ঢাকা, শনিবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭

bangla news

রাজস্ব বাড়াতে এনবিআরের বিশেষ টাস্কফোর্স

শেখ জাহিদুজ্জামান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৯-১৪ ৬:২৮:০৩ এএম
জাতীয় রাজস্ব বোর্ড-ফাইল ছবি

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড-ফাইল ছবি

ঢাকা: জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বিশেষ টাস্কফোর্স গঠনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড সূত্রে জানা যায়, এই টাস্কফোর্সের মাধ্যমে স্বাভাবিক প্রবৃদ্ধির বাইরে ২২ হাজার কোটি টাকার বেশি রাজস্ব আহরণ সম্ভব হবে। 

পাশাপাশি ২ লাখ ৪৮ হাজার ১৯০ কোটি টাকা রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনও এনবিআর এর পক্ষে সহজ হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

সদ্য বিদায়ী অর্থ বছরসহ গত ৩ বছরই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সক্ষম হয়েছে এনবিআর। যদিও প্রতিবারই লক্ষ্যমাত্রা সংশোধন করতে হয়েছে। 

জানা গেছে, এবার রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে সবচেয়ে বেশি আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে মূল্য সংযোজন  কর (মূসক) বা ভ্যাট থেকে। এ খাতে লক্ষ্যমাত্রা ৯১ হাজার ১৭৬ কোটি টাকা। এছাড়া আয়কর ও মুনাফার ওপর কর থেকে ৮৫ হাজার ১৭৬ কোটি টাকা রাজস্ব পাওয়ার আশা করা হয়েছে এবারের বাজেটে।  আমদানি শুল্ক থেকে ৩০ হাজার ২৩ কোটি, সম্পূরক শুল্ক থেকে ৩৮ হাজার ৪০১ কোটি, রপ্তানি শুল্ক থেকে ৪৪ কোটি এবং অন্যান্য কর ও শুল্ক থেকে ১ হাজার ৬৯০ কোটি টাকা আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

আর এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে মূসক নিরীক্ষা ও শুল্ক গোয়েন্দাদের বাইরে নতুন এ টাস্কফোর্স রাজস্ব আহরণের নতুন নতুন ক্ষেত্র খুঁজে বের করবে। সারা দেশে ভ্যাট না দেয়া প্রতিষ্ঠান বাছাই করে রাজস্ব ফাঁকি রোধে কাজ করবে টাস্কফোর্সটি। শুধু তাই নয়, কেন্দ্র থেকে জরুরি ভিত্তিতে রিজার্ভ ফোর্সের মাধ্যমে অনুসন্ধান করে ফাঁকি দেয়া ভ্যাটও আদায় করবে টাস্কফোর্স। 

টাস্কফোর্স গঠনে ইতোমধ্যে এনবিআরের শুল্ক নিরীক্ষা ও আধুনিকায়ন এবং আন্তর্জাতিক বাণিজ্য বিভাগের সদস্য খন্দকার আমিনুর রহমানকে প্রধান করে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে যত দ্রুত সম্ভব নতুন এই টাস্কফোর্সের কাজের পরিধি ও কাঠামো তৈরি করতে বলেছে এনবিআর। এরপর কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে টাস্কফোর্সের জনবল ও কার্যক্রম নির্ধারণ করবে এনবিআর। 

মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক আইন, ১৯৯১-এর ২২ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে গঠন করা হচ্ছে এই টাস্কফোর্স।

টাস্কফোর্স গঠনের বিষয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, বাজেটে রাজস্ব আহরণে এনবিআরকে যে লক্ষ্যমাত্রা দেওয়া আমরা সেই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আশাবাদী। আর সেই ধারাবাহিকতায় আমরা কাজ করে যাচ্ছি। নতুন এই টাস্কফোর্সটি রাজস্ব আহরণে আমাদের আরও বেশি সহযোগিতা করবে। কেননা তারা যে সকল প্রতিষ্ঠান সরকারকে রাজস্ব দেয় না তাদের খুঁজে বের করবে। মূলত রাজস্ব ফাঁকি রোধ ও আহরণ বাড়াতেই  এই টাস্কফোর্স গঠন করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে টাস্কফোর্স গঠনের কাজও শুরু হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ০৬২৭ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৪,২০১৭
এসজে/আরআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Alexa