অগ্রণী ব্যাংকের পরীক্ষা স্থগিত, সড়ক অবরোধ
[x]
[x]
ঢাকা, শুক্রবার, ২ ভাদ্র ১৪২৫, ১৭ আগস্ট ২০১৮
bangla news

অগ্রণী ব্যাংকের পরীক্ষা স্থগিত, সড়ক অবরোধ

2419 |
আপডেট: ২০১৫-০৫-০৮ ১২:০৭:০০ পিএম

পরীক্ষার্থীর তুলনায় প্রশ্ন ও উত্তরপত্র কম হওয়ায় অগ্রণী ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার ও অফিসার ক্যাশ ক্যাটাগরিতে বিশেষ কোটার নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করেছেন পরীক্ষার্থীরা।

ঢাকা: পরীক্ষার্থীর তুলনায় প্রশ্ন ও উত্তরপত্র কম হওয়ায় অগ্রণী ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার ও অফিসার ক্যাশ ক্যাটাগরিতে বিশেষ কোটার নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করেছেন পরীক্ষার্থীরা।

শুক্রবার (০৮ মে) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে পরীক্ষা কেন্দ্রে এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিতের ব্যাপারটি জানানো হয়।

সকাল সাড়ে ৯টায় রাজধানীর উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও মোহাম্মদপুর প্রিপ‍ারেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিলো।

উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে আসা শেখ তাহের   বাংলানিউজকে জানান, সকাল সাড়ে ৯টায় পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও কর্তৃপক্ষ সকাল ১০টা পর্যন্ত বলে আসছিল প্রশ্ন এবং ওএমআর ফটোকপি করে পরীক্ষা নেওয়া হবে। কিন্তু পরে কেন্দ্রের সামনে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে পরীক্ষা স্থগিতের কথা জানানো হয়।

এ ব্যাপারে রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান বাংলানিউজকে  জানান, পরীক্ষার্থী ছিল ৪ হাজার। কিন্তু প্রশ্নপত্র মাত্র ৭শ কপি থাকায় পরীক্ষা পেছানো হয়।

এদিকে মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুল কেন্দ্রের পরীক্ষার্থীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে আসাদগেট মোড়ে অবস্থান নিয়েছে। এর ফলে ওই সড়কে সব ধরনের যাল চলাচল বন্ধ রয়েছে।

প্রিপারেটরি স্কুল কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) এর সহকারি অধ্যাপক অতুল পণ্ডিত বাংল‍ানিউজকে বলেন,  মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি ভয়েস স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও প্রিপারেটরি গালস কলেজে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিলো। তবে পরীক্ষা শুরু সময় গালস স্কুল অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষার্থীদের ৭০টি প্রশ্নপত্র কম হওয়ায় পরীক্ষার্থীরা উত্তাপ শুরু করে। এর এক পর্যায়ে পরীক্ষা স্থগিত করা করা হয়।

তিনি আরও বলেন, পরীক্ষা স্থগিতের খবরে গালস স্কুলের পরীক্ষার্থীরা ভয়েস স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে গিয়ে উত্তাপ ছড়ায় পড়ে তারা সবাই মিলে রাস্তায় গিয়ে বিক্ষোভ ও ভাঙচুর করে।

মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। 
 
বাংলাদেশ সময়: ১২০৭ ঘণ্টা, মে ০৮, ২০১৫/আপডেট ১৩৫৩ ঘণ্টা
আইএএ/এনএফএইচ/এএসজেএ/বিএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa