Alexa
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ চৈত্র ১৪২৩, ২৩ মার্চ ২০১৭
bangla news
symphony mobile

হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে ১৮ হাজার শ্রমিকের কর্মসংস্থান

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৩-১৩ ৩:০৯:৪৯ পিএম
হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে ১৮ হাজার শ্রমিকের কর্মসংস্থান-ছবি: বাংলানিউজ

হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে ১৮ হাজার শ্রমিকের কর্মসংস্থান-ছবি: বাংলানিউজ

হবিগঞ্জ: প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিগত তিন বছরে হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে ১৮ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। বর্তমানে এখানে ৩৭টি উৎপাদন লাইনের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের পণ্য উৎপাদন হচ্ছে।

আসছে বছর নাগাদ আরও আট থেকে ১০টি উৎপাদন লাইন যুক্ত হবে এই কারখানায়। এতে আরও প্রায় পাঁচ-সাত হাজার কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। ২০১৮ সালে কারখানায় কর্মী সংখ্যা হবে প্রায় ২৫ হাজার।

সোমবার (১৩ মার্চ) সকাল ১০টায় হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এসব তথ্য জানান প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের পরিচালক (বিপণন) কামরুজ্জামান কামাল।

তিনি জানান, ২০১৪ সালে হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে উৎপাদন শুরু হয়। এরপর থেকে একে একে নতুন নতুন উৎপাদন লাইন সংযুক্ত হতে থাকে। একই সঙ্গে বাড়তে থাকে কারখানার কর্মী সংখ্যাও। কারখানায় কর্মরতদের ৮০ ভাগই স্থানীয়। এর মধ্যে ৫৫ ভাগ নারী কর্মী রয়েছেন। কারখানাটি স্থাপন করায় এ অঞ্চলের আর্থ-সামাজিক অবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে।

হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কের জেনারেল ম্যানেজার এইচএম মঞ্জুরুল হক জানান, কর্মসংস্থানের পাশাপাশি শায়েস্তাগঞ্জ এলাকায় উন্নত শিক্ষার সুযোগ সম্প্রসারণের লক্ষ্যে কাজ করছে কোম্পানিটি। কারখানার কাছে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন একটি বিদ্যালয় স্থাপন করা হয়েছে। বর্তমানে এখানে প্রায় ছয়শ’ শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছে। এছাড়া বেশ কিছু স্কুলের মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের বৃত্তি দেওয়াসহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। এ এলাকার লোকজনের যাতায়াতের সুবিধার জন্য বেশকিছু রাস্তাঘাট নির্মাণ, পয়ঃনিষ্কাশনের ব্যবস্থাসহ বিভিন্ন কার্যক্রম চলছে। যা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

মতবিনিময় সভায় তথ্য অধিকার আইনসহ সাংবাদিকদের বিভিন্ন সমস্যা, সুবিধা-অসুবিধা নিয়ে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি ও একুশে টেলিভিশনের সিইও মনজুরুল আহসান বুলবুল। এ সময় তিনি নিজের জীবনের সাংবাদিকতার বিভিন্ন অভিজ্ঞতা তুলে ধরে স্থানীয় সাংবাদিকদের অনুপ্রেরণা যোগান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন-হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কের জেনারেল ম্যানেজার আরএফএল অ্যাডমিন ফজলে রাব্বি, সিনিয়র ম্যানেজার প্রাণ-অ্যাডমিন এহসানুল হাবিব, প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের কমিউনিকেশন ম্যানেজার জিয়াউল হক প্রমুখ।

উল্লেখ্য, প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ হবিগঞ্জের অলিপুরে ২১৭ একর এলাকাজুড়ে হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক গড়ে তুলেছে। কারখানায় বর্তমানে ক্যান্ডি, লিকুইড গ্লুকোজ, বিস্কুট, ফ্রুট ড্রিংকস, বেভারেজ, কনফেকশনারী, ইলেকট্রিক ক্যাবলস, ফ্যান, মেলামাইন, বাইসাইকেল, পিভিসি, মল্ডেড প্লাস্টিক, এমএস ও জিআই পাইপ, টেক্সটাইল, টয়লেট্রিজ ও চিকিৎসা সরঞ্জামসহ বিভিন্ন পণ্যসামগ্রী উৎপাদিত হচ্ছে।

প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ ১৯৮১ সালে যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটিতে ৮৪ হাজার কর্মী রয়েছে। বিশ্বের ১৩৪টি দেশে সুনামের সঙ্গে পণ্য রপ্তানি করছে প্রতিষ্ঠানটি।

বাংলাদেশ সময়: ১৫০৫ ঘণ্টা, মার্চ ১৩, ২০১৭
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

You May Like..