ঈদে হাসানের একটি লাল জামার আবদার
[x]
[x]
ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৪ আগস্ট ২০১৮
bangla news

ঈদে হাসানের একটি লাল জামার আবদার

মাহবুবুর রহমান মুন্না, ব্যুরো এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৬-১২ ৩:৩৭:০৬ পিএম
ডলের দিকে তাকিয়ে আছে হাসান, ছবি: মানজারুল ইসলাম

ডলের দিকে তাকিয়ে আছে হাসান, ছবি: মানজারুল ইসলাম

খুলনা: ডলের গায়ে পরানো জামার মধ্যে নিজের জন্য পছন্দের জামা দেখছে শিশুটি। দেখলেও কেনার সামর্থ নেই তার। তবুও ডলের গায়ের জামার দিকে তাকিয়ে শুধু স্বপ্নই বুনে যাচ্ছে ১০ বছর বয়সী হাসান। মা সাকিনা বার বার ধাক্কা দিয়ে শোরুমের সামনে থেকে তাকে সরিয়ে দিচ্ছে। কিন্তু ছেলেটি না সরেই ডলের পোশাকের দিকে তাকিয়ে আছে। 

মঙ্গলবার (১২ জুন) দুপুরে খুলনার অভিজাত শপিং কমপ্লেক্সের দোতলায় এমন দৃশ্যের দেখা যায়। 

মার্কেটজুড়ে বিত্তবানদের ধুম পড়েছে কেনাকাটায়। বেশ ঘটা করে কেনা হচ্ছে ঈদের পোশাক। এখন অনেকেই এক পোশাকে সন্তুষ্ট থাকতে পারেন না। কেনেন একাধিক পছন্দের পোশাক। এসব পোশাকের  কোনোটা ঈদের সকালের, কোনোটা বিকেলের। আবার কোনোটা ঈদের রাতের পার্টির জন্য। অথচ পুরো ঈদেই হাসানদের মতো অনেক অসহায় দরিদ্র ও পথশিশুদের একটি জামার আবদারও মেটে না।

হাসান বলে, কত স্যারের কাছেই একটা লাল জামা চাইছি। কিন্তু কেউ দেয় নাই। ৫-১০ টাহা দিছে। তাতে কি আর জামা কিনা যায়।
 
হাসানের মা সাকিনার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তাদের গ্রামের বাড়ি ডুমুরিয়ার রুদাঘরায়। স্বামী শহিদুল অসুস্থ। চলাফেরা করতে পারে না। গ্রামে একটু মাথা গুজার ঠাঁই কুঁড়ে ঘরের জায়গা ছাড়া সম্পত্তি বলতে কিছুই নেই।
মায়ের সঙ্গে হাসান, ছবি: বাংলানিউজতিনি আরও জানান, পেটের দায় ঘোচাতে ও ঈদ উপলক্ষে কিছু সহযোগিতার আশায় গ্রাম থেকে খুলনায় এসেছেন। পাখি ডাকা ভোরে আসেন আর সন্ধ্যায় গ্রামে ফিরে যান। যা হয় তা দিয়ে তিন ছেলে-মেয়ের নিয়ে কোনো মতো চলে যায়। কিন্তু সামনে ঈদ আর স্বামীর চিকিৎসার জন্য কিছু বাড়তি পাওয়ার আশায় শহরের মার্কেটগুলোতে কেনাকাটা করতে আসা লোকেদের কাছে হাত পাতছেন। বড় দুই ছেলে-মেয়েকে বাসায় রেখে আসলেও ছোট ছেলে হাসানকে সঙ্গে নিয়ে আসেছেন।

সাকিনা জানান, হাসানের এবার ঈদে একটি লাল জামার আবদার। প্রতিদিনই মার্কেটে এসে শুধু জামার দিতে তাকিয়ে থাকে। কিন্তু কেউই সে আবদার পূরণ করে না। আবদার পূরণ না করে প্রতিদিনই শুধু ক্ষুধা নিবারণের ব্যবস্থা করে গ্রামে ফিরে যান তারা।

না পাওয়ার এ বেদনা থেকে হাসানের মতো দরিদ্র অসহায়দের ঈদ আনন্দটা স্বপ্নের মতো মনে হয়। ঈদ কেন যেনো তাদের আপন হতে চায় না।

বাংলাদেশ সময়: ১৫২২ ঘণ্টা, জুন ১২, ২০১৮
এমআরএম/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa