Alexa
ঢাকা, শুক্রবার, ৩ ভাদ্র ১৪২৪, ১৮ আগস্ট ২০১৭

bangla news

নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে সাদ্দামের ‘সেল্ফ প্রোটেক্ট’ অ্যাপ

আইসিটি ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৬-০৮-১১ ৮:৩০:১১ পিএম

সব সময়ই আমাদের প্রথম পছন্দ নিরাপত্তা। চলার পথে নিরাপত্তার বিষয়টি আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ। পরিবারের সদস্যদের নিয়েও আমরা সব সময় থাকি উদ্বিগ্ন। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এখন ব্যবহার হচ্ছে তথ্যপ্রযুক্তি।

ঢাকা: সব সময়ই আমাদের প্রথম পছন্দ নিরাপত্তা। চলার পথে নিরাপত্তার বিষয়টি আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ। পরিবারের সদস্যদের নিয়েও আমরা সব সময় থাকি উদ্বিগ্ন। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এখন ব্যবহার হচ্ছে তথ্যপ্রযুক্তি।

বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্বে বাংলাদেশের তরুণরাও এগিয়ে চলেছে। তাদের নানা উদ্ভাবনীর মধ্যে বাদ পড়েনি চলার পথে নিরাপত্তার বিষয়টি।

মেহেরপুরের মেধাবী সন্তান সাদ্দাম হোসেন তৈরি করেছে ‘সেল্ফ প্রোটেক্ট’ অ্যাপ।

বাংলানিউজের সঙ্গে আলাপে সাদ্দাম জানান, ২০১২ সালে এক রাতে বাড়ি ফেরার পথে সন্ত্রাসীদের কবলে পড়লে তার এই অ্যাপ তৈরির আইডিয়া মাথায় আসে। শুরু হয় গবেষণা।

অ্যাপটি স্মার্ট ফোনে ইনস্টল করা থাকলে বিপদের সময় ভুক্তভোগী মোবাইলের পাওয়ার বাটন চ‍াপলেই ওই ব্যক্তির লোকেশন, ছবি, মোবাইলের আইএমইআই নম্বরসহ প্রয়োজনীয় তথ্য নিকটস্থ থানায় পৌঁছে যাবে। এছাড়া দুর্বৃত্তরা ওই মোবাইলে নতুন সিম ব্যবহার শুরু করলে নম্বর, অবস্থান পুলিশ জানতে পারবে।

২০১৪ সাল থেকে সেলফ প্রোটেক্ট’র কাজ শুরু করেন সাদ্দাম। আইসিটি বিভাগের অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট প্রশিক্ষণে অংশ নিয়ে আইডিয়ার কথা জানালে প্রশিক্ষকরা তাকে উৎসাহিত করেন, একইসঙ্গে সহযোগিতাও করেন। ছোট্ট প্রশিক্ষণ আর ইন্টারনেট থেকে গাইড নিয়ে শুরু হয় তার অ্যাপ তৈরির কাজ। কম্পিউটার সায়েন্স ইঞ্জিনিয়ারিং-এর (সিএসই) ছাত্র হওয়ায় তার কাজ আরও সহজ হয়ে যায়।

তবে সাধারণ মানুষের ব্যবহার উপযোগী করতে এখনো কিছুটা সময় লাগবে, বলেন সাদ্দাম।

অ্যাপটিতে কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে। যেহেতু পাওয়ার বাটন চাপলেই থানায় তথ্য চলে যাবে, তাই এ বিষয়ে জনসচেতনতা তৈরি করতে হবে।

ফিচার ফোনের জন্য বিকল্প ব্যবস্থা নিয়ে গবেষণা চলছে।

ইতোমধ্যে বিভিন্ন ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা, বিজ্ঞান মেলায় অ্যাপটি নির্বাচিত হয়েছে।

নাগরিক নিরাপত্তামূলক অ্যাপ হওয়ায় পুলিশ সদর দফতর, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন’র (এটুআই) সার্ভিস ইনোভেশন ফান্ড প্রকল্প এবং আইসিটি বিভাগের উদ্ভাবনী অনুদান ও অনুমোদনের জন্য আবেদন করেছে সাদ্দাম।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক তাকে আশ্বস্তও করেছেন।

এই কাজে সহযোগিতার করায় আইসিটি বিভাগের প্রশিক্ষক কৃষ্ণ রায় মিথুন ও এটুআই’র ফারুক আহমেদ জুয়েলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন সাদ্দাম।

সাদ্দাম হোসেন ঢাকার ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র। তার উদ্ভাবনী শক্তির কারণে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে ৫০ শতাংশ বৃত্তি দিয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২০২৬ ঘণ্টা, আগস্ট ১১, ২০১৬
এসজেডএম/এটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

You May Like..
Alexa