রেমিট্যান্সের উপর ভ্যাট আরোপ হয়নি, ভবিষ্যতেও হবে না
[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৫, ১২ আগস্ট ২০১৮
bangla news

রেমিট্যান্সের উপর ভ্যাট আরোপ হয়নি, ভবিষ্যতেও হবে না

তপন চক্রবর্তী, ব্যুরো এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৬-১৪ ৬:৩৮:০৬ পিএম
প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নূরুল ইসলাম বিএসসি। ছবি: বাংলানিউজ

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নূরুল ইসলাম বিএসসি। ছবি: বাংলানিউজ

চট্টগ্রাম: ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে প্রবাসী বাংলাদেশিদের পাঠানো রেমিট্যান্সের উপরে মূল্য সংযোজন কর (মূসক) বা ভ্যাট আরোপিত হয়েছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার চালানো হচ্ছে। কিন্তু এই প্রচার পুরোপুরি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। 

এ অপপ্রচার নিয়ে সবাইকে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি। বৃহস্পতিবার (১৪ জুন) বাংলানিউজকে তিনি এসব কথা জানান।

নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেন, বাংলাদেশের সোনার ছেলেরা পরিশ্রম করছেন, তারা দেশের অর্থনীতিতে কষ্ট করে প্রতিমাসে অর্থ পাঠাচ্ছেন। আমি তাদের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছি। 

‘আপনারা দেশের প্রতি যে মায়া মমতা দেখিয়েছেন, ভবিষ্যতেও তা অব্যাহতভাবে দেখিয়ে যাবেন। আমি আপনাদের আশ্বস্ত করতে চাই- বাংলাদেশ সরকার বিদেশ থেকে এই দেশের কোনো নাগরিকের পাঠানো রেমিট্যান্সের উপর ভ্যাট আরোপ করেনি এবং ভবিষ্যতেও করা হবে না। কারণ রেমিট্যান্স পাঠানোর অর্থই হলো দেশের সাহায্য করা। ট্যাক্স দিয়ে যেমন আপনারা সাহায্য করেন তেমনি রেমিট্যান্স পাঠিয়েও সাহায্য করেন। আমরা বৈদেশিক মূদ্রা আহরণকারীদের উপর কোনো ট্যাক্স আরোপ করবো না।’

তিনি বলেন, আপনারা নিশ্চিত থাকুন এই সরকার প্রবাসীদের উন্নয়নে কাজ করেছে, সরকার প্রবাসীবান্ধব সরকার। প্রবাসীদের কল্যাণ ও উন্নয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন- প্রবাসীদের উন্নয়ন ও কল্যাণে যাতে কাজ করা হয়। আমরা তা পালন করে যাচ্ছি। 

আরও পড়ুন>>
** 
রেমিট্যান্সের উপর ভ্যাট বসেনি: এনবিআর

‘আমরা প্রবাসীদের জন্য একটি হাসপাতাল, একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, আবাসিক এলাকা গড়ে তুলতে আমাদের প্রোগ্রাম রয়েছে। অচিরেই তা বাস্তবায়ন করা হবে,’ বলেন বিএসসি। 

এর আগে শুক্রবার (১৩ জুন) এক বিবৃতিতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড জানায়, বিদেশ থেকে পাঠানো প্রবাসীদের রেমিট্যান্সের উপর কোনো ভ্যাট আরোপ করা হয়নি। যে অপ্রচার চালানো হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও গুজব।
 
দেশের বৈধ রেমিট্যান্স প্রবাহ বন্ধ করে হুন্ডির মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণের অপপ্রয়াস হিসেবে এ প্রচারণা চালানো হতে পারে বলেও মনে করে এনবিআর। 

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৩ ঘণ্টা, জুন ১৪, ২০১৮
টিসি/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa