বৃষ্টি-জোয়ারের পানিতে নিম্নাঞ্চল জলমগ্ন
[x]
[x]
ঢাকা, বুধবার, ৬ ভাদ্র ১৪২৫, ২২ আগস্ট ২০১৮
bangla news

বৃষ্টি-জোয়ারের পানিতে নিম্নাঞ্চল জলমগ্ন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৫-১৬ ১২:২৮:২৬ পিএম
বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে নগরের নিচু এলাকাগুলোতে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে । ছবি: সোহেল সরওয়ার

বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে নগরের নিচু এলাকাগুলোতে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে । ছবি: সোহেল সরওয়ার

চট্টগ্রাম: কালবৈশাখীর প্রভাবে নগরের নিম্নাঞ্চল জলমগ্ন হয়ে দুর্ভোগে পড়েছে হাজারো মানুষ। মঙ্গলবার (১৫ মে) সকাল পৌনে ৯টা থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে নগরের নিচু এলাকাগুলোতে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে।

আবহাওয়ার পূর্বাবাসে বলা হয়েছে, লঘুচাপের বর্ধিতাংশ বিহার ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। এর প্রভাবে চট্টগ্রাম, রংপুর, রাজশাহী, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং বরিশাল বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে নগরের নিচু এলাকাগুলোতে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে । ছবি: সোহেল সরওয়ার

পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ আব্দুর হান্নান বাংলানিউজকে বলেন, ‘সকাল সাড়ে ৭টার দিকে জোয়ার শুরু হয়েছিলো। দুপুর ১টার পর থেকে ভাটা নামতে শুরু করবে। কালবৈশাখীর প্রভাবে সকাল পৌনে নয়টা থেকে নগরের বিভিন্ন স্থানে ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। এখনো থেমে থেমে বৃষ্টিপাত হচ্ছে।’

বিকেলে চট্টগ্রামসহ সারাদেশে আরও ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে বলেও জানান তিনি। 

এদিকে, সকাল থেকে ভারী বৃষ্টিপাত ও জোয়ারের পানিতে নগরের নিম্নাঞ্চলে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে নগরের নিম্নাঞ্চলের সড়ক ও অলিগলিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। নগরের বাকলিয়া, চকবাজার, বাদুরতলা, মুরাদপুর, চাকতাই, খাতুনগঞ্জ, আগ্রাবাদসহ বেশিরভাগ নিম্নাঞ্চল জলমগ্ন হয়েছে। অনেকের বাসা, বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পানি ঢুকে পড়েছে। দুর্ভোগে পড়েছেন স্কুল ও অফিসগামী লোকজন।

বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে নগরের নিচু এলাকাগুলোতে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে । ছবি: সোহেল সরওয়ার

বাকলিয়া এলাকার তাফহিম বাংলানিউজকে জানান, ‘রাতে বৃষ্টি হয়নি। কিন্তু সকাল থেকে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ছিলো। সকাল পৌনে ৯টার দিকে ভারী বৃষ্টিপাত হতে থাকে। একদিকে জোয়ারের পানি আর অন্যদিকে বৃষ্টিপাত। জোয়ার আসলেই বাকলিয়া এলাকায় পানি ওঠে যায়। সকালে ভারী বৃষ্টিপাত হওয়ায় পানি আরও বেড়ে গেলো। কখন যে এই এলাকার দুর্ভোগের শেষ হবে।’

বাদুরতলা এলাকার সাকিব বাংলানিউজকে জানান, ‘শুধু বৃষ্টি নয় দিনের বেলায় জোয়ার আসলেও বাদুরতলা এলাকায় পানি ওঠে যায়। অন্যান্য এলাকায় নালা পরিষ্কার করলেও এবার বাদুরতলা এলাকায় পরিষ্কার করা হয়নি। সকাল থেকেই রাস্তায় হাঁটু সমান পানি উঠেছে। এলাকার স্কুল ও অফিসগামী লোকজনের দুর্ভোগ বেড়েই চলেছে। এখনো পুরোপুরি বর্ষা মৌসুম শুরু হয়নি। কিন্তু এখন থেকেই জলাবদ্ধতার দুর্ভোগ শুরু হয়ে গেছে। সামনে জলাবদ্ধতা নিয়ে আরও কত যে কষ্ট ও দুর্ভোগ পোহাতে হবে, তা বুঝতে পারছি না। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১২২৫ ঘণ্টা, মে ১৬, ২০১৮

এসবি/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa