মেধাসম্পন্ন মস্তিষ্কের কোনো অভাব নেই। এ মেধাকে ব্যবহার করতে হবে পুরোনোকে বা আমাদের অতীতকে সঙ্গে নিয়ে। কেননা অতীতকে সঙ্গে না নিলে আমাদের সামনে এগিয়ে যাওয়াটা সম্ভব নয়।

বর্তমান সময়ে যুদ্ধটা অস্ত্রের না উল্লেখ করে ইয়াফেস ওসমান বলেন, বর্তমান যুগে যুদ্ধ হয় সাইবারে বা বুদ্ধিদীপ্ততার সঙ্গে। যেখানে কায়িক পশ্রমের চেয়ে মানসিক শ্রমের জায়গাটা বেশি। আর যুদ্ধে আমরা ইতোমধ্যে অবতীর্ণ হয়েছি। আর এই সেক্টরে নারীদের নজরদারী বা অংশগ্রহণ বাড়াতে হবে। কেননা তাদের দৃষ্টি অনেক বেশি তীক্ষ্ম। যা পুরুষদের নেই। তাই এখানে নারীদের অপার সম্ভাবনা রয়েছে। আর আমরা যদি আমাদের এই বিপুল সংখ্যক জনগোষ্ঠীকে কাজে না লাগাই তাহলে তা হবে চূড়ান্ত পর্যায়ের বোকামি।

জনতা ব্যাংকের চেয়ারপারসন ও বিডব্লিউআইটির সভাপতি লুনা শামসুদ্দোহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই বিভাগের প্রধান শেখ সেলিম, বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের (বিডিওএসএন) সহ-সভাপতি লাফিফা জামাল, ইউমেন ইন ডিজিটালের চেয়ারপারসন আছিয়া নীলা, বিডি ভেঞ্চার বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শওকত হোসেনসহ আরো অনেকে।

এক্সপোতে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা মোট ৩৫ জন নারী উদ্যোক্তা তাদের পণ্য ও সেবা ভিন্ন ভিন্ন স্টলের মাধ্যমে উপস্থাপন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিডিওএসএনের পক্ষ থেকে মন্ত্রীকে ও উপস্থিত অতিথিদেরকে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসানের লেখা ‘গ্রোথ হ্যাকিং মার্কেটিং’ ও ‘শরবতে বাজিমাত’ দু’টি বই উপহার দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠান শেষে মন্ত্রী স্টলগুলো ঘুরে দেখেন এবং নারী উদ্যোক্তাদের কাজের ভূয়সী প্রশংসা করেন। 

বাংলাদেশ সময়: ১৩১৬ ঘণ্টা, মার্চ ০৩, ২০১৮
এমএএম/জিপি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa