Alexa
ঢাকা, রবিবার, ১১ আষাঢ় ১৪২৪, ২৫ জুন ২০১৭

bangla news

আমি কাঁদতাম, সালমান হাসতো: ক্যাটরিনা

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৬-১৬ ২:৫৮:০৪ পিএম
ক্যাটরিনা কাইফ ও সালমান খান (ছবি: সংগৃহীত)

ক্যাটরিনা কাইফ ও সালমান খান (ছবি: সংগৃহীত)

একদিনে সফলতার শিখরে যেতে পারেনা কেউ। এ জন্য দরকার কঠোর পরিশ্রম ও অধ্যবসায়। ঠিক যেমনটা করতে হয়েছে বলিউড অভিনেত্রী ক্যাটরিনা কাইফকে। জনপ্রিয় অভিনেত্রীদের মধ্যে অন্যতম তিনি। আজকের অবস্থানে আসতে বেশ কষ্ট করতে হয়েছে এই সুন্দরীকে। ক্যারিয়ারের শুরুতে একাধিক ছবি থেকে বাদও পড়েছিলেন ক্যাট।

প্রথম দিকে ছবি থেকে বাদ পড়ে বেশ কষ্ট পেতেন ক্যাটরিনা। এজন্য অনেক কেঁদেছিলেন তিনি। আর ক্যাটরিনা যখন কাঁদতেন অভিনেতা সালমান খান তার এ অবস্থা দেখে হাসতেন। সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে এ কথা নিজের মুখেই স্বীকার করেছেন ‘ধুম’খ্যাত এই অভিনেত্রী।

এ প্রসঙ্গে ক্যাটরিনার ভাষ্য, “ছায়া’ ছবিটিতে আমার অভিনয় করার কথা ছিলো। অনুরাগ বসু ছিলেন পরিচালক, জন আব্রাহাম নায়ক এবং আমাকে নায়িকা চরিত্রে নির্বাচন করা হয়। এক রাতে আমাকে শুটিংয়ের জন্য ডাকা হয়। দু’দিন শুটিং করার পর আমাকে ছবি থেকে বাদ দেওয়া হয়। আমাকে বাদ দেওয়ার বিষয়টি জানার পর কাঁদতে শুরু করি। অঝোরে কাঁদতে থাকি।”

৩৩ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী আরও বলেন, “আমার ওপর ওর (সালমান খান) অনেক বিশ্বাস ছিলো। মাঝে মধ্যে আমি সালমানের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে কাঁদতাম এবং তিনি হাসতেন। আমি ভাবছিলাম তিনি অনেক নিচু মনের মানুষ। মনে হতো আমার ক্যারিয়ার শেষ। প্রথম ছবি থেকে আমাকে বাদ দেওয়া হয়েছে এবং আমার জীবন শেষ হয়ে গেছে, আর তিনি হাসতেন? তিনি আমাকে সান্ত্বনা দিতেন এবং বলতেন, ‘তুমি বুঝতে পারছো না, কিছুই হয়নি। আমি জানি, এখান থেকে তুমি অনেক দূর যাবে- এটা হবে, আমার কোনো উত্তর নেই কিন্তু এটা হবে দেখে নিও। শুধু লক্ষ্য স্থির রেখে কঠোর পরিশ্রম করে যাও।”

‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’ ছবি নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন ক্যাটরিনা। এতে তার সহশিল্পী সালমান খান। এছাড়া ‘জাগ্গা জাসুস’ ছবির প্রচারণা করছেন তিনি। এখানে তার বিপরীতে থাকছেন প্রাক্তন প্রেমিক রণবীর কাপুর।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০১ ঘণ্টা, জুন ১৬, ২০১৭
বিএসকে/এসও

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

You May Like..
Alexa